artk
শনিবার, মে ১৬, ২০১৫ ৭:১৮

ঈদের আগে কঠোর আন্দোলনে যাচ্ছে না বিএনপি

media

ঢাকা: ঈদুল ফিতরের আগে কোনো ধরনের কঠোর কর্মসূচিতে যাচ্ছে না বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। এ সময়ের মধ্যে দলের সাংগঠনিক দিক শক্ত করার জন্য কাজ করবেন দলের সিনিয়র নেতারা। তবে নেতাকর্মীদের মাঠে রাখতে প্যাকেজ কর্মসূচি দেওয়া হবে। রাজধানীর বাইরেও মাঠে থাকবেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

বিএনপির বিভিন্ন সূত্রে জানান গেছে, ঈদের আগে কঠোর আন্দোলনে না গিয়ে দল পুনর্গঠন, নেতাকর্মীদের জামিন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মনোভাব বিশ্লেষণ ও তাদের সাথে সম্পর্কোন্নয়নে সময় ব্যয় করা হবে। তবে এসবের পাশাপাশি নেতাকর্মীদের চাঙ্গা রাখতে প্যাকেজ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে। এর মধ্যে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সমাবেশ করার পরিকল্পনা রয়েছে। সেই সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপারসন উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া রোজার মাস জুড়ে ইফতার পার্টির মাধ্যমে সাংগঠনিক কার্যক্রম এগিয়ে নিতে কাজ করবে দলটি।

দলের নেতাকর্মীরা বলছেন, এক এগারোর ধকল প্রায় কাটিয়ে উঠেছিলো বিএনপি। কিন্তু সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত না নেওয়া, দল পুনর্গঠন না করা, দলের সিনিয়র নেতাদের সুবিধাবাদী অবস্থান, নেতা-কর্মীদের আত্মগোপন ও নিষ্ক্রিয়তায় দলের সাংগঠনিক অবস্থা আরো নড়বড়ে হয়ে ওঠে। এরপর গত বছর পাঁচ জানুয়ারি নির্বাচন ঠেকানোর আন্দোলন সফল না হওয়ায় নেতাকর্মীদের মনোবলে আরো চিড় ধরে। সাথে যোগ হয় মামলা-গ্রেফতার, গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপন। এসবের মধ্যেই এ বছরের ছয় জানুয়ারি থেকে লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। দুর্বল সাংগঠনিক কাঠামো, সরকারের দমন-পীড়ন, নেতা-কর্মীদের গুম-খুন, মামলা ও দীর্ঘ সময় ধরে কারাবাসের বাইরে আত্মগোপনে থাকা নেতাকর্মীরাও পিছু হটে। যার কারণে অবরোধ কর্মসূচি ‘ঘোষণা নির্ভর’ হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় সিটি নির্বাচনে যাই হোক না কেন তাতে অংশ নিয়ে আদতে বিএনপিরই লাভ হয়েছে। এখন কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছুতে হলে আন্দোলন নয় আগে দল গোছাতে হবে। এটি হাই কমান্ডও বুঝতে পেরেছেন। দল গোছানোর ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি। কাজ শুরু হয়ে গেছে। এখন নেতাকর্মীদের জামিন করানোর ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। সিনিয়র নেতারা জেল থেকে বের না হলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়া সম্ভব হবে না এমনটাই মত তাদের।

দলের একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে মন্তব্য করেন, দল গোছানো খুবই জরুরি। তবে এখন নেতাকর্মীরা এমনিতেই হতাশ। এ অবস্থায় ন্যূনতম মুভমেন্ট না থাকলে তাদের মধ্যে হতাশা আরো বাড়বে। এটা মাথায় রেখে দলের সিনিয়র নেতারা জেল থেকে বের হওয়া পর্যন্ত ছোট খাটো কর্মসূচি পালন করা হবে, যাতে নেতাকর্মীরা চাঙ্গা থাকে। ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে সমাবেশ হতে পারে, বিএনপি চেয়ারপারসনও এতে অংশ নিতে পারেন। তবে রোজার ঈদের আগে কোনো কঠোর কর্মসূচিতে যাবে না বিএনপি।

তারা বলেন, এসব আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে। ম্যাডাম বৈঠক ডাকলে সেখানে এসব বিষয় তুলে ধরে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জানা গেছে, আপাতত বিএনপি চেয়ারপারসন বিভিন্ন পেশাজীবীদের সাথে ধারাবাহিকভাবে মতবিনিময় করবেন।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হাল্পুান শাহ নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “বাস্তবতার নিরিখে বলতে পারি রোজার ঈদের আগে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার সম্ভাবনা কম। এছাড়া আবহাওয়ার বর্তমান অবস্থা আন্দোলনের উপযুক্ত নয়।”

দলের জাতীয় কাউন্সিলের বিষয়ে তিনি বলেন, “দলে কিছু পুনর্গঠন কাজ শুরু করা হচ্ছে। তবে দলের সিনিয়র নেতারা কাকে দিয়ে কাউন্সিল করবো। এরকম অবস্থা চলতে থাকলে কাউন্সিল করা সম্ভব হবে না।”

মাহবুবুর রহমান বলেন, “এই মুতুর্তে দল সাংগঠনিক শক্তি সংঞ্চয় করছে। দল গোছানোর মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব কিভাবে নিয়ে আসা যায় সে লক্ষে কাজ করছে। সকল কমিটিতে যারা যোগ্য ত্যাগী তরুণ জিয়ার আদর্শে অনুপ্রাণিত তাদেরকে প্রথম কাতারে নিয়ে আসতে হবে।”

তিনি বলেন, “আন্দোলন সফল হওয়ার জন্য দরকার একটি শক্তিশালী সংগঠন। সেজন্য আন্দোলনের আগে সংগঠন গোছানোর ওপর জোর দিচ্ছে বিএনপি বলে জানান তিনি।”

নিউজবাংলাদেশ/আরআর/এজে

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা