artk
রোববার, মে ১৭, ২০১৫ ৯:৪৪

‘প্রকল্প বাস্তবায়নে অতিরিক্ত সময় দেয়া হবে না’

media

ঢাকা: নতুন অর্থবছর থেকে কোনো প্রকল্প বাস্তবায়নে যতদিন সময় লাগবে, ঠিক ততদিনই দেওয়া হবে। কোনোভাবেই অতিরিক্ত সময় দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এছাড়া প্রকল্প বাস্তবায়নে দীর্ঘসূত্রতা রোধে সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি ।

রোববার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যম কর্মীদের এসব কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

তিনি বলেন, “বছর শেষে প্রকল্পের অর্থ খরচের হিড়িক দেখা যায়। এতে প্রকল্পের গুণগত বাস্তবায়ন নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়। এ পরিস্থিতি রোধে প্রতি প্রান্তিকে বরাদ্দের ২৫ শতাংশ অর্থ ব্যয়ের বাধ্যবাধকতা দেওয়া হবে। দেখা যায়, কোনো প্রকল্প বাস্তবায়ন যে সময়ে হতে পারতো, তার চেয়ে অনেক বেশি সময় লাগে। এখন থেকে কোনো প্রকল্প বাস্তবায়নে যতদিন সময় লাগবে, ঠিক ততদিনই দেওয়া হবে। কোনোভাবেই অতিরিক্ত সময় দেওয়া হবে না। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর মূল্যায়ন প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। এ মূল্যায়নে যে সব প্রকল্প পরিচালক ভালো করবেন, তাদের পরবর্তীকালে বড় প্রকল্পের দায়িত্ব দেওয়া হবে।”

প্রকল্প সংশোধনের বিষয়ে তিনি বলেন, “কোনো প্রকল্প দুইবারের বেশি সংশোধন করা হবে না। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দেখা যায়, একটি প্রকল্পের ৯৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়ে গেছে। প্রকল্পটি আরো বেশিদিন জিইয়ে রাখতে প্রকল্প পরিচালক তার সঙ্গে আরো অনেক কিছু জুড়ে দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া প্রলম্বিত করেন। এ ধরনের প্রকল্পকে সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে নতুন প্রকল্প নেওয়া হবে। একনেকে যেভাবে অনুমোদন হবে, ঠিক সেভাবেই প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে।

বড় প্রকল্পের বিষয়ে তিনি বলেন, “যে সব প্রকল্প দেশব্যাপী বাস্তবায়ন হয়, যেমন প্রাথমিক শিক্ষার অনেক প্রকল্প এমন আছে। এসব প্রকল্পে জাতীয়ভাবে একজন প্রকল্প পরিচালক থাকবেন। প্রকল্পের কাজে গতি আনতে প্রতি বিভাগে একজন করে প্রকল্প সমন্বয়ক নিয়োগ করা হবে। পাশাপাশি এ ধরনের বড় প্রকল্পের দরপত্র কোনো একক প্রতিষ্ঠানকে না দিয়ে একাধিক প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হবে। যাতে প্রকল্পটি গুণগতভাবে সঠিক সময়ে শেষ হয়।”

মন্ত্রী আরও বলেন, “প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সময় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেমন বর্ষাকালে নদী ভাঙন রোধে কোনো প্রকল্প নেওয়া হবে না। কারণ বর্ষার সময় এ ধরনের প্রকল্প বাস্তবায়নে গুণগত মান নিশ্চিত করা যায় না। এ ধরনের প্রকল্প আগস্টে অনুমোদন দেওয়া হবে এবং অক্টোবরে দরপত্র সম্পন্ন হবে। শুষ্ক মৌসুমে এটি বাস্তবায়ন করা হবে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/জেএস/কেজেএইচ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা