artk
সোমবার, মার্চ ৩০, ২০১৫ ৬:১১

প্রতিদিন স্কুলে যান ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক!

media

ঝিনাইদহ: প্রতিদিন স্কুলে যান ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মো: শফিকুল ইসলাম। নিজের দাপ্তরিক কাজ শেষে শহরে অথবা প্রত্যন্ত পল্লীর স্কুলে যান তিনি। নিজে তো যানই সেই সাথে তার স্ত্রীকেও মাঝে মাঝে নিয়ে যান। তবে ক্লাস করার জন্য নয় স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাঝে শৃঙ্খলা ফেরাতে ও শিক্ষকদের নিয়মিত পাঠ দান করানোর মানসিকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি স্কুল পরিদর্শন করেন।

স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সাথে নানা ধরনের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন। তবে কঠোর হন শিক্ষার্থীদের স্কুল ড্রেস ও জুতা পরে আসার বিষয়ে। তার কড়া নির্দেশ প্রতিটি শিক্ষার্থী স্কুল ড্রেস ও জুতা পড়ে আসতে হবে। ক্লাস শুরু হওয়ার পুর্বে নিয়মিত পিটি করতে হবে।

তবে জেলা প্রশাসকের হঠাৎ স্কুল পরিদর্শনে স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ ভয়ে থাকেন। ।

জেলা প্রশাসকের এই কাজে যেমন শিক্ষার্থীদের মাঝে ফিরেছে শৃঙ্খলা তেমনি শিক্ষকদেরও নিয়মমাফিক স্কুলের যাবতীয় দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। কোনো শিক্ষক যদি কোচিং বাণিজ্যের সাথে জড়িত থাকে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক। ইতোমধ্যে প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধে জেলার প্রতিটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে মিটিং করেছেন তিনি।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হাটগোপালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী জানান, “জেলা প্রশাসক প্রতিদিন জেলার কোনো না কোনো স্কুল পরিদর্শন করেন। সেখানে যদি কোনো অনিয়ম হয় তাহলে তার জবাবদিহীতা করতে হয়। তার এই কাজে জেলার শিক্ষার মান উন্নত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের মাঝে শৃঙ্খলা ফিরছে।”

শৈলকুপা উপজেলার বেনীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দিন জোয়ার্দ্দার মামুন জানান, “জেলা শহর থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দুরে অবস্থিত আমাদের এই বিদ্যালয়ে জেলা প্রশাসক হঠাৎই পরিদর্শন করেন। কোনো প্রকার যোগাযোগ না করেই তিনি পরিদর্শনে চলে আসেন। এসে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেন আর প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দেন স্কুলের পুর্ণ শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে। তার এই উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানায়।”

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো: শফিকুল ইসলাম জানান, “প্রতিটি শিক্ষার্থীর স্কুল ড্রেস পড়া বাধ্যতামুলক। তদারকি না করায় এ নিয়ম অনেক সময় মানা হতো না। তাই স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মানসিক বিভেদ শুরু হচ্ছিল। কে বড়লোক বা কে গরীব তা তার পরিবারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হবে। স্কুলে সবাই সমান। এর কোনো ব্যতিক্রম ঘটলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, “কোচিং ও প্রাইভেট বাণিজ্য বন্ধে প্রশাসন কঠোর ভুমিকায় রয়েছে। কোনো বিদ্যালয়ের শিক্ষক যদি এর সাথে জড়িত থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আর জেলার শিক্ষার মান উন্নয়নে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকদের সাথে সাথে জেলা প্রশাসন সবসময় কাজ করে যাচ্ছে। সকলের সহযোগীতা পেলেই সারা বাংলাদেশের মধ্যে ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষার ক্ষেত্রে একটি মডেল জেলা হিসেবে পরিণত হবে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা