artk
বুধবার, নভেম্বার ২০, ২০১৯ ৭:৫৪   |  ৬,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নিজস্ব প্রতিবেদক

মঙ্গলবার, অক্টোবার ২৯, ২০১৯ ১২:৪০

কাঁথা বালিশ নিয়ে ঢাবি ভিসির বাড়ির সামনে শিক্ষার্থীরা

media

বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে ‘গণরুম সমস্যার’ সমাধান না হওয়ায় একদল শিক্ষার্থীকে সঙ্গে নিয়ে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছেন ডাকসু সদস্য তানভীর হাসান সৈকত।

বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে ‘গণরুম সমস্যার’ সমাধান না হওয়ায় একদল শিক্ষার্থীকে সঙ্গে নিয়ে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছেন ডাকসু সদস্য তানভীর হাসান সৈকত।

কর্তৃপক্ষ সোমবারের মধ্যে উদ্যোগ না নিলে মঙ্গলবার গণরুমের শিক্ষার্থীদের নিয়ে উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে ওঠার ঘোষণা দিয়ে রেখেছিলেন তিনি।

সে অনুযায়ী ১৯ জন শিক্ষার্থীকে সঙ্গে নিয়ে সৈকত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ভিসি বাংলোর ফটকের বাইরে রাস্তার ওপর অবস্থান নেন।

‘প্রথম বর্ষে বৈধ সিটের অধিকার চাই’, ‘হলের সংখ্যা বৃদ্ধি কর, অতপর ছাত্র ভর্তি কর’, থাকার জন্য জায়গা চাই, গণরুমে ঠাঁই নাই’, ‘আমরা এখন চুপসে গেছি, জ্ঞানশূন্য কালোমাছি’- ইত্যাদি স্লোগান লেখা ফেস্টুন দেখা যায় তাদের হাতে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের সদস্য ও ভবনের নিরাপত্তাকর্মীদের এ সময় শিক্ষার্থীদের পেছনে গেইটের সামনে সারি বেঁধে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

ছাত্রলীগের গত কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সৈকত বলেন, “আমাদের পূর্বঘোষিত ঘোষণা অনুযায়ী সকালে ভিসি স্যারের বাসভবনে ঢুকতে গেলে প্রক্টরিয়াল টিমের সদস্যরা এবং গেটম্যানরা বাধা দেয়। এরপর আমরা রাস্তায় অবস্থান নিয়েছি। গণরুম সংকটের সমাধানে দৃশ্যমান কিছু না করা পর্যন্ত আমরা এখানেই অবস্থান করব, খাব, ঘুমাব।”

ঘটনাস্থলে উপস্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আবদুর রহিম বলেন, “আমরা তাদের সাথে আলোচনা করছি। এটা তাদের গণতান্ত্রিক দাবি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পরিকল্পনাতেও এটা আছে। কিন্তু এটা তো সময়সাপেক্ষ একটি বিষয়। আমরা আশা করি তারা আমাদের আহ্বান অনুযায়ী সরে যাবে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭টি হলে শিক্ষার্থী আছেন ধারণক্ষমতার দ্বিগুণেরও বেশি। আবাসন সঙ্কটের কারণে প্রতিটি হলেই সৃষ্টি হয়েছে ‘গণরুমের’, যেখানে মেঝেতে টানা বিছানা পেতে প্রথম বর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের গাদাগাদি করে থাকতে হয়। কারা এসব কক্ষে থাকবে তার নিয়ন্ত্রণ থাকে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের নেতাদের হাতে।

আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের লেখাপড়া শেষ হয়ে যাওয়ার পরও অনেক শিক্ষার্থী দীর্ঘদিন হলে থেকে চাকরি খোঁজেন। ফলে কাগজে কলমে তাদের সিট না থাকলেও বাস্তবে আসন খালি হয় না।

গণরুম সঙ্কটের সমাধানের দাবিতে গত ১ সেপ্টেম্বর কবি জসীমউদ্দীন হলের ২০৮ নম্বর কক্ষের গণরুমে গিয়ে ওঠেন ডাকসুর সদস্য তানভীর হাসান সৈকত।

