artk
শুক্রবার, নভেম্বার ২২, ২০১৯ ২:৪৪   |  ৭,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক

মঙ্গলবার, অক্টোবার ১৫, ২০১৯ ৯:০৫

ভালো লেখক হওয়ার টিপস

media

আপনি হয়তো প্রতিদিনই লেখালেখি করেন। কিন্তু আপনি কি নিজের লেখা গদ্যটিকে সবার সামনে একটু আলাদা করে তুলে ধরতে চান? এটার কোনো গ্যারান্টি নেই যে আপনি পরবর্তী ম্যান বুকার বা পুলিৎজার পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন, কিংবা পরবর্তী চিমামান্ডা নগোজি অ্যাডিচে বা এমিলি ব্রন্টি হতে যাচ্ছেন।

কিন্তু আপনি যদি একজন ভালো লেখক হতে চান, তাহলে আপনাকে কিছু নির্দেশনা মানতেই হবে।

দ্য ইকনোমিস্ট সাময়িকীর ভাষা গুরু হিসেবে পরিচিত লেন গ্রিন, যিনি সাবেক আর্টস সম্পাদক এবং কলামিস্ট, তিনি ভালো লেখক হওয়ার সাতটি টিপস দিয়েছেন।

১. উচ্চাকাঙ্ক্ষা নিয়ে শুরু করুন

আপনি যে বিষয়ে যুক্তি দিতে চান বা যে বিষয়টি নিয়ে গল্পটি বলতে চান তার মোদ্দা কথাটি আপাতত ভুলে যান।

শুরু করুন কোনো একটি বর্ণনা বা উদাহরণ দিয়ে যা পাঠককে আপনার লেখা পড়তে সঠিক মেজাজটি এনে দেবে।

“অনেক বছর পর, যখন তাকে ফায়ারিং স্কোয়াডের মুখে পড়তে হলো....” এভাবে নিজের বিখ্যাত রচনা ‘ওয়ান হান্ড্রেড ইয়ারস অব সলিটিউড’ বা ‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’ শুরু করেছিলেন লেখক গ্র্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ।

ফায়ারিং স্কোয়াডের মুখে কে রয়েছে এবং কেনই বা রয়েছে? এর চেয়ে শক্তিশালী কোনো জিজ্ঞাসা দিয়ে কোন রচনা শুরু করা সম্ভব নয়।

২. বাক্য সংক্ষিপ্ত রাখুন

সংক্ষিপ্ত বাক্যে লিখলে তা আসলে পাঠকের মেধাকে ছোট করা বোঝায় না।

তবে এটা করাটা অতটা সোজাও নয়। কিন্তু এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এটা কোনো স্টাইল নয়, কিন্তু মানুষের জৈবিক বৈশিষ্ট্য মাত্র: কারণ এভাবেই আমাদের মস্তিষ্ক কাজ করে।

দীর্ঘ একটি বাক্য, বিশেষ করে যেসব বাক্যে একাধিক অধীনস্থ বাক্যাংশ থাকে, সে ধরনের বাক্য বুঝতে হলে পাঠককে ব্যাকরণের পাশাপাশি মূল বিষয়টিকে মাথায় একসাথে রাখতে হয়।

যা অনেক বেশি কঠিন এবং পাঠককে আপনার লেখার ব্যাকরণ নিয়ে ব্যস্ত রাখারও কোনো মানে হয় না।

এর চেয়ে বরং লেখার মূল আধেয় বা বিষয়বস্তুর উপরই গুরুত্ব দেয়া উচিত।

৩. একই সাথে, বিভিন্ন দৈর্ঘ্যের বাক্যও লিখতে হবে

আপনি হয়তো শুনে থাকবেন: “সব কিছুরই পরিমিতি বোধ থাকা উচিত, এমনকি পরিমিতিরও পরিমিতি বোধ থাকা জরুরি।”

যেখানে ছোট ছোট বাক্যে লেখাটাই সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা উচিত, তবে সব বাক্যই যদি ছোট লেখা হয় এবং আর কোনো ধরনের বাক্য যদি না থাকে তাহলে তা আপনার লেখায় এক ধরনের কাটা কাটা ভাব অর্থাৎ রসহীন করে তুলবে।

এক ধরনের র‍্যাট-টাট-টাট অনুভূতি দিবে পাঠককে যা হয়তো আপনি বাস্তবে দিতে চাননি এবং এটা পাঠকের জন্য বিরক্তির কারণও হতে পারে।

তাই সব ধরনের বাক্যই লিখতে হবে।

৪. সঠিক শব্দ ব্যবহার করুন

সঠিক শব্দের ব্যবহার পাঠককে দেখা, গন্ধ নেয়া, স্বাদ নেয়া কিংবা পায়ের আঙুল দিয়ে স্পর্শ করার মতো অনুভূতি দেয়।

এটা পাঠককে এমন কিছু দেয় যা দিয়ে তারা তাদের মনের চোখ দিয়ে এক ধরণের ছবি আঁকে।

এই ছবি এবং শব্দ মিলে, আপনার বার্তাকে স্মরণীয় এবং আকর্ষণীয় করে তুলবে পাঠকের কাছে।

৫. বিমূর্ত শব্দ এড়িয়ে চলুন

....বিশেষ করে এগুলোকে মাঝে মাঝে বলা হয়ে থাকে “মনোনীতকরণ” বা আরো ভালোভাবে বললে- “জম্বি নাউন বা ভৌতিক বিশেষ্য” বলা যায়।

এগুলো অনেক বেশি প্রাণহীন শব্দ যেমন ‘ঘটনা’, ‘ফেনোমেনা’, ‘স্তর’ বা ‘পর্যবেক্ষণ’।

ফেনোমেনা শুনতে আসলে কেমন শোনায়? পর্যবেক্ষণকে কিভাবে অনুভব করা যায়?

