artk
বুধবার, ডিসেম্বার ১১, ২০১৯ ১১:২২   |  ২৭,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কক্সবাজার প্রতিনিধি

রোববার, আগষ্ট ২৫, ২০১৯ ৮:৫৪

ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে রোহিঙ্গারা

media
দুই বছরে ৪৩ হত্যা মামলার আসামি : ৪৭১টি মামলায় আসামি ১ হাজার ৮৮ জন ২ শতাধিক মাদক মামলার পাশাপাশি রয়েছে মানবপাচারের মামলাও

রোহিঙ্গা সংকটের দুবছর পূর্ণ হলো রোববার। এই দীর্ঘ সময়ে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রাখাইনের মুসলিম জনগোষ্ঠী।

ভয়াবহ অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গারা। বেড়েই চলছে তাদের অপরাধ প্রবণতা। ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে নিজ দেশ থেকে বিতাড়িত এই জাতিগোষ্ঠী। 

গত দুই বছরে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধে চারশ ৭১টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে হত্যাকাণ্ড ৪৩টি। রয়েছে ধর্ষণ, অপহরণ, মাদক চোরাচালানের অভিযোগও।

বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা এলাকায় হত্যা করা হয় স্থানীয় যুবলীগ নেতা ওমর ফারুককে। তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এই হত্যার সাথে রোহিঙ্গা অস্ত্রধারীরা জড়িত বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রতিবাদে জাদিমুরা ক্যাম্পের আশেপাশে ভাঙচুর ও সড়ক অবরোধ করে স্থানীয়রা।

এই ঘটনার পর শুক্রবার গভীর রাতে টেকনাফের জাদিমুরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মোহাম্মদ শাহ ও মো. শুক্কুর নামে দুই রোহিঙ্গা শরণার্থী নিহত হন।

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাস জানান, ওই দুই জন যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক হত্যা মামলার আসামি। তারা জাদিমুরা ক্যাম্পে অবস্থান করছে খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালালে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে ওই দুই জন নিহত হয়। তাদের অবস্থান থেকে দুটি দেশে তৈরি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগে গত ২২ আগস্ট বিজিবির সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই জন রোহিঙ্গা শরণার্থী নিহত হন। তারা ইয়াবার চালান নিয়ে আসছিলে বলে জানিয়েছিল বিজিবি। মায়ানমারের রাখাইনে নিপীড়নের শিকার হয়ে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে নতুন করে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বাংলাদেশে আশা শুরু করে। এই ধাপের আট লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা আসে কক্সবাজারে। তারা বিভিন্ন ক্যাম্পে অবস্থান করছে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন বলেন, “সম্প্রতি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে। গত দুই বছরে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে চারশ ৭১টি মামলা হয়েছে। আর এইসব মামলায় আসামির সংখ্যা এক হাজার ৮৮ জন।”

দুই শতাধিক মাদক চোরাচালান মামলা রয়েছে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বিরুদ্ধে। মানব পাচারের মামলাও রয়েছে চারটি। এছাড়া অস্ত্র, ধর্ষণ, ধর্ষণচেষ্টা, নারী নির্যাতন, অপহরণ ও পুলিশের ওপর হামলার মামলাও রয়েছে। কিছু রোহিঙ্গা নারীর বিরুদ্ধে যৌন ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ার অভিযোগও রয়েছে।

পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেনের মতে, রোহিঙ্গারা সবচেয়ে বেশি মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। ইয়াবার উৎস যেহেতু মিয়ানমার, আর তারা এসেছেনও মিয়ানমার থেকে, তাই এই ব্যবসায় তাদের যোগাযোগ ভালো। সে কারণেই তারা ইয়াবা ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ছে বলে মনে হয়।

তবে রোহিঙ্গাদের এই অপরাধ প্রবণতা তাদের নিজেদের মধ্যেই বেশি বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, “স্থানীয় সাধারণ মানুষের সাথে তাদের তেমন বিরোধ নেই। দুই বছরে যে ৪৩ জনকে রোহিঙ্গারা হত্যা করেছে, তাদের মধ্যে বৃহস্পতিবার নিহত যুবলীগ নেতা ওমর ফারুকই স্থানীয় বাংলাদেশি। বাকি ৪২ জনই রোহিঙ্গা শরণার্থী।

