artk
বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৫ ৮:৩৭

শিক্ষক লাঞ্ছনায় তীব্র ক্ষোভ, ২৬ এপ্রিল কর্মবিরতি

media

ঢাকা: সহকারী কমিশনারের হাতে সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপকের লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় অস্থিরতা ও তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে সারাদেশের সরকারি কলেজ ও শিক্ষা প্রশাসনে।

এ ঘটনার সাথে জড়িত ২৯ ব্যাচের কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার মো. আশ্রাফুল ইসলাম, ভান্ডারিয়ার ইউএনও মোহাম্মদ মনির হোসেন হাওলাদার ও ভান্ডারিয়া কলেজের অধ্যক্ষকে প্রত্যাহারসহ এদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

সমিতি আগামী ২৬ এপ্রিল সারাদেশের সরকারি কলেজ ও শিক্ষা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক কার্যালয়গুলোতে মানববন্ধন, প্রতিবাদ সভা ও কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে। ১ মের মধ্যে জড়িতদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না নিলে এদিন সমিতি জরুরি বৈঠকেরও আহবান করেছে। ওই বৈঠকের মাধ্যমে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে সমিতি সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, শিক্ষককে পা ধরিয়ে ক্ষমা চাওয়ানোর মতো ঘটনার জন্য ম্যাজিস্ট্রেটের কঠোর শাস্তির দাবিতে আগামী রোববার দেশের সকল সরকারি কলেজে ধর্মঘট আহ্বান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর  ইডেন কলেজে অধ্যক্ষ হোসনে আরা বেগমের সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা আয়োজন করা হয়। সভায় এসি ল্যান্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক ও বরিশালের বিভাগীয় কমিশনারের কাছে কৈফিয়ৎ চেয়েছেন। পাশাপাশি ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে শিক্ষা সচিবকে চিঠি দিয়েছেন বলেও জানা যায়।

শিক্ষক নেতারা অভিযোগ তুলে বলছেন, শিক্ষক লাঞ্ছনাকারী এসি ল্যান্ড এখনও বুনিয়াদি/ফাউন্ডেশন ট্রেনিং করেননি। সে ২৯ ব্যাচের একজন কর্মকর্তা। যাকে লাঞ্ছিত করেছেন, তিনি ২৪ ব্যাচের একজন কর্মকর্তা। বিধিবিধান না জানা একজন জুনিয়র কর্মকর্তাকে কেনো ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব দেওয়া হলো।


শিক্ষা ক্যাডারের কেন্দ্রীয় নেতারা মঙ্গলবার পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া সরকারি কলেজে প্রতিবাদ-সমাবেশ ও মানববন্ধন করেন। বুধবার ঢাকা কলেজ, ঠাকুরগাঁও কলেজ, রাজশাহী অঞ্চলের সরকারি কলেজগুলোর সমন্বয়ে রাজশাহী কলেজ, সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজ ও নড়াইল সরকারি কলেজসহ অনেক কলেজে হয় প্রতিবাদ সভা।

এদিকে, মাউশি কর্তৃপক্ষ এসি ল্যান্ডের হাতে শিক্ষা ক্যাডারের সহকারী অধ্যাপক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা খতিয়ে দেখতে প্রশিক্ষণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক সামছুল হুদাকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। এর সদস্যরা হলেন-পরিকল্পনা শাখার উপপরিচালক ওসমান ভূঞা ও প্রশিক্ষণ শাখার সহকারী পরিচালক হেমায়েত উদ্দিন হাওলাদার।

এছাড়া বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক শাহ আলমগীরকে প্রধান করে পৃথক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

অধ্যাপক সামছুল হুদা জানান, তদন্তকাজ শুরু করতে তিনি শুক্রবার পিরোজপুর যাবেন।

শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ মঙ্গলবার শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইঞার সঙ্গে কথা বলেছেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া ও এর সম্মানজনক সমাধানের বিষয়ে মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেছেন বলে জানা গেছে।

এর আগে কলেজের একটি সূত্র ঘটনার বর্ণনা দিয়ে জানায়, গত ৯ এপ্রিল এইচএসসি ইংরেজি প্রথমপত্র পরীক্ষা চলাকালে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া সরকারি কলেজ কেন্দ্রে প্রধান প্রত্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন সহকারী অধ্যাপক মোনতাজ উদ্দিন। একপর্যায়ে সেলফোনে কথা বলতে বলতে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ আশ্রাফুল ইসলাম। নিজের পরিচয় না দিয়ে কক্ষের দায়িত্বে থাকা শিক্ষককে এসি ল্যান্ড বলেন, এক বেঞ্চে দুই ছাত্রী পাশাপাশি বসছে কেনো? তাদের সরিয়ে দিন। এ অবস্থায় সহকারী অধ্যাপক মোনতাজ উদ্দিন তার পরিচয় জানতে চাইলে ক্ষেপে যান আশ্রাফুল। এমনকি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনির হোসেন হাওলাদার ও পুলিশকে তাৎক্ষণিক ডেকে এনে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করেন।

তারা বলেন, শিক্ষককে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তি দেওয়ার হুমকি দেন ম্যাজিস্ট্রেট। প্রকাশ্যে মোনতাজ উদ্দিনকে ম্যাজিস্ট্রেটের পা ধরে ক্ষমা চাইতেও বাধ্য করেন। যে ছবি গত কদিন ধরে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এরপর থেকে প্রতিদিনই বিভিন্ন সরকারি কলেজে চলছে প্রতিবাদ সমাবেশ, মানববন্ধন।

