artk
শুক্রবার, অক্টোবার