artk
রোববার, সেপ্টেম্বার ২২, ২০১৯ ৯:৫২   |  ৭,আশ্বিন ১৪২৬
সোমবার, জুন ২৪, ২০১৯ ৯:৫৫

শিক্ষাখাত: বাজেট ২০১৯-২০

মতিউর রহমান খান
media
বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার উন্নয়নে বিদেশ থেকে শিক্ষক ভাড়া করে এনে উচ্চ শিক্ষাশিক্ষার্থীদের মানোন্নয়নের প্রস্তাব করেছেন

একটি দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা শিক্ষার উন্নয়ন। জাতীয় বাজেটে শিক্ষাক্ষেত্রে বিনিয়োগের পরিমান কি আদৌ যুক্তিসঙ্গত? স্বাধীনতার পর থেকে আজ পর্যন্ত প্রত্যেক বাজেটে শিক্ষার ক্ষেত্রে বরাদ্দের পরিমাণ কখনো প্রয়োজন অনুযায়ী যথোপযুক্ত করা হয় নাই। সরকারের পক্ষ থেকে যতই বলা হউক আমরা শিক্ষাবান্ধব সরকার তা কখনোই সরকার প্রমাণ করতে পারে নাই।

আমাদের জাতীয় বাজেটের কেবলমাত্র আড়াই শতাংশের কাছাকাছি নির্ধারিত হয় শিক্ষাক্ষেত্রে। আবার শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রাথমিক শিক্ষা হলো সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ, অথচ বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষার অবস্থা সবচাইতে অবহেলিত।

প্রাথমিক শিক্ষাক্ষেত্রে যে সকল শিক্ষক নিয়োজিত আছেন তাদের শিক্ষাপ্রদানের মান সম্পর্কে কোন বৈজ্ঞানিক মানদন্ড আছে কি? (নাই) দীর্ঘদিন থেকে যে সকল প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষাদান প্রক্রিয়ায় জড়িত আছেন তাদের অনেকের ব্যক্তিগত যোগ্যতা/শিক্ষার মান শিক্ষাপ্রদানের জন্য মানসম্পন্ন নয় বলেই লক্ষ লক্ষ শিশু প্রাথমিক শিক্ষা শেষ না হতেই শিক্ষাবঞ্চিত হয়ে পড়ে।

দেশের সকল শিশুকে শিক্ষাসুবিধা প্রদানের জন্য যে ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরি শিক্ষাপ্রদানকারীদের মান নিশ্চিতকরণ সে বিষয়ে সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি কখনোই পরিষ্কার নয়। সরকারের দায়িত্বশীল দপ্তর কখনো প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করার বিষয়ে তেমন কোন ভূমিকা আজ পর্যন্ত রাখতে ব্যর্থ হয়েছেন।

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার উন্নয়নে বিদেশ থেকে শিক্ষক ভাড়া করে এনে উচ্চ শিক্ষাশিক্ষার্থীদের মানোন্নয়নের প্রস্তাব করেছেন, প্রশ্ন হলো সেক্ষেত্রে কারা বা কোন শ্রেণির শিক্ষার্থীরা সেই সুবিধা ভোগ করবে?

বাংলাদেশে কেবলমাত্র উচ্চবিত্ত এবং উচ্চমধ্যবিত্তের পরিবারের সন্তানরাই উচ্চশিক্ষার সুযোগ ভোগ করে থাকে। অতএব সহজেই বুঝা যায় শিক্ষার উন্নয়নের সকল উদ্যোগ কেবলমাত্র একটি বিশেষ শ্রেণির মানুষরাই ভোগ করতে পারবেন, অথচ প্রয়োজন যে শিক্ষা (প্রাথমিক) ব্যবস্থাটি সারা দেশের সকল শিশুর শিক্ষার অধিকার/সুযোগ সৃষ্টির জন্য উন্নত করা প্রয়োজন সেক্ষেত্রে সরকারের অবহেলা/উদাসীনতা প্রতীয়মান।

