artk
রোববার, নভেম্বার ১৭, ২০১৯ ৫:৫৬   |  ২,অগ্রহায়ণ ১৪২৬
মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০১৯ ১:১৯

ভূমি অফিসের চিরায়ত দৃশ্য বদলে দেয়া এক সরকারি কর্তার গল্প

গাজীপুর থেকে সাইফুল কবির
media
একটা নথি নিতে গ্রাহককে ৮ মাস পর্যন্ত ঘুরতে হয়েছে বলে জানান, উত্তর ছায়াবীথি নিবাসী কৃষক আতাউর রহমান।

ভূমি অফিস। এই নামটা শুনলে এক বিলম্বের চিত্র চোখে ভেসে ওঠে। গ্রাহকের দিনের পর দিন হাজিরা দেওয়া সত্বেও কার্যসিদ্ধি না হওয়া এক প্রতিষ্ঠান! এরকমই একটা প্রতিষ্ঠান ছিল গাজীপুরের ভূমি অফিস।

একটা নথি নিতে গ্রাহককে ৮ মাস পর্যন্ত ঘুরতে হয়েছে বলে জানান, উত্তর ছায়াবীথি নিবাসী কৃষক আতাউর রহমান।

শিমুলতলীর জমি মালিক ওয়াজেদ শেখ বলেন, “আমাদের এই অফিসের চিত্র বদলে গেছে। আগে নথি তুলতে মাসের পর মাস লাগতো। এখন মুহূর্তেই পেয়ে যাই। এর কারণ হলো শৃঙ্খলা। আমাদের সাব রেজিস্টার সাহেব আসার পর সব দলিল নির্দিষ্ট তাকে রাখার ব্যবস্থা করেছে। এখন সহজেই দলিল ও নথি খুঁজে পাওয়া যায়।”

বৃদ্ধ এনায়েত কাজী এসেছেন নথি তুলতে। সাথে আছেন ১৯ বছর বয়সী নাতি রিপন। এনায়েত সাহেব বলেন, “আমগো আওয়ামী লীগ সরকার সব সুবিধা দিয়ে দেয়। আমিতো শেখ সাহেবের আমলও দেখছি। উনি থাকতেও এই দেশে নিয়ম শৃঙ্খলা ছিল। কিন্তু কুত্তার পেটে তো ঘি সয় না। তারে মাইরা ফালাইলো। এহন তার মাইয়া ইনশাল্লাহ আবার সব নিয়মের ভিতরে নিয়া আইতাছে। শেখের বেডি শেখ সাহেবের মতোই ভালা মানুষ।”

রিপন বলে, “আগে এই অফিসের সামনে চায়ের দোকানে দালালরা দাঁড়ায় থাকতো। আমি নানার সাথে অনেকবার আসছি। তাদের টাকা দিতে হতো কাজের জন্য। এখন কাউকে একটা টাকাও দিতে হয় না।”

এই সকল কার্যক্রমের নেপথ্যে রয়েছেন একজন মানুষ। তিনি গাজীপুর সাবরেজিস্ট্রি অফিসের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম। কিভাবে বদলালেন একটি ভূমি অফিসের চিরায়ত দৃশ্য? উত্তরে হেসে বলেন, ‘‘শুধুই সদিচ্ছা। সদিচ্ছা থাকলে সবকিছু বদলে দেয়া সম্ভব বলে আমি বিশ্বাস করি। একসময় শিক্ষকতা করেছি। ছাত্রদের পড়িয়েছি সদিচ্ছার সক্ষমতার কথা। আমি সেদিন থেকে উপলব্ধি করেছি যেদিন থেকে শেখ হাসিনা বাস্তবে ডিজিটালাইজেশনের বাস্তবায়ন দেখিয়েছেন।”

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এই শব্দরা রাজনৈতিক ইশতেহার থেকে বের হয়ে বাংলার আনাচে কানাচে যেদিন ছড়িয়ে পড়েছে সেদিনই টের পেয়েছি সদিচ্ছা থাকলে সত্যিই আকাশ ছোঁয়া যায়-বলেন তিনি।



মনিরুল ইসলাম বলেন, “যখন প্রথম গাজীপুর সাবরেজিস্ট্রি অফিসে আসি তখন এখানকার দৃশ্য এরকম ছিল না। বালামগুলো এলোমেলো ছিল। একটা নথি খুঁজে পেতে ১৫ দিন ১ মাস বা তারও বেশি সময় লেগে যেত। গ্রাহকের চোখে মুখে বিরক্তি লেগেই থাকতো। বাইরে দালালদের দ্বারাও প্রতারিত হওয়ার সংবাদ এসেছে। কয়েকজনের সাথে আলাপ করি। কেউ কেউ নিরুৎসাহিত করে। অনেকে বলে দালালদের চক্র অনেক বড় এই সিস্টেম ভাঙলে ঝামেলা হতে পারে। তখন আরও জিদ চেপে যায় ভেতরে। আমাদের একজন প্রধানমন্ত্রী দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে দেশটাকে সুশৃঙ্খল বানানোর লক্ষ্যে সেইখানে একটা চক্রের ভয়ে আমি পিছিয়ে যাবো। তখনই সিদ্ধান্ত নেই এই অফিসটাকে আদর্শ অফিস বানাবো। কোনরকম বাধা এলে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে অবগত করার চেষ্টা করবো। এইতো এরপর কাজ শুরু করি। এখন তো দেখছেনই বেশ খানিকটা গুছিয়ে এনেছি। তবে ভালোর তো শেষ নেই। আপাতত চোখ কান বুঁজে কাজ করে যেতে চাই। যেন এখানে আসা প্রত্যেকটা গ্রাহক হাসিমুখে সালাম দিয়ে ঢুকতে ও বের হতে পারে এখনকার মতই। আমি যে ক্যাটালগিং সিস্টেম চালু করেছি, তাতে একটা দলিল খুঁজে পেতে ৬ মিনিট লাগে। আগে যা গ্রাহকের হাতে পৌঁছতে ৫ থেকে ১৫ দিন লাগতো।”

ভূমি অফিসে আসা লোকজন আপনার ভূয়সী প্রশংসা করছেন। এটাতে আলাদা কোন আনন্দ অনুভব করেন? উত্তরে তিনি বলেন, “একদম না। এটা আমার দায়িত্ব। সরকারের বেতনের বিনিময়ে নাগরিককে সর্বোচ্চ সেবা দেওয়া। নিজের দায়িত্ব পালনের বিপরীতে প্রশংসা আসলে প্রাপ্য না। তবে হ্যাঁ মানুষ আমাকে যে ভালোবাসছে এটার বহিঃপ্রকাশ দেখতে পাই। ব্যাপারটা ভালোলাগার মতো। ভালোবাসা তো আর কেউ কখনো উপেক্ষা করতে পারে না।”

তিনি আরও বলেন, “জমির শ্রেণিপরিবর্তন করে নামমাত্র মূল্যে দলিল রেজিস্ট্রি করার একটা প্রথা বাংলাদেশের প্রায় সব জায়গাতেই দৃশ্যমান। এটাতে সরকারের রাজস্ব কমে যায়। এটা আমি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছি। এজন্য আমাকে এখনও প্রাণনাশের হুমকির সম্মুখীন হতে হয়।”

বালাম রাখার তাক সংগ্রহের কথা বলছিল সামনের চায়ের দেকানদার। এগুলো নাকি গণঅর্থায়নে কেনা হয়েছে। বিষয়টা কি?
“হ্যা। আমি তাকের জন্য রিকুজিশন দিয়েছিলাম। কিন্তু সব প্রক্রিয়া পার করে তাক আসা বেশ সময়সাধ্য ব্যাপার। তখন কয়েকজন গ্রাহক এসে তাক দান করতে চাইলেন। নিতে অসম্মতি জানালে একজন বললেন, ‘দেখেন সরকারি অফিস তো আমাদের সেবা দেয়ার জন্যই হয়েছে। আগে এখানে আসলে দালালকে টাকা দিতে হতো, অফিসের ভেতরে টাকা দিতে হতো। এখন সেটা আর হচ্ছে না। এখন তাকটা যদি দ্রুত স্থাপন করা হয় তাহলে আমাদেরই দলিল পেতে সুবিধা হবে। মনে করেন এটা সরকারকে দেয়া আমার ট্যাক্স।’ তাদের এই যুক্তির কাছে হার মেনে আমি তাকগুলো নিতে বাধ্য হই এবং প্রায় তিনমাস সময় নিয়ে বালামগুলো সাড়িবদ্ধভাবে সাজাই।”