এ ব্যাপারে সহকারী অধ্যাপক মোনতাজ উদ্দীনকে ফোন করা হলে তিনি বলেন, “ঘটনার পর থেকে ভাবছিলাম, এখন আমি কী করবো? সবকিছু অন্ধকার লাগছিল। মনে হচ্ছিল, সুইসাইড করব। কিন্তু আমার কলিগরা আমার পাশে দাঁড়ানোর পর আমার অপমানের কষ্ট কিছুটা হলেও কমেছে। শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তারা প্রায়ই এভাবে লাঞ্ছনার শিকার হন। আমাদের কিছুই করার থাকে না।”

এ ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে সহকারী কমিশনার আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, “আমি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব নিয়ে ওখানে যাই। একটা কক্ষ পরিদর্শন করে ওই কক্ষে গেলে দেখি দুটো মেয়ে কথা বলছে। তাদের খাতা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষককে অনুরোধ করি। তিনি আমার কথায় প্রচণ্ড ক্ষেপে যান। মনে হয়, তারা ইনফিরিয়রিটি কমপ্লেক্সে ভোগেন। একটু হলেই তারা ব্যাচ জিজ্ঞেস করে। যাই হোক, আমার কথা না শুনে শিক্ষক আমাকে ধাক্কা দেয়। আমার নাজির আমার পাশে ছিল। আমি অবাক হয়ে যাই। পরে আমি ঘটনা আমার ইউএনও স্যারকে জানাই। এরপর তারা সেখানে আসেন। আমি ওনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ফাইল ওপেন করি। একটা পর্যায়ে ধাক্কা দেওয়ার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নিতে পারি বলে জানাই। এ নিয়ে অধ্যক্ষের কক্ষে গেলে অধ্যক্ষ ওনাকে বলেন, আপনি অন্যায় করেছেন। আপনার বিরুদ্ধে ফৌজদারি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি ওনাকে আমার কাছে মাপ চাইতে বলেন। উনি ওনার দোষ স্বীকারও করেন।”

আশ্রাফুল বলেন, “আমি তাকে বলি, আমার কাছে মাপ চেয়ে লাভ কী। ছাত্রদের সামনে ঘটনা ঘটেছে। তাদের কাছে গিয়ে মাপ চান। পরে উনি সেখানে গিয়েও ক্ষমা চান। ওখানে দুজন সাংবাদিক ছিল। তারা স্থানীয় পত্রিকায় নিউজ করে দেয়। অধ্যক্ষ অবশ্য সাংবাদিকদের নিষেধ করেছিলেন। তারা তা শুনেননি।”

আশ্রাফুল আরও বলেন, “আমার মনে হয়, ঘটনাটি পরিকল্পিত। ৯ তারিখের ঘটনা। স্থানীয় পত্রিকাগুলো সত্য ঘটনা লিখেছে। কিন্তু এরপর হঠাৎ করে ২০/২২ তারিখের দিকে জাতীয় পত্রিকাগুলো নিউজ করে দেয়।”

এ ব্যাপারে ভান্ডারিয়ার ইউএনও মনির হাওলাদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
 
বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির মহাসচিব আইকে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন, “এ ধরনের ঘটনায় শুধু সরকারি কর্মকর্তাদের শৃঙ্খলাকে অবজ্ঞা করা হয়নি, সমগ্র শিক্ষক সমাজকে অপমান করা হয়েছে। আমরা এই ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছি।”

তিনি বলেন, “শুধু ভান্ডারিয়া কলেজে নয়, লক্ষ্মীপুর সরকারি মহিলা কলেজের দুজন প্রত্যবেক্ষককেও ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক চরমভাবে লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “আগামী ২৬ তারিখ সারাদেশের সরকারি কলেজ ও এর সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা ক্যাডার কর্মবিরতি পালন করবে। ১ মে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির জরুরি সাধারণ সভা আহ্বান করা হয়েছে। সেখানে ওই বিষয়ে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/কেজেএইচ

যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল হুয়াওয়ে ‘ভারত বুঝুক, হারের পর সামনে এসে উল্লাস করলে কেমন লাগে’ মৎস্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত, উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত নারায়ণগঞ্জে শিশুসহ একই পরিবারের দগ্ধ ৮ নায়ক মান্না চলে যাওয়ার ১ যুগ করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ১০০ জন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ২ মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত ইঁদুরেই খেয়েছে ১ লাখ মেট্রিক টন ফসল করোনাভাইরাস আতঙ্কে সিঙ্গাপুরফেরত স্বামীকে রেখে পালালেন স্ত্রী ঘুষের অভিযোগ থেকে সিনহাকে অব্যাহতি কোভিড ১৯: এবার তাইওয়ানে প্রথম মৃত্যু ভোটাররা দেরিতে ঘুম থেকে উঠায় ভোট হবে ৯টায়: ইসি সচিব এই সেলফি তোলার পরেই ট্রেনের ধাক্কায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু করোনাভাইরাস: প্রযুক্তিই চীনের শেষ ভরসা সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের: অর্থ মন্ত্রণালয় বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটার নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩ চট্টগ্রাম, বগুড়া ও যশোর সিটিতে ভোট ২৯ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে উন্নত কিটস দেবে চীন একত্রে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই বিশ্রামে রিয়াদ, ফিরলেন তাসকিন-মোস্তাফিজ করের বকেয়া অর্থ না দেয়াও দুর্নীতি: দুদক চেয়ারম্যান দক্ষদের নিয়োগ দিচ্ছে টেসলা, ডিগ্রি না হলেও চলবে খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন সরকার পায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকেন পক্স হলে কী খাবেন বাংলা তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট কারিগরি শিক্ষার্থীদের বেশি গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিএসইএক্সের সেরা দ্বিতীয় উত্থান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল ফিটনেস ও নিবন্ধনহীন গাড়ি বন্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