artk

মো. রুবেল ইসলাম তাহমিদ, (মুন্সিগঞ্জ) সংবাদদাতা

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৯ ৯:১১

মাটি খননে বেরিয়ে আসছে রাজা বল্লাল সেনের দুর্গ

media
বল্লাল সেনের নামেই এই এলাকা এখনো বল্লাল বাড়ি নামেই পরিচিত। মাটির কয়েক ফুট  খনন করা হলে প্রাচীন ইট, ইটের টুকরো, মৃৎপাতের টুকরো, চারকল পাওয়া যায়। কিছুটা গভীরে খনন করলে দেয়ালের অংশ বেরিয়ে আসে। 

বঙ্গদেশে ১১৬০-১১৭৯ খিস্টাব্দ পর্যন্ত রাজত্বকারী সেন বংশের দ্বিতীয় রাজা বল্লাল সেনের রাজধানী ও প্রাসাদ ছিল তৎকালীন বিক্রমপুরের (বর্তমান মুন্সীগঞ্জ) রামপালে। তবে কালের বিবর্তনে এটি  ইতিহাসের অংশ হলেও রাজা বল্লাল সেনের প্রাসাদ বা দুর্গ হারিয়ে গিয়েছিল বহুকাল আগেই। এবার মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের বল্লালবাড়ি এলাকায় প্রত্নতাত্ত্বিক খননে বেরিয়ে এসেছে হাজার বছরের পুরনো ঐতিহাসিক রাজা বল্লাল সেনের দুর্গের দেয়ালসহ ইটের ও মৃৎপাতের টুকরা। 

খনন কাজের নেতৃত্বে থাকা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. সুফি মুস্তাফিজুর রহমান জানান, বল্লাল সেনের নামেই এই এলাকা এখনো বল্লাল বাড়ি নামেই পরিচিত। মাটির কয়েক ফুট  খনন করা হলে প্রাচীন ইট, ইটের টুকরো, মৃৎপাতের টুকরো, চারকল পাওয়া যায়। কিছুটা গভীরে খনন করলে দেয়ালের অংশ বেরিয়ে আসে। 

তিনি জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে অনুসন্ধান করা হচ্ছে। 

সোমবার থেকে অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে পরীক্ষামূলকভাবে এই খনন কাজ শুরু করা হয়। মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনেও খনন কাজে বেরিয়ে আসে আরো বেশ কিছু প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন। 

বুধবার সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, এলাকাটির স্থানীয় নুরুল ইসলাম শেখের কাঠবাগানে চলছে খনন কাজ। খনন কাজে অংশ নিয়েছেন  ড. সুফি মুস্তাফিজুর রহমানসহ চীনের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. চাই হুয়ান। এছাড়াও ৪-৫ জন বিশেজ্ঞের নির্দেশনায় কাজ করছে সত্তুরের অধিক শ্রমিক। ইতিমধ্যে স্থানটির তিন মিটার দৈর্ঘ্য-প্রস্থ ও তিন মিটারের বেশি গভীর গর্ত খনন করা হয়েছে। 

সুফি মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, “এ স্থানটির চারপাশে এখনো পরিখা দৃশ্যমান রয়েছে, যার প্রস্থ ৬০ মিটার। খনন কাজে ইতিমধ্যেই অনেক প্রত্ননিদর্শন পাওয়া গেছে। আরো খনন করলে আরো বেশি নিদর্শন পাওয়া যাবে। এই স্থানটির মাটির নিচেই দুর্গ ও প্রাসাদটি আছে। বেশি খনন করা গেলে এর চরিত্র সম্পর্কে বোঝা যাবে। আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে খনন চলছে, পরবর্তীতে বড় ধরনের খনন করার  সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।”

ইদলিবে সরকার বিরোধী হামলায় সিরিয়ার ৪০ সেনা নিহত খালি পেটে যেসব খাবার খাওয়া ঠিক নয় হোয়াটসঅ্যাপে যুক্ত হল ডার্ক মোড পাবনায় আওয়ামী নেতার বিরুদ্ধে বাবার জিডি ৬৪ জেলায় ৪৯ হাজার নদী দখলদার: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্র ঢাবির বিশেষ সমাবর্তন ৫ সেপ্টেম্বর আমরা দেশকে জঙ্গিবাদের হাত থেকে মুক্ত করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী চীনাদের সাপ খাওয়ার অভ্যাস থেকেই ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস! পলিন কাউসারের ‘আমি তো পাইনি মেঘের দেখা’ আইসিজের রায় বিশ্বের মানবাধিকারকর্মীদের জন্য মাইলফলক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী হারপিক খেয়ে খুলনায় এমপি নারায়ণ চন্দ্র চন্দের পুত্রের আত্মহত্যা মার্কেন্টাইল ব্যাংকের চেয়ারম্যানসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলার অনুমোদন নগরবাসী নিয়ে বিএনপির কোনো পরিকল্পনা নেই: তাপস জিরো টলারেন্স জনপ্রিয় হওয়ার একটি স্লোগান: এনবিআর চেয়ারম্যান আইপিও আসার আগে প্রতিবেদন করুন: সাংবাদিকদের ডিএসই পরিচালক অস্ট্রেলিয়ায় এয়ার ট্যাঙ্ক বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ৩ বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেলেন ১০ সাহিত্যিক ‘ছাত্রলীগকে দিয়ে দুঃশাসনের বিরুদ্ধে গণজাগরণ দাবিয়ে রাখা যাবে না’ তাবিথের বিরুদ্ধে সম্পদ গোপনের অভিযোগ ইসিতে নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে ৪ বাংলাদেশি নিহত রাখাইনে সহিংসতা বন্ধে জরুরি ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ আইসিজের সৌদি আরব থেকে ফিরলেন আরও ২১৭ বাংলাদেশি রোহিঙ্গা ইস্যু আন্তর্জাতিকীকরণে প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে: জাতিসংঘ রাষ্ট্রদূত ভিপি নূরকে কেন পাসপোর্ট দেয়া হবে না: হাইকোর্ট ভোটের নিরপেক্ষ পরিবেশ নেই: ফখরুল রক্তকোষের সাহায্যে সারিয়ে তোলা যাবে ক্যান্সার চবিতে ছাত্রলীগের অবরোধ এক ধাপ উন্নতিতেও দুর্নীতি কমেনি: টিআইবি ফেনীর পৌর মেয়রকে দুদকে তলব