প্রাতিষ্ঠানিক, আমলাতান্ত্রিক এবং অন্যান্য প্রাচীন লেখার ধরনে এমন শব্দের প্রাচুর্য থাকে।

এর পরিবর্তে স্পষ্টভাবে কল্পনা করা যায় এবং নির্দিষ্টভাবে বিষয়বস্তুকে তুলে ধরে এমন শব্দ বাছাই করা উচিত।

৬. নিজের লেখাটি জোরে জোরে পড়ুন

শুধু নিজে নিজে লেখা, পুনরায় লেখা এবং সম্পাদনাই যথেষ্ট নয়, বরং জোরে জোরে পড়ুন।

যখন আপনি পড়বেন তখন আপনি বুঝতে পারবেন যে, লেখার সময় আসলে আপনি কোন ধরনের শব্দটি ভুলে গেছেন বা মিস করেছেন।

যদি এটা বলতে কষ্ট হয়, তাহলে এটা পড়তেও কষ্ট হবে।

এছাড়া কোথায় ছন্দপতন হয়েছে সেটিও আপনি সহজেই ধরে ফেলতে পারবেন।

৭. দৃঢ়ভাবে শেষ করুন

শেষের জন্য আপনার জানা সবচেয়ে শক্তিশালী শব্দ বা বাক্য গুচ্ছ ব্যবহার করুন।

আপনি কি ধরনের শব্দ বাছাই করছেন সেদিকে খেয়াল রাখুন। এমনকি শক্তিশালী, বা জোর রয়েছে এমন সিলেবল দিয়ে শেষ করার চেষ্টা করুন।

শেষের শব্দগুলোই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

এটা আমাদের কথা শুনে বিশ্বাস না করলেও আইরিন নেমিরভস্কির কথা তো নিশ্চয়ই এড়িয়ে যেতে পারবেন না।

নিজের রচনা স্যুট ফ্রেঞ্চাইজিতে তিনিও একই কথা বলেছেন। বিবিসি।

আইন মেনে চললে দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইটিভির সাবেক চেয়ারম্যান সালামের মামলা বাতিল পিইসি পরীক্ষায় শিক্ষার্থী বহিষ্কার কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট বিএনপি নেতাদের বাড়ি ঘেরাও হচ্ছে না কেন: গয়েশ্বর শফিকুরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা অপরাধীরা মোবাইল ব্যাংকিং চ্যানেল ব্যবহারে করছে: দুদক চেয়ারম্যান সড়ক আইন প্রয়োগে বাড়াবাড়ি না হলে সমস্যা হবে না: কাদের পুঁজিবাজারে সব ধরনের সূচকের উত্থান ‘চাল নেই লবণ নেই বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি গোষ্ঠী’ বুরকিনা ফাসোতে পুলিশের অভিযানে ১৮ জিহাদি নিহত জীবনযাত্রায় বদল এনে নিয়ন্ত্রণে রাখুন রক্তচাপ সশস্ত্র বাহিনী দিবসে শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা তিনদিনব্যাপী ‘শালুক’-এর নিবিড় সম্মিলন শুরু শুক্রবার ভারতের সাথে ১০০ কোটি ডলারের নৌ-অস্ত্র চুক্তি যুক্তরাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসে কর্মবিরতি প্রত্যাহার মালিক-শ্রমিকদের চেকপোস্টে ডাকাতের হামলা, ৪ পুলিশ আহত মেলায় রাজস্ব আদায় ২৬১৩ কোটি টাকা রাজধানী সুপার মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে ময়মনসিংহে এক বাড়িতেই ৭ হাজার কেজি লবণ ট্রান্সফাররেবল এলসির সঠিক ব্যবহারে বায়িং হাউজের দক্ষতা বাড়ানো জরুরী জনগণকে শাস্তি দেবেন না প্লিজ: কাদের কাউন্সিলর সাঈদের বিরুদ্ধে মামলা সৈয়দ নূরুল আলমের ‘আমার জীবন ও উন্নয়নের ৪৪ বছর’ টিকাটুলিতে রাজধানী সুপার মার্কেটে ভয়াবহ আগুন শিগগিরই ২২১ বন্ড লেনদেনযোগ্য হবে দেশের মানুষ এখন খোলা জেলে বন্দী: মির্জা আব্বাস ধর্মঘটের প্রভাব চালের বাজারে পড়বে না: খাদ্যমন্ত্রী বায়ুদূষণে শীর্ষে ঢাকা, ২৫ নভেম্বর আন্তমন্ত্রণালয় সভা চট্টগ্রামে পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানা: ২০ অস্ত্রসহ ‘ডাকাত সর্দার’ গ্রেপ্তার ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক