artk
বৃহস্পতিবার, মে ১৪, ২০১৫ ৭:১৪

ছিটমহলবাসী কি পাবে ‘জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব’?

media

মাথার উপরে গণগণে উত্তাপ। পায়ে হেঁটে গিয়ে পড়লামও যেনো এক উত্তপ্ত মহলে! আমাকে ঘিরে মানুষের জটলা। ছিটমহল বিনিময় নিশ্চিত হওয়ায় তারা খুশি। কিন্তু বঞ্চনার দুঃসহ দশকগুলোর কথা স্মরণ করে তারা একের পর এক যেনো বিঁধতে চাইছেন দুই রাষ্ট্রকেই।

কুড়িগ্রামের গাওচুলকা ছিটমহলের এই মানুষগুলো তাদের জন্মের পর থেকেই যেনো এক নৈরাষ্ট্রের বাসিন্দা। তাদের খবর কারো কাছেই নেই। তাদের ভাষায়, বনের পশুরও হিসাব থাকে রাষ্ট্রের কাছে। কিন্তু তাদের হিসাব নেই কারো খাতাতেই। দেশভাগের সময় থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে এই দুঃসহ জীবন বয়ে বেড়াচ্ছেন মানুষগুলো। এখন প্রতীক্ষা তাদের, কতো দ্রুত তারা পাবেন নাগরিকত্ব।

ভারতের লোকসভায় বিল পাশ হয়েছে। সংবিধান সংশোধনীর যে সুতোয় এই মানুষগুলোর ভাগ্য আটকা ছিলো, তা আপাতত কেটে গেছে। কূটনৈতিক সূত্রের খবর, আগামী মাসের প্রথম নয়তো দ্বিতীয় সপ্তাহেই প্রথমবারের মতো ঢাকা আসবেন নরেন্দ্র মোদি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী এবার সঙ্গে আনবেন মমতা ব্যানার্জিকে, মূলত তার বিরোধিতার কারণেই ইউপিএ সরকারের আমলে ঝুলে গিয়েছিলো ছিটমহল বিনিময়।

আশা করা হচ্ছে, মোদির ঢাকা সফরেই চূড়ান্ত হবে স্থলসীমা চুক্তি। এরপর আর কী? মুজিব-ইন্দিরা চুক্তি আর হাসিনা-মনমোহন প্রটোকলের হিসাব মতে, যে দেশে ছিটমহল- তা সেই দেশের ভূখণ্ডেই থাকবে। তবে মানুষগুলো ইচ্ছে করলে দুই রাষ্ট্রের যেকোনো একটার নাগরিকত্ব বেছে নিতে পাবেন।

ছিটমহলের মানুষগুলোর মধ্যে বেশিরভাগই শেকড়ের টানে যেখানে আছেন, সেখানেই থেকে যেতে চান। কিন্তু ব্যতিক্রমও কম নেই। এদের বেশিরভাগেরই ভারতে কর্মসংস্থান। ছিটমহল বিনিময়ের পর তারা সেখানে যেতে পারবেন না। তাই তারা ভাবছেন, পাকাপাকিভাবে ভারতেই চলে যাবেন কি না। নাগরিকত্ব যেদিকেই যাক না কেন, এই দফা তাদের বড় অর্জন নিঃসন্দেহে হতে যাচ্ছে নৈরাষ্ট্রের বাসিন্দার আক্ষেপ ঘুঁচানো।

কিন্তু কী উপায়ে ঘুঁচবে? বাংলাদেশ-ভারত ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির বাংলাদেশ অংশের সভাপতি মাইনুল হক জানালেন, তাদের প্রথম দাবি এখন জন্মনিবন্ধন সনদ আর নাগরিকত্ব। অর্থাৎ তাদের দাবি অনুযায়ী রাষ্ট্রকে এখন প্রথমে জন্ম নিবন্ধন সনদ দিতে হবে এবং জন্মসূত্রে নাগরিক হিসেবে গ্রহণ করতে হবে তাদের। এরপর ভূমিসহ আনুষঙ্গিক বিষয়ের সুরাহা হবে।

মাইনুল হকের মতে, এই চুক্তির অংশ হিসেবে ভূমির প্রকৃত মালিক চিহ্নিত করে তাদেরকে বুঝিয়ে দেয়া থেকে শুরু করে আরো যেসব কাজ রয়েছে, রাষ্ট্র নাগরিকত্বের অধিকার না দিলে সেগুলো কীভাবে সম্পন্ন করবে? তবে বাংলাদেশের তরফে এখনো এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কিছু বলা হয়নি। অর্থ্যাৎ নাগরিক তারা ঠিকই হবেন। কিন্তু জন্মসূত্রে হবেন কি না- তা নিয়ে এখনো সুরাহা হয়নি।

ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির বাংলাদেশ অংশের আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিঙ্কন অবশ্য বিষয়টি নিয়ে এখনো নিশ্চিত নন। তিনি জানান, আইনগতভাবে বাংলাদেশের ভেতরে থাকা ভারতের ছিটমহলের বাসিন্দারা এতোদিন বাংলাদেশের নাগরিক ছিলেন না। ফলে জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব দেয়ার ক্ষেত্রে এই প্রশ্নটা উঠতে পারে। তবে নাগরিকত্ব তারা পাবেন এটা নিশ্চিত বলে উল্লেখ করে তিনি জানান, দীর্ঘ সময়ে রাষ্ট্র তাদেরকে বঞ্চিত করেছে। ফলে এখন এই বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে রাষ্ট্রকেও।

ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফার মতে, নূন-নেহেরু চুক্তি বাদ দিলেও মুজিব-ইন্দিরা চুক্তির পর থেকে তা কার্যকর করতে না পারা রাষ্ট্রের ব্যর্থতা। তার প্রশ্ন, সেই ব্যর্থতার দায়ভার হিসেবে ওই সময়ে জন্ম নেয়া কেউ জন্মসূত্রে নাগরিকত্বের অধিকার থেকে কেন বঞ্চিত হবে? বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম অবশ্য বলেন, “এই বিষয়গুলো নিয়ে দুদেশের পক্ষ থেকেই অনেক কাজ বাকি আছে। সেগুলো করার পরই চুক্তি বাস্তবায়িত হবে।” তবে এ নিয়ে আলাদা উদ্বেগের কিছু নেই বলে দাবি তার।

এই সমস্যা ভারতের মধ্যে থাকা বাংলাদেশের ছিটমহলগুলোর অধিবাসীদের ক্ষেত্রেও প্রায় একই। ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির ভারত অংশের প্রধান আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব জানান, সংবিধান অনুযায়ী ভারতে জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব পাওয়ার কোনো পথ ছিটমহলবাসীদের জন্য নেই। তবে অভিবাসন সূত্রে তাদেরকে নাগরিকত্ব দিতে পারবে দেশটি। রাষ্ট্রের দায় নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনিও একমত পোষণ করে বলেন, “মানবিক বিবেচনায় অবশ্যই তারা জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব চাইবেন। এই প্রশ্নটি তোলা হয়েছিলো ছিটমহল পরিদর্শনে যাওয়া বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাই কমিশনার পঙ্কজ শরণের কাছে। তিনিও বলেছেন, দুদেশ যৌথভাবে বসে বিস্তারিত বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করা হবে।”

এখন ছিটমহলবাসীরা অপেক্ষায় আছেন, সেই ‘বসার’ ইতিবাচক ফল দেখার আশায়।

শিবলী নোমান: আঞ্চলিক প্রধান, যমুনা টেলিভিশন   

  

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা