artk
বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৯ ৯:২২   |  ৯,ফাল্গুন ১৪২৫

মো. আমিনুল ইসলাম

রোববার, জানুয়ারি ২০, ২০১৯ ১০:৩৮

ঝালকাঠিতে মেগা প্রকল্পে ধীরগতি, ধুলায় দুর্ভোগ

media

পানি ছিটানোর বিশেষ গাড়ি (স্পেশাল ওয়াটার বাউজার) দিয়ে সড়কগুলোতে সকাল-দুপুর দুইবেলা পানি ছিটানো হচ্ছে। তার পরেও ধুলা নিবারণ করা যাচ্ছে না।

ঝালকাঠিতে সড়ক ও জনপদ বিভাগের আঞ্চলিক মহাসড়কের দুটি মেগা প্রকল্প ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ধীরগতিতে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে। সড়কের বিভিন্ন অংশে পিচ খুঁড়ে দীর্ঘদিন বালু দিয়ে ফেলে রাখায় ধুলার অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে থাকে সড়ক। ফলে সারাদিন সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয় বলে এ পথে চলাচলকারী যানবাহনের যাত্রীসাধারণ ও পথচারীদের অভিযোগ।

সড়ক ও জনপদ বিভাগের সূত্রে জানা যায়, জেলায় আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়নে সড়ক বিভাগ গত বছরের মার্চে প্রায় ৭০ কিলোমিটার সড়কের দুটি মেগা প্রকল্প শুরু হয়। প্রকল্প দুটি হলো-ঝালকাঠির বরিশাল সীমান্তবর্তী কালিজিরা থেকে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া পর্যন্ত ৩৮ কি.মি. সড়ক নির্মাণের কাজ ও রাজাপুর-কাঁঠালিয়া ও আমুয়া পর্যন্ত মহাসড়কের ৩১ কি. মি. সড়ক নির্মাণের কাজ। এ প্রকল্পে সড়কের চওড়া হবে ১৮ ফুট থেকে ২৪ ফুট। প্রকল্প দুটি বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে আড়াইশ কোটি টাকা। প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান খান বিল্ডার্স, ওরিয়েন ট্রেডার্স ও অহেদ কনস্ট্রাকশন ১২৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ঝালকাঠি-ভান্ডারিয়া অংশের কাজ বাস্তবায়ন করছে।

১২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজাপুর-আমুয়া অংশের প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করছে রানা বিল্ডার্সের পক্ষে ইসলাম ব্রাদার্স। প্রকল্প দুটির মেয়াদ শুরুতে ১ বছর থাকলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফলতির কারণে ৩০ ভাগ কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় সড়ক বিভাগ এর মেয়াদ এ বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত করে।

প্রকল্পের ধুলা ব্যবস্থাপনার কথা মাথায় রাখেনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো। উন্নয়নস্থল থেকে ধুলা কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সে ব্যাপারে মাথাব্যথা নেই তাদের। ফলে এই প্রকল্পের সড়কের বিভন্ন অংশে ধুলায় নিমাজ্জিত থাকে সারাদিন। এ পথে চলাচল করা যাত্রী সাধারণের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ঠিকাদাররা দীর্ঘদিন ফেলে রেখে কাজ করায় সড়কে এ ধুলার কুন্ডলীর সৃস্টি হচ্ছে। প্রকল্পের বিভিন্ন অংশে কাজের মানও নিম্নমানের হচ্ছে। বিশেষ করে কালিজিরা থেকে ঝালকাঠি অংশের কাজ নির্বাচনের আগে তাড়াহুড়ো করে করায় মান ভালো হয়নি।

একটি সূত্র জানায়, নির্বাচনে সরকারের পট পরিবর্তন হওয়ার ভয়ে বিল নিয়ে জামেলা হতে পারে তাই কয়েকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ ফেলে রাখে।



সম্প্রতি সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজাপুর-কাঁঠালিয়া আমুয়া অংশের সড়কের চলমান উন্নয়ন কাজে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পানি দিয়ে ধুলা নিয়ন্ত্রণ না করায় গাড়ি গেলেই চারিদিকে ধুলায় অন্ধকার হয়ে যায়। মঙ্গলবার দুপুরে রাজাপুর ছত্রকান্দা এলাকায় মধ্যেই ঝাঁকুনি দিয়ে চলছে গাড়ি। সড়কের পাশে দোকানপাট, গাছপালায় ধুলার আস্তর পড়ে আছে। ধুলায় মাখামাখি হয়ে চলছেন পথচারিসহ স্কুলগামি শিশুরা। সড়ক বিভাগের তত্ত্বাবধানে ৮ মাসে এ কাজের দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হয়নি।

এছাড়া ধীরগতির কাজ আর নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারে ধুলায় নাকাল যাত্রী সাধারণ। গাবখান সেতুর টোল এলাকায় ধুলায় বাস যাত্রীদের নাকাল হতে দেখা যায়।

