artk

রামপাল (বাগেরহাট) থেকে সুজন মজুমদার

শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২০ ১১:১০

রামপালে নির্দিষ্ট সময়ে ৮৩টি খাল খনন বাস্তবায়নে নানা চ্যালেঞ্জ

media

বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন ৮৩টি খাল ও নদী নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খনন করা সম্ভব না হলে আবারও মংলা-ঘষিয়াখালী নৌ প্রটোকল চ্যানেলটি হুমকির মুখে পড়তে পারে। 

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অগ্রাধিকার এ মেগা প্রকল্পটি সাতশ ছয় কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩৬ মাসের মধ্যে সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। যা গত ২০১৮ সালের জুনে শুরু হয়েছে এবং ২০২১ সালের জুন মাসে শেষ হবে। 

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরদারি ও স্থানীয় প্রশাসনের তৎপরতা বৃদ্ধি করা হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খাল ও নদীগুলি উন্মুক্ত করে দেয়া সম্ভব হবে বলে বিশেষজ্ঞরা মত প্রকাশ করেন। এতে মংলা বন্দরের নৌ চলাচলে গতিশীলতা বৃদ্ধি, সুন্দরবনের জীব বৈচিত্র্য সুরক্ষা, এ এলাকার পরিবেশ-প্রতিবেশ সুরক্ষা, মংলা-ঘষিয়াখালী নৌ রুটের নাব্যতা বৃদ্ধি, দ্বিমুখি ও দিবারাত্র সার্বক্ষণিক নৌযান চলাচল বৃদ্ধি পাবে। 

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, দীর্ঘসময় খাল ও নদীগুলি সংস্কার না করা, অধিকহারে পলি জমে ভরাট হওয়া, খাল ও নদীতে অপরিকল্পিতভাবে শত শত ছোট ব্রীজ, কালভার্ট, কাঁচা-পাকা রাস্তা নির্মাণ করা, মাটি রাখার জায়গার অভাব, সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা নির্মাণ করা, প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দ্বারা নদী-খালের স্বাভাবিক প্রবাহ বন্ধ করে মাছ চাষ করা, ভরাট হয়ে যাওয়া খাল ও নদীগুলিতে প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় ব্যক্তি মালিকানা জমি রেকর্ড করা, ভূমিহীনদের জন্য খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান ও আবাসন প্রকল্প নির্মাণ করা, খননের সময় মামলা-হামলা ও ভয়ভীতি প্রদান করে খননে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করাসহ নানান চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসব কারণে খনন কার্যক্রম মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্তু হচ্ছে বলে জানা গেছে। 

সূত্রমতে, ৮৩টি খাল ও নদীর মোট ৩শ ১০ কিলোমিটার খনন করে ১৪৭.৫ লাখ ঘনমিটার মাটি উত্তোলন করার কথা রয়েছে। এর মধ্যে ৫টি নদীর ৫৭.৫৮৩ কিলোমিটার ও ৭৮ টি খালের ২৫৫.৪১৭ কিলোমিটার খনন করা হবে। গত ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ নৌ-বাহিনী খনন কার্যক্রম শুরু করে। তাদের কার্যক্রম সন্তোষজনক না হওয়ায় পরবর্তীতে ৮৩টি নদী ও খালের মধ্য থেকে ৪৬টি তাদের অনুকূলে রেখে বাকি ৩৭টি অন্যান্য ঠিকাদারদের মাধ্যমে খনন কার্যক্রম শুরু করা হয়। ইতিমধ্যে ২৯টি খালের প্রায় ৮০ কিলোমিটার খনন করে ৩০ লাখ ঘনমিটার মাটি উত্তোলন করে খালগুলি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ৪টি নদী ও ২৫টি খাল খনন চলমান রয়েছে। চলমান ওইসব খাল থেকে আরও প্রায় ৩০ লাখ ঘনমিটার মাটি উত্তোলন করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা দাবি করেছেন। গত ২০ মাসে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো এক তৃতীয়াংশের বেশি মাটি খনন করেছে। বাকি প্রায় ১ কোটি ঘনমিটার মাটি মাত্র ১৭ মাসে উত্তোলন করতে হবে। এটা একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করণে বিশেষজ্ঞরা। 

বিশিষ্ট নাগরিক নেতা ও পরিবেশবিদ অ্যাডভোকেট কুদরত-ই খোদার দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান, মংলা বন্দর সচল, সুন্দরবন রক্ষা, এই এলাকার পরিবেশ-প্রতিবেশ সুরক্ষা এবং মংলা-ঘষিয়াখালী নৌপথের নৌ চলাচলের জন্য নাব্যতা নিশ্চিত করতে হবে। আর এটা করতে হলে চ্যানেল সন্নিহিত নদী ও খাল খনন করে দ্রুত খুলে দিতে হবে। খনন কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হলে এ মেগা প্রকল্পের কোনো সুফল মিলবে না। পরিপূর্ণভাবে এর সুফল পেতে হলে শাখা নদী ও শাখা খালের পাশাপাশি জোয়ার ভাটার প্লাবন ভূমি তৈরি করতে হবে। সঠিক সময়ের মধ্যে ও পরিকল্পনা অনুযায়ী সঠিকভাবে নদী খনন করতে হবে তা না হলে খালগুলি আবার দ্রুত ভরাট হয়ে যাবে। আর এটা না করতে পারলে প্রকল্প ব্যয় বহুগুন বেড়ে যাবে। তিনি কাজের গতিশীলতা বাড়ানোর জন্য স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করার দাবি জানান। 

এ ব্যাপারে বাগেরহাটের পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নাহিদ-উজ জামান খান বলেন, “খাল খননের শুরুতেই বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। আমরা দ্রুত সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধানের চেষ্টা করছি। আশা করি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক এ মেগা প্রকল্প সঠিক সময়ে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।”

তিনি সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। 

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবুল হোসেনের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, “আমরা যথাসময়ের মধ্যে খাল ও নদীগুলি উন্মুক্ত করে এ মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর। প্রকল্পে নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলির কার্যক্রমের ওপর সার্বক্ষণিক নজরদারি করা হচ্ছে। মাঠ পর্যায়ে কাজে যাতে কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হয় এজন্য জেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে খনন কার্যক্রম এগিয়ে নেয়া হচ্ছে। আশা করি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এ মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করে মংলা-ঘষিয়াখালী নৌ-চ্যানেলের পানি প্রবাহ বৃদ্ধি করা সম্ভব হবে।” 

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা