artk
সোমবার, মার্চ ৩০, ২০১৫ ৬:১১

প্রতিদিন স্কুলে যান ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক!

media

ঝিনাইদহ: প্রতিদিন স্কুলে যান ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মো: শফিকুল ইসলাম। নিজের দাপ্তরিক কাজ শেষে শহরে অথবা প্রত্যন্ত পল্লীর স্কুলে যান তিনি। নিজে তো যানই সেই সাথে তার স্ত্রীকেও মাঝে মাঝে নিয়ে যান। তবে ক্লাস করার জন্য নয় স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাঝে শৃঙ্খলা ফেরাতে ও শিক্ষকদের নিয়মিত পাঠ দান করানোর মানসিকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি স্কুল পরিদর্শন করেন।

স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সাথে নানা ধরনের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন। তবে কঠোর হন শিক্ষার্থীদের স্কুল ড্রেস ও জুতা পরে আসার বিষয়ে। তার কড়া নির্দেশ প্রতিটি শিক্ষার্থী স্কুল ড্রেস ও জুতা পড়ে আসতে হবে। ক্লাস শুরু হওয়ার পুর্বে নিয়মিত পিটি করতে হবে।

তবে জেলা প্রশাসকের হঠাৎ স্কুল পরিদর্শনে স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ ভয়ে থাকেন। ।

জেলা প্রশাসকের এই কাজে যেমন শিক্ষার্থীদের মাঝে ফিরেছে শৃঙ্খলা তেমনি শিক্ষকদেরও নিয়মমাফিক স্কুলের যাবতীয় দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। কোনো শিক্ষক যদি কোচিং বাণিজ্যের সাথে জড়িত থাকে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক। ইতোমধ্যে প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধে জেলার প্রতিটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে মিটিং করেছেন তিনি।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হাটগোপালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী জানান, “জেলা প্রশাসক প্রতিদিন জেলার কোনো না কোনো স্কুল পরিদর্শন করেন। সেখানে যদি কোনো অনিয়ম হয় তাহলে তার জবাবদিহীতা করতে হয়। তার এই কাজে জেলার শিক্ষার মান উন্নত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের মাঝে শৃঙ্খলা ফিরছে।”

শৈলকুপা উপজেলার বেনীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দিন জোয়ার্দ্দার মামুন জানান, “জেলা শহর থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দুরে অবস্থিত আমাদের এই বিদ্যালয়ে জেলা প্রশাসক হঠাৎই পরিদর্শন করেন। কোনো প্রকার যোগাযোগ না করেই তিনি পরিদর্শনে চলে আসেন। এসে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেন আর প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দেন স্কুলের পুর্ণ শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে। তার এই উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানায়।”

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো: শফিকুল ইসলাম জানান, “প্রতিটি শিক্ষার্থীর স্কুল ড্রেস পড়া বাধ্যতামুলক। তদারকি না করায় এ নিয়ম অনেক সময় মানা হতো না। তাই স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মানসিক বিভেদ শুরু হচ্ছিল। কে বড়লোক বা কে গরীব তা তার পরিবারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হবে। স্কুলে সবাই সমান। এর কোনো ব্যতিক্রম ঘটলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, “কোচিং ও প্রাইভেট বাণিজ্য বন্ধে প্রশাসন কঠোর ভুমিকায় রয়েছে। কোনো বিদ্যালয়ের শিক্ষক যদি এর সাথে জড়িত থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আর জেলার শিক্ষার মান উন্নয়নে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকদের সাথে সাথে জেলা প্রশাসন সবসময় কাজ করে যাচ্ছে। সকলের সহযোগীতা পেলেই সারা বাংলাদেশের মধ্যে ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষার ক্ষেত্রে একটি মডেল জেলা হিসেবে পরিণত হবে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল হুয়াওয়ে ‘ভারত বুঝুক, হারের পর সামনে এসে উল্লাস করলে কেমন লাগে’ মৎস্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত, উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত নারায়ণগঞ্জে শিশুসহ একই পরিবারের দগ্ধ ৮ নায়ক মান্না চলে যাওয়ার ১ যুগ করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ১০০ জন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ২ মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত ইঁদুরেই খেয়েছে ১ লাখ মেট্রিক টন ফসল করোনাভাইরাস আতঙ্কে সিঙ্গাপুরফেরত স্বামীকে রেখে পালালেন স্ত্রী ঘুষের অভিযোগ থেকে সিনহাকে অব্যাহতি কোভিড ১৯: এবার তাইওয়ানে প্রথম মৃত্যু ভোটাররা দেরিতে ঘুম থেকে উঠায় ভোট হবে ৯টায়: ইসি সচিব এই সেলফি তোলার পরেই ট্রেনের ধাক্কায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু করোনাভাইরাস: প্রযুক্তিই চীনের শেষ ভরসা সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের: অর্থ মন্ত্রণালয় বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটার নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩ চট্টগ্রাম, বগুড়া ও যশোর সিটিতে ভোট ২৯ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে উন্নত কিটস দেবে চীন একত্রে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই বিশ্রামে রিয়াদ, ফিরলেন তাসকিন-মোস্তাফিজ করের বকেয়া অর্থ না দেয়াও দুর্নীতি: দুদক চেয়ারম্যান দক্ষদের নিয়োগ দিচ্ছে টেসলা, ডিগ্রি না হলেও চলবে খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন সরকার পায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকেন পক্স হলে কী খাবেন বাংলা তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট কারিগরি শিক্ষার্থীদের বেশি গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিএসইএক্সের সেরা দ্বিতীয় উত্থান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল ফিটনেস ও নিবন্ধনহীন গাড়ি বন্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