রাজাপুর- ভাণ্ডারিয়া সড়কের পিংরি এলাকার কৃষক মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, আঞ্চলিক মহাসড়কের এই উন্নয়ন কাজের ধীরগতিতে রাজাপুরের প্রায় ৫০ কিলোমিটার সড়ক এখন ধুলার রাজ্যে পরিণত হয়েছে। ধুলার কারণে সড়কের পাশে অবস্থিত বিভিন্ন দফতর, শিক্ষা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়িতে বসবাসরত মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।

এ বিষয়ে রাজাপুর-ভাণ্ডারিয়া রুটের বাস চালক জয়নাল আবেদিন বলেন, “সড়কে ধুলায় কিছু দেখা যায় না। গাড়ির জানালা বন্ধ করেও ধুলা থেকে রেহাই পায় না যাত্রীরা। এভাবে আর কতদিন চলবে বুঝতে পারছি না।”

রাজাপর উপজেলায় একটি সরকারি প্রকল্পে চাকরি করেন মমতাজ বেগম নামে এক নারী। তিনি বলেন, “চাকরির সুবাদে রোজ ঝালকাঠি থেকে রাজাপুর যেতে হয়। কিন্তু সড়কে ধুলার কারণে চলাচল করা মুশকিল। এ থেকে কবে পরিত্রাণ পাব জানি না।”

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান খান বিল্ডার্সের প্রোপাইটর মাহফুজ খান ও ইসলাম ব্রাদার্সের মনিরুল ইসলামের সাথে কথা বলতে মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়ে চেষ্টা করলেও তাদের ব্যবহৃত নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

তবে রাজাপুর সড়কে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধায়ক শাজাহান মিয়া বলেন, পানি ছিটানোর বিশেষ গাড়ি (স্পেশাল ওয়াটার বাউজার) দিয়ে সড়কগুলোতে সকাল-দুপুর দুইবেলা পানি ছিটানো হচ্ছে। তার পরেও ধুলা নিবারণ করা যাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে ঝালকাঠি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাবিল হোসাইন জানান, উন্নয়ন কাজের ফলে সৃষ্ট ধুলা নিয়ন্ত্রণে কোনো প্রযুক্তি নেই তবে আমরা নিয়মিত ঠিকাদারদের পানি ছিটানোর কাজটি করার জন্য তাগিদ দিয়ে থাকি। সংশিষ্টরা পানি ছিটানোর কাজটি ঠিকমত করছেন না বলে অভিযোগ রয়েছে সত্যি আমি এ ব্যাপারে বিশেষ খেয়াল রাখছি। নির্বাচনের কারণে কাজ একটু ধীরগতিতে চললেও আমরা এখন দ্রুত শেষ করার জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বলা হয়েছে। তবে কাজের মেয়াদ এ বছরের শেষ পর্যন্ত আছে।

বৃহস্পতিবার অমর একুশে বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ চকবাজারে ভয়াবহ আগুন, মৃতের সংখ্যা ৬৯ যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিলেন পুতিন একুশ আমাদের মাথা নত না করা শিখিয়েছ: প্রধানমন্ত্রী শামীমা বেগমকে নিয়ে এত হইচই কেন? সৌদি-ভারত সম্পর্ক জিনগত: সৌদি যুবরাজ ১২ দেশে ১২ বার বিয়ে! মালয়েশিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে বাংলাদেশিসহ ৬ জনের মৃত্যু খালেদা জিয়ার মুক্তি কবে? তোপের মুখে বিএনপি নেতারা ‘শত্রুর চোখে দেখলে সেই চোখ উপড়ে ফেলা হবে’ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার খালেদা জিয়াকে জেলে রাখার বিচার হবে: ফখরুল উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন ২৪ প্রার্থী শহর পরিচ্ছন্ন রাখতে নাগরিকদেরই সচেতন হতে হবে: সাঈদ খোকন ইভটিজিংয়ের সাজা সূর্যের দিকে তাকিয়ে থাকা! মায়ের প্রেমিককে ছুরি মেরে খুন সড়কে গ্যাস লাইন ফেটে দুই বাসে আগুন সন্ত্রাবাদ সবার জন্যই হুমকি: বিন সালমান ঊনিশেই কোটিপতি! একুশে পদক প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে যুগান্তরের সাংবাদিক গ্রেপ্তার ‘৯৮ শতাংশ হাসপাতাল অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকিতে’ চতুর্থ ধাপে ১২২ উপজেলায় ভোট ৩১ মার্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করতে অনুমতির বিষয়ে ভাবছে সরকার : শিক্ষামন্ত্রী ‘খালেদা জিয়া ঘুমাচ্ছেন, তাই হাজির করা যায়নি’ জামায়াতকে আশ্রয় দেয়ার জন্য বিএনপিরও ক্ষমা চাওয়া উচিত: তথ্যমন্ত্রী একাত্তরের ভূমিকার জন্য জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া উচিত: নজরুল ইসলাম খান আরো ৫ শতাধিক ইয়াবা কারবারি শনাক্ত দীর্ঘ বিরতির পর ফের মঞ্চে ‘হাছনজানের রাজা’