artk
সোমবার, সেপ্টেম্বার ৭, ২০১৫ ১:৫৯

ছাত্রীকে শাস্তি দেয়ায় অন্তঃসত্ত্বা শিক্ষিকা ও হেডমাস্টারকে মারধর

media

লালমনিরহাট: লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার দুরারকুটি-বালাপুকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মোছা. মুক্তা খাতুন বিদ্যালয়ে ক্লাস নেওয়ার সময় স্থানীয় নজরুলসহ কতিপয় দুর্বৃত্ত ক্লাসরুমের ভেতরে প্রবেশ করে শিক্ষিকাকে মারধর করে আহত করেছে।

শিক্ষিকার চিৎকারে প্রধান শিক্ষক ছুটে এলে তাকেও বেদম প্রহার করে দুর্বৃত্তরা।

পরে স্থানীয়রা ছুটে এসে শিক্ষিকাকে আহত অবস্থায় আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। ঘটনাটি বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্লাসে পাঠদানরত অবস্থায় ঘটে।

পরের দিন শুক্রবার আহত শিক্ষিকা বাদী হয়ে নজরুলসহ ৯ জনকে আসামি করে আদিতমারী থানায় মামলা দায়ের করেন। শনিবার রাতে থানা পুলিশ মামলার প্রধান আসামি নজরুলকে গ্রেফতার করে রোববার লালমনিরহাট জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও একাধিক সূত্র জানায়, ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা শিক্ষিকা মুক্তা প্রতিদিনের ন্যায় বৃহস্পতিবার সকালে ঠিক সময়ে বিদ্যালয়ে আসেন। ওইদিন বিদ্যালয়ে এসে ৫ম শ্রেণির ক্লাসে গিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের বাড়ির পড়াগুলো হয়েছে কি না জানতে চান। ওই ক্লাসের ছাত্রী নুসরাত জাহান পড়া দিতে না পারলে তার কারণ জানতে চান ওই শিক্ষকা। ছাত্রীটি এর কোনো জবাব দিতে না পারায় তাকে লজ্জা দেওয়ার জন্য সহপাঠীকে দিয়ে তার গালে একটি চড় মারান তিনি।

এর কিছুক্ষণ পরেই ছাত্রীর বাবা নজরুল ইসলাম, মা, চাচা, চাচীসহ স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি লাঠিসোটা ও রড নিয়ে ক্লাসে রুমে প্রবেশ করে শিক্ষিকাকে চুল ধরে বাইরে টেনে এনে এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকেন। মারধরের একপর্যায়ে প্রধান শিক্ষক দৌড়ে গিয়ে নজরুলসহ অন্যদের হাত থেকে শিক্ষিকাকে রক্ষা করতে গেলে তারা প্রধান শিক্ষককেও বেদম প্রহার করেন এবং সব শিক্ষককে এক রুমে তালাবদ্ধ করে রাখেন।

পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ঘণ্টাখানেক পর স্থানীয়রা এসে তালা খুলে দিয়ে শিক্ষকদের উদ্ধার করেন। উদ্ধারের পর আহত শিক্ষিকা মুক্তা খাতুনকে আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

রোববার সকালে সরেজমিনে বিদ্যালয়ে গিয়ে ৫ম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে পাওয়া যায়নি। তবে তার সহপাঠীরা জানান, নুসরাত বাড়ির পড়া না পড়ায় ম্যাডাম আমাদের বন্ধু আলআমিনকে দিয়ে ওর গালে একটা চড় মারান। এরপর ছাত্রীটির বাবাসহ ১০/১২ জন লাঠিসোটা নিয়ে ক্লাসে পড়ানো অবস্থায় ম্যাডামকে চুল ধরে টেনে বাইরে মাঠে এনে মারতে থাকেন। এ অবস্থায় হেড স্যার সেখানে গেলে তাকেও মারধর করে তারা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, নজরুল ইসলাম এর আগে ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ছিলেন। তখন বিদ্যালয়ের জায়গায় দুটি দোকান ঘর তৈরি করে তিনি ব্যবসা শুরু করেন। বিদ্যালয়কে কোনো ভাড়াও দিতেন না তিনি। গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে কমিটির মেয়াদ শেষ হলে নতুন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। কিন্তু নজরুল আবারো সভাপতি হবেন মর্মে প্রধান শিক্ষককে বলেন।  জানা যায়, ওই সময়ে তিনি অফিসে বসেই বলেন, আমাকে (নজরুল) সভাপতি করে শিক্ষা অফিসে কাগজপত্র প্রেরণ করেন।