১ অক্টোবর বিভিন্ন হলের গণরুমের প্রায় ৪০ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে রাজু ভাস্কর্যের সামনে এক সমাবেশ থেকে তিনি ঘোষণা দেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ১৫ দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান করার ব্যবস্থা না নিলে গণরুমের শিক্ষার্থীদের নিয়ে তিনি উপাচার্যের বাসায় গিয়ে উঠবেন।

সেই সময়সীমার কথা মনে করিয়ে দিতে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন ডাকসু সদস্য সৈকত।

সেদিন তিনি বলেন, “এই সমস্যার সমাধানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দেওয়া ১৫ কার্যদিবসের সময়সীমা আগামী সোমবার শেষ হবে। আগামী মঙ্গলবার উপাচার্য মহোদয়ের সাথে সকালের নাস্তা করার মধ্য দিয়ে আমরা উপাচার্য ভবনে থাকার শুরু করব।”

এদিকে গণরুমের দুর্দশা লাঘবের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে গত ১০ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয়, মাস্টার্স পরীক্ষা শেষ হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়তে হবে। এর পরে কোনোভাবেই হলে থাকা চলবে না।

পাশাপাশি আবাসন সঙ্কট মেটাতে হলে ‘বাংক বেড’ স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য একটি কমিটি করা হয় ওই সভায়।

ছাত্রদের দুরবস্থা নিজের চোখে দেখতে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান গত রোববার কবি জসিম উদদীন হল এবং মাস্টারদা সূর্যসেন হলের গণরুম হিসেবে পরিচিত কয়েকটি কক্ষ ঘুরে দেখেন।

সেখানে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত সমস্যা সমাধানে পরিকল্পিত কর্মকৌশল গ্রহণের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। এছাড়া হলগুলো থেকে অছাত্রদের উৎখাতে হল প্রশাসনের পাশাপাশি হল সংসদগুলোকেও সম্পৃক্ত করতে হবে।

রাজধানী সুপার মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে ময়মনসিংহে এক বাড়িতেই ৭ হাজার কেজি লবণ ট্রান্সফাররেবল এলসির সঠিক ব্যবহারে বায়িং হাউজের দক্ষতা বাড়ানো জরুরী জনগণকে শাস্তি দেবেন না প্লিজ: কাদের কাউন্সিলর সাঈদের বিরুদ্ধে মামলা সৈয়দ নূরুল আলমের ‘আমার জীবন ও উন্নয়নের ৪৪ বছর’ টিকাটুলিতে রাজধানী সুপার মার্কেটে ভয়াবহ আগুন শিগগিরই ২২১ বন্ড লেনদেনযোগ্য হবে দেশের মানুষ এখন খোলা জেলে বন্দী: মির্জা আব্বাস ধর্মঘটের প্রভাব চালের বাজারে পড়বে না: খাদ্যমন্ত্রী বায়ুদূষণে শীর্ষে ঢাকা, ২৫ নভেম্বর আন্তমন্ত্রণালয় সভা চট্টগ্রামে পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানা: ২০ অস্ত্রসহ ‘ডাকাত সর্দার’ গ্রেপ্তার ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক বাস নেই, ভোগান্তি মাথায় নিয়ে হাঁটছে মানুষ ভুঁড়িওয়ালা পুরুষের কদর বেশি কেন নারীর কাছে ? সায়েদাবাদ থেকে দূরপাল্লার বাস বন্ধ শিক্ষকের থাপ্পড়ে কান ফাটলো ছাত্রের রাজধানীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত আমার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চালালে অনেক এমপি-মন্ত্রীর যাবজ্জীবন হবে: নাজমুল আইনের লাগাম ছেড়ার ধর্মঘটে সারাদেশে অচলাবস্থা দিনাজপুরে ট্রাকচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত কাউন্সিলর রাজিবের তিন গাড়ি জব্দ সেফুদার সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ লবণ নিয়ে গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: সরকার রাজস্ব আদায় ২ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে বুধবার থেকে বাস চলবে খুলনায় ৩৯তম বিসিএসে ৪ হাজার ৪৪৩ চিকিৎসক নিয়োগ অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলার ঘটনায় ছাত্রলীগের ৫ কর্মী গ্রেপ্তার খালেদা জিয়া দাঁড়াতে-বসতে বা হাতে তুলে খেতে পারেন না: রিজভী দুই সিটির ভোটবিরোধী ৩৬ কাউন্সিলর