artk
রোববার, জুলাই ১৬, ২০১৭ ১১:০২
প্রধানমন্ত্রীকে খোলাচিঠি

একটা ব্লকবাঁধ দিয়ে হাতিয়াকে রক্ষা করুন

media

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আসসালামু আলাইকুম। শুরুতেই দ্বীপ জনপদ হাতিয়ার সংগ্রামী মানুষের পক্ষ থেকে রইলো লালগোলাপ শুভেচ্ছা।

হাজার বছরের ঐতিহ্যে লালিত আর বাংলাদেশের প্রাচীন পরগনা খ্যাত দ্বীপ জনপদ হাতিয়া। অতি প্রাচীনকাল থেকে বাংলাদেশের যে কয়টি অঞ্চল কৃষি, মৎস্য ও দেশীয় সম্পদে সমৃদ্ধ ছিল তার মধ্যে হাতিয়া অন্যতম। একসময় এখানকার শস্য আর মৎস্যসম্পদ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল তথা পুরো চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, বরিশাল ও ঢাকা- এসব অঞ্চলে ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণে প্রচুর ভূমিকা রাখে। কিন্তু একসময়কার প্রায় ১১০০ বর্গমাইলের হাতিয়া বর্তমানে প্রমত্তা মেঘনার করাল গ্রাসে সংকুচিত হয়ে ভাঙতে ভাঙতে ৮০০ বর্গমাইলের একটি জনপদে পরিণত হয়েছে। কয়েক দশক আগেও হাতিয়ায় ১১টি ইউনিয়ন ছিল। ভাঙতে ভাঙতে এখন তা সাতটিতে এসে দাঁড়িয়েছে। পশ্চিম, উত্তর, পূর্বে রাক্ষসী মেঘনা, আর দক্ষিণে উত্তাল বঙ্গোপসাগর। আর পূর্ব, পশ্চিম, উত্তরে নদীভাঙনের করুণ চিৎকারে ভারী হচ্ছে হাতিয়া দ্বীপের আকাশ বাতাস।

প্রকৃতির নিরন্তর ভাঙাগড়ার এক বাস্তবতার মধ্যে দিয়ে হাজার বছরের প্রাচীন এই জনপদের মানুষ প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করে যাচ্ছে নিজের পিতৃপুরুষের বসতভিটা আর জন্মভূমির কোলে বসবাস করার জন্য। হয়তো এই প্রচেষ্টায় কেউ টিকে থাকছে আবার কেউবা সমুদ্রের ভাঙনের খেলায় পরাজিত হয়ে চলে যাচ্ছে নতুন কোনো আবাসনের খোঁজে। সেই সঙ্গে হয়তো তাদের মন থেকেও চলে যাচ্ছে নিজের প্রাণের ভূমি হাতিয়া দ্বীপের প্রতি মায়ামমতা।

আজ এই বাস্তবতার মুখে দাঁড়িয়ে এই দ্বীপ জনপদের একজন গর্বিত অধিবাসী হিসেবে নিজের কাছে প্রতিনিয়ত প্রশ্ন জাগে যে নিয়তির কি খেলা, যেখানে বাংলাদেশের যেকোনো অঞ্চলের মানুষ ইচ্ছে করলে যে কোনো প্রয়োজনে যেকোনো সময় তার নাড়ির টানে ফিরতে পারে তার মাতৃভূমিতে, কিন্তু সাগরবেষ্টিত এই হাতিয়া দ্বীপের মানুষ ইচ্ছে করলে যে কোনো সময় আসা-যাওয়া করতে পারে না। তার একমাত্র কারণ যোগাযোগ ব্যবস্থায় চরম অন্ধকারাচ্ছন্ন যুগে বাস করছে এই অঞ্চলের মানুষ। নির্দিষ্ট সময়ে কিছু কাঠের ট্রলার আর নোয়াখালী চেয়ারম্যান ঘাট থেকে পাকিস্তান আমলের দুই একটি সি-ট্রাক সার্ভিস দিয়ে আসা-যাওয়া করছে হতভাগা মানুষগুলো।

বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে সমুদ্র যখন উত্তাল থাকে সাগরের গর্জন শুনে ভয়ঙ্কর এক পরিবেশের মধ্য দিয়ে বিধাতার নিয়তিকে মেনে নিয়ে এক বুক সাহস নিয়ে এই সাগর পাড়ি দেয় এই অঞ্চলের সংগ্রামী মানুষগুলো। যাদের মনের ভেতর থাকে এক কল্পনার উত্তাল সাগর, প্রতিনিয়ত সেই সাগর পাড়ি দেয় প্রচণ্ড সাহসী এই মানুষগুলো।

এই গেল নিয়তির কথা। আজকের এই বিশ্বায়নের যুগে সারা বাংলাদেশ যখন ডিজিটাল উন্নয়নে ভাসছে সেই সঙ্গে পিছিয়ে নেই এই হাতিয়া দ্বীপের মানুষ। শিক্ষাদীক্ষায় জ্ঞান বিজ্ঞানে সর্বক্ষেত্রে বিচরণ রয়েছে হাতিয়া দ্বীপের মানুষের।