বিষয়টি জানাজানির হলে অভিভাবক সদস্যরা অফিস কমিটি নয়। নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি হবে বলে প্রধান শিক্ষককে জানিয়ে দেন। তারপরও নজরুল প্রধান শিক্ষককে চাপ দেন তাকে সভাপতি করে কমিটি করতে। এরপর প্রধান শিক্ষক নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় গেলে নজরুল ক্ষিপ্ত হন এবং প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক প্রতিনিধিকে (মুক্তা খাতুন) কীভাবে এখানে চাকরি করেন তা দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর  নির্বাচনে আব্দুল জলিল সভাপতি নির্বাচিত হন। তখন থেকে নজরুল সুযোগ খুঁজতে থাকেন।

এলাকাবাসী, শিক্ষার্থী, শিক্ষকসহ বিভিন্ন পেশাজীবীর লোকজনের দাবি, নজরুলসহ অন্য দুর্বৃত্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। তাদের শাস্তি দেখে অন্যরা যেন এরকম ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটাতে সাহস না পান।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জগদীশ চন্দ্র বর্মন জানান, নজরুল সভাপতি থাকাকালীন স্কুলের জায়গায় দুটি দোকান ঘর করে ব্যবসা করে আসছেন। দোকানের কোনো প্রকার ভাড়া স্কুলকে দেন না তিনি। কিছুদিন আগে দোকানের ভাড়া চাইলে উনি আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও অপমান করেন ও হুমকি দেন এই বলে যে আর যাতে কখনো ভাড়া না চাই। এ সময় তিনি ও তার শিক্ষককে মারধরকারী নজরুলসহ অন্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান প্রধান শিক্ষক।

আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক সার্জন ডা. সাদিকা বিনতে জামান জানান, শিক্ষিকা মুক্তা খাতুন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। যেহেতু তিনি অন্তঃসত্ত্বা এবং পেটে আঘাত পাওয়ার কারণে তিনি ব্যথা অনুভব করছেন। তাকে আলট্রা সনোগ্রামসহ বিভিন্ন পরীক্ষা করা হচ্ছে।

আদিতমারী থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুস সোবহান জানান, মামলার প্রধান আসামি নজরুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জহুরুল ইসলাম জানান, শিক্ষিকার গায়ে হাত দেয়া একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। এর সংগে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি দিলে এ রকম ঘটনা ঘটানোর সাহস কেউ আর পাবে না।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এনআএস/কেজেএইচ

যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল হুয়াওয়ে ‘ভারত বুঝুক, হারের পর সামনে এসে উল্লাস করলে কেমন লাগে’ মৎস্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত, উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত নারায়ণগঞ্জে শিশুসহ একই পরিবারের দগ্ধ ৮ নায়ক মান্না চলে যাওয়ার ১ যুগ করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ১০০ জন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ২ মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত ইঁদুরেই খেয়েছে ১ লাখ মেট্রিক টন ফসল করোনাভাইরাস আতঙ্কে সিঙ্গাপুরফেরত স্বামীকে রেখে পালালেন স্ত্রী ঘুষের অভিযোগ থেকে সিনহাকে অব্যাহতি কোভিড ১৯: এবার তাইওয়ানে প্রথম মৃত্যু ভোটাররা দেরিতে ঘুম থেকে উঠায় ভোট হবে ৯টায়: ইসি সচিব এই সেলফি তোলার পরেই ট্রেনের ধাক্কায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু করোনাভাইরাস: প্রযুক্তিই চীনের শেষ ভরসা সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের: অর্থ মন্ত্রণালয় বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটার নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩ চট্টগ্রাম, বগুড়া ও যশোর সিটিতে ভোট ২৯ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে উন্নত কিটস দেবে চীন একত্রে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই বিশ্রামে রিয়াদ, ফিরলেন তাসকিন-মোস্তাফিজ করের বকেয়া অর্থ না দেয়াও দুর্নীতি: দুদক চেয়ারম্যান দক্ষদের নিয়োগ দিচ্ছে টেসলা, ডিগ্রি না হলেও চলবে খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন সরকার পায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকেন পক্স হলে কী খাবেন বাংলা তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট কারিগরি শিক্ষার্থীদের বেশি গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিএসইএক্সের সেরা দ্বিতীয় উত্থান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল ফিটনেস ও নিবন্ধনহীন গাড়ি বন্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