দালাল উচ্ছেদের পর কোন বাধার সম্মুখীন হয়েছিলেন? এরকম প্রশ্নে তিনি বলেন, “কয়েকটা খুচরো ফোন এসেছিল। পাত্তা দেইনি। কারণ হাজার হাজার মুখের হাসির শক্তির কাছে ওই কয়েকটা হুমকিকে খুব হালকা লেগেছিল।”

আপনার সহকর্মী অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে কিছু বলতে চান? তিনি বলেন, “শুধু সরকারি কর্মকর্তা না। দেশের সব স্তরের সকল জনগণকে বলতে চাই একজন মানুষ তার পরিবার পরিজন হারিয়েছেন একসাথে, নিজেও হত্যাচেষ্টার শিকার হয়েছেন। প্রাণে বেঁচে ফিরেছেন অল্পের জন্য। সেই মানুষটা সব বাদ দিয়ে আমার, আপনার, আমাদের কথা ভেবে যাচ্ছে। আমি করজোড়ে সবার কাছে অনুরোধ জানাই, আমাদের হাসি ফোঁটানোর জন্য যিনি নিরলস নিজেকে ব্যয় করছেন, আসুন না তার মুখে আমরা একটু হাসি ফোঁটানোর চেষ্টা করি। শুধুমাত্র সৎ থেকে নিজের কাজটা করে গেলেই মুজিবকন্যা হাসবেন, হাসবে বাংলাদেশ।”

সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পরই নারীকর্মীর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত: মন্ত্রী পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি: সোমবার দেশব্যাপী বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি কুমিল্লার পর এবার নারায়ণগঞ্জে বিয়েতে পেঁয়াজ উপহার সরকার জড়িত বলে পেঁয়াজ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কিছু করা যাচ্ছে না: গয়েশ্বর ইরানে পেট্টোলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ: নিহত ১ মেলায় রাজস্ব আদায় হাজার কোটি টাকা ভারতে ৩৫৪ টাকায় বিশুদ্ধ অক্সিজেন লাল না সবুজ, কোন আপেল বেশি উপকারী? গুদামে পেঁয়াজ পচে যাওয়ায় ফেলে দিচ্ছে আড়তদাররা বগুড়ায় জেল জরিমানার ভয়ে ৬ রুটে বাস চলাচল বন্ধ বিয়ের উপহারে পেঁয়াজ! ভারতকে হেসেখেলে হারাল বাংলাদেশ প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু রোববার মিসর থেকে পেঁয়াজের প্রথম চালান পৌঁছাবে মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গায় পেঁয়াজের আড়তে অবরুদ্ধ ম্যাজিস্ট্রেট বিএনপির মূল কাজ এই সরকারকে সরানো : ফখরুল স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল, সম্পাদক আফজাল পেঁয়াজ বিমানে উঠে গেছে, চিন্তার কারণ নেই: প্রধানমন্ত্রী মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি যুবককে কুপিয়ে হত্যা ৪ খাতের সিইওদের পুরস্কৃত করবে কালারস রোহিঙ্গা ইস্যুতে আইসিসির তদন্ত প্রত্যাখ্যান মিয়ানমারের ফরিদপুর মেডিক্যালের নিখোঁজ শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ ইনিংস ছেড়ে দিল ভারত, বাংলাদেশের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ নতুন নেতা বাছতে ভোট দিচ্ছে শ্রীলংকানরা ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ শনিবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় সম্মেলন চারদিনের সফরে শনিবার আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী টাঙ্গাইলে নারীসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক দুর্ঘটনায় নাশকতা আছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে: রেলমন্ত্রী ফেলে যাওয়া ২০ লাখ টাকা ফেরত দিলেন রিকশাচালক লাল মিয়া