তিনি আরো বলেন, “তাকে (ফারুক) রোহিঙ্গা ডাকাতরা হত্যা করেছে। ফারুক ক্যাম্পগুলোতে ঠিকাদারির কাজ করত। আমরা ধারণা করছি, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা আধিপত্যের দ্বন্দ্বে তাকে হত্যা করেছে।”

কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মুখপাত্র মো. ইউনূস আরমান বলেন, “আমাদের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ক্ষুদ্র একটি অংশের অপরাধে জড়িয়ে পড়া অত্যন্ত দুঃখজনক। এটা আমাদেরও বিব্রত করে। কিন্তু যারা মাদক পাচারসহ নানা অপরাধ করছেন, তাদের মূলত স্থানীয় সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীরা ব্যবহার করছে। আর যেসব রোহিঙ্গা এসব অপরাধ করছে তারা ক্যাম্পে থাকে না। ক্যাম্পের নম্বর থাকলেও তারা বাইরে থাকে। তবে অপরাধ করার পর অনেকে ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়।”

মো. ইউনূস আরমানের অভিযোগ, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দারিদ্র্যের সুযোগ নিয়ে তাদের ইয়াবা পাচারের ক্যারিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীরা। তিনি এই বলেন, “কক্সবাজারে মাদক ব্যবসা করে কারা বিলাসবহুল বাড়ি ও সম্পদের মালিক তা তো সবাই জানে। স্থানীয় সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোও একইভাবে গরিব রোহিঙ্গাদের ব্যবহার করে। হত্যাকাণ্ডগুলোও ক্যাম্পের বাইরে হয়েছে।”

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন বলছেন, “রোহিঙ্গাদের অপরাধ প্রবণতা বাড়লেও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়নি। রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরগুলোতে নয়টি পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। ক্যাম্পগুলোতে ১১শ পুলিশ ফোর্স সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন।”

গভীর রাতে চবির ৫ হলে তল্লাশি চালিয়ে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার চিরকুট লিখে অধ্যক্ষের কক্ষে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা ভ্যাট আদায়ে হয়রানি করলে আমাকে জানাবেন, ব্যবস্থা নেবো: অর্থমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকযুদ্ধে পুলিশসহ নিহত ৬ মিয়ানমারের সেনাপ্রধানসহ ৪ কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা মিয়ানমারকে হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করতে বলুন: জাতিসংঘ আদালতে গাম্বিয়া ডাকসু ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ‘খালেদার মুক্তির নামে নতুন করে নৈরাজ্য সৃষ্টির পায়তারা হচ্ছে’ এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট নোয়াখালীতে পৃথক দুর্ঘটনায় ছাত্রদল নেতাসহ নিহত ৩ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখতে করণীয় মানবাধিকার লঙ্ঘনের সব ঘটনার বিচার নিশ্চিত করা হবে: শেখ হাসিনা অপরাধ স্বীকার করতে সু চির প্রতি ৭ নোবেল বিজয়ীর আহ্বান বিপিএল-পিএসএলে ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করলেন জামশেদ বিপিএলে রংপুর রেঞ্জার্সের অধিনায়ক মোহাম্মদ নবি কোনো কিছু বিশ্বাস করার আগে যাচাই করে নিন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে ব্যবহারের নির্দেশ হাইকোর্টের ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা মাটির নিচে পাওয়া গেল ১৭০০ বছর আগের মুরগির ডিম সুপ্রিম কোর্টের এফিডেভিট শাখার অনিয়ম রুখতে দুই কর্মকর্তাকে দায়িত্ব অমিত শাহর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার দাবি জানিয়েছে মার্কিন কমিশন গাজীপুরে পুলিশ পরিচয়ে ৫ সোনার দোকান লুট ভ্যাট নিবন্ধন না করলে আইনি ব্যবস্থা: এনবিআর চেয়ারম্যান ক্ষমতায় টিকে থাকতে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে সরকার: মির্জা ফখরুল জিডির হয়রানি বন্ধে পুলিশের নতুন উদ্যোগ সুচির বিচার দাবিতে কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের বিক্ষোভ আশুলিয়ায় পোশাক কারখানায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে শ্রমিক নিহত টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত বিআরটিসির ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ময়মনসিংহে বাস চলাচল বন্ধ ৩৮ আরোহী নিয়ে চিলির সামরিক বিমান ‘নিখোঁজ’