আমাদের চলমান প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, এমপিওভুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়, অনিবন্ধিত প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (উচ্চ বিত্তের জন্য) থাকার কারণে প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে সকল শিশু একই ধরনের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, আবার শিক্ষাদানকারী শিক্ষকদের মধ্যেও শ্রেণিবিন্যাশ তৈরি হচ্ছে।

সরকার যদি সত্যিকারার্থে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতি সাধনে আন্তরিক হন তাহলে প্রাথমিক শিক্ষার প্রথম তিনটিকে অর্থাৎ সরকারি, এমপিও এবং অনিবন্ধিত প্রথমিক বিদ্যালয় সরাসরি সরকারের নিয়ন্ত্রণে এনে একই শিক্ষা কার্যক্রমের অধীনে মানসম্মত শিক্ষক নিয়োগদান নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে পরিচালনা করলেই শিক্ষার উন্নয়নের প্রাথমিক স্তর নিশ্চিত সম্ভব।

বেসরকারি (প্রাইভেট) প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অবশ্যই সরকারের পর্যবেক্ষণ (monitoring) নিশ্চিত করতে হবে যাতে সরকারি প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম যথাযথোভাবে পালিত হয়, তবেই আমাদের শিক্ষার উন্নয়ন সম্ভব।

লেখক: সিডনি, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী।

তেল শোধনাগারে হামলার প্রতিশোধ নেবে সৌদি আরব ‘মিসেস বাংলাদেশ’ হলেন মুনজারিন অবনী টেকনাফে আটকের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা দম্পতি নিহত বাগেরহাটে ধর্ষণ মামলায় আ.লীগ নেতা গ্রেপ্তার পানির নিচে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু লাইবেরিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে কুরআন তেলাওয়াতরত ২৭ শিক্ষার্থীর মৃত্যু ভারত থেকে অস্কারে যাচ্ছে ‘গাল্লি বয়’ সাকিব তাণ্ডবে আফগানদের বিরুদ্ধে জয় পেল টাইগাররা শিবপুরে মদপানে দুই শ্রমিকের মৃত্যু পাটগ্রামে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজছাত্রীর অবস্থান চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদেও জুয়ার আসর ১৩০টি দেশ ভ্রমণ করেছেন এই অন্ধ পর্যটক ৪০ কোটি টাকা নিয়ে পালানো সেই টার্কি বাবলু স্ত্রীসহ গ্রেপ্তার দুর্নীতির দায়ে সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল চলমান অভিযান জনমনে প্রত্যাশার সৃষ্টি করবে: টিআইবি স্কুল মাস্টারের ছেলে জি কে শামীমের ডন হয়ে ওঠা রাজধানীর ভূতের আড্ডায় অভিযান! পরিবহন ব্যবস্থায় শৃঙ্খলার উন্নতি ঘটেছে: প্রধানমন্ত্রী আফগানদের হারাতে ১৩৯ রানের লক্ষ্য পেল টাইগাররা রোহিঙ্গা নিয়ে ক্যামেরনের সঙ্গে মিথ্যাচার সু চির গাজীপুর সদর উপজেলা আ.লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা শিক্ষার্থীদের উপর হামলা, পদত্যাগ করলেন সহকারী প্রক্টর দলের ভাবমূর্তি উদ্ধারে আগাছা-পরগাছা দূর করা হবে: কাদের কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি শফিকুল ১০ দিনের রিমান্ডে বহুদলীয় গণতন্ত্র হুমকির মুখে: জিএম কাদের ইংল্যান্ডের সব ফরম্যাটের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে আর্চার নিয়ম রক্ষার ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ ফাহিমের জোড়া গোলে বাংলাদেশের উড়ন্ত শুরু ১০ দিনের রিমান্ডে কৃষকলীগ নেতা ফিরোজ মসজিদের নির্মাণ কাজ বন্ধ করা সেই ছাত্রলীগ নেতাকে শোকজ