ডা. আব্দুল মন্নান আপন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি হয়তো জানেন, বাংলাদেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের দ্বীপ হাতিয়ার মানুষগুলো তাদের রাজনৈতিক ইতিহাসে খুব বেশি নেতা দেখার সুযোগ হয়নি। বিভিন্ন সময়ে নির্বাচন অথবা রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দুই একজন রাজনৈতিক নেতার পদ ধুলি পড়েছিল হাতিয়া দ্বীপে। তাও হয়তো দেখার সুযোগ হয়নি বর্তমান প্রজন্মের। সুদীর্ঘকাল থেকে গড়ে ওঠা হাতিয়াবাসীর প্রাণের দাবি নদী ভাঙন রোধ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি হয়তো জানেন, হাতিয়া একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ এলাকা। এই অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি, এই অঞ্চলটি ব্লক বাঁধের মাধ্যমে যেন মেঘনার স্রোতধারার ধকল আর রাক্ষুসী মেঘনার কবল থেকে রেহাই পায়। আর তার জন্য একটি বিশাল সুযোগ রয়েছে এই এলাকার। সেটি হল ব্লক বাধঁ। যেটির মাধ্যমে একদিকে সুযোগ হবে বিশাল ভূমিকে সাগরের বুক থেকে জাগিয়ে তোলা আর অন্যদিকে ভয়াল মেঘনার হাত থেকে এই অঞ্চলকে রক্ষা করা।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি হয়তো জানেন সভ্যতার প্রারম্ভ থেকে মানুষ তার নিজের বসবাসের জায়গা করার জন্য পাহাড় বন জঙ্গল কেটে উদ্ধার করেছে ভূমি। আর তাতে প্রচুর পরিমাণে অপচয় হচ্ছে আমাদের সবুজ বৃক্ষ আর প্রাকৃতিক ভারসাম্য। কিন্তু অতি সুখের বিষয় হলো, সাগরে তলিয়ে যাওয়া ভূমিগুলোকে উদ্ধার করে বাংলাদেশের আয়তন ও সম্ভাবনাকে জাগ্রত করার দৃঢ় মানসিকতা নিয়ে এখানে বসবাস করছে প্রায় সাত লাখ মানুষ। যাদের অধিকাংশ জড়িত কৃষিকাজ, মৎস্য চাষ, আর নানা ধরনের উৎপাদনমুখী কাজে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, অনেক সরকার এলো আর গেল। কিন্তু এই নদী ভাঙনরোধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। হতাশ হয়েছে আশায় বুকবাঁধা মানুষগুলো। নিজেদের হতাশার কথা যে কাউকে জানাবে হয়তো এমন কাউকে খুঁজে পায়নি। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস ভেবে বসে আছে নতুন কোনো আশায়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সম্প্রতি আপনি নাকি জলবায়ু ফান্ড থেকে প্রাপ্ত বেশ কিছু অর্থ দিয়ে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থেকে সন্দ্বীপের একটি অংশ উরিরচর পর্যন্ত একটি ক্রসড্যাম নির্মাণের জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু অতি দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, যেখানে নোয়াখালী থেকে উরিরচরের মতো একটি ছোট ইউনিয়নকে সংযুক্ত করতে এতো বড় একটি প্রকল্প নেয়া যায় সেখানে হাতিয়ার মতো এমন একটি জনবহুল উৎপাদনমুখী অঞ্চলকে কেন নদী ভাঙনরোধে বিবেচনা আনা হচ্ছে না?

নানানরকম অজুহাত দিয়ে প্রত্যেকটি সরকার হাতিয়ার দ্বীপের মানুষের স্বপ্নটিকে দূরে সরিয়ে রেখেছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ছোটবেলায় পড়েছিলাম, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা বিন্দুবিন্দু জল, গড়ে তোলে মহাদেশ সাগর অতল’। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালিও একদিন মানবসভ্যতার বিকাশের জন্য এই বিশাল জলরাশির মাঝে জাগিয়ে তুলেছে বিশাল বিশাল দ্বীপ রাষ্ট্র। হয়তো প্রাকৃতিকভাবে সাগরের বিন্দুবিন্দু বালি দিয়ে সভ্যতার অনেক বয়স কাটিয়ে হাতিয়া দ্বীপের মানুষের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্নকে গড়তে হবে, যদি না এই হাতিয়া দ্বীপের মানুষ তাদের প্রাণের দাবিটি বাস্তবে দেখতে না পায়। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে হাতিয়া দ্বীপের হতভাগা জনগণের পক্ষ থেকে আকুল আবেদন, নিজ জন্মভূমির অস্তিত্ব রক্ষার আন্দোলনে বেগবান মানুষগুলোকে প্রকৃতির সঙ্গে নিরন্তর যুদ্ধ করে বাঁচার অবলম্বন একটি ব্লকবাঁধ যেন নির্মাণ করা হয়। হয়তো এই অবদানটুকুর জন্য হাতিয়া দ্বীপের মানুষ আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবে। 

হাতিয়াবাসীর পক্ষে

ডা. আব্দুল মন্নান আপন

পূর্ব মাইজচরা, ৮নং সোনাদিয়া

হাতিয়া, নোয়াখালী।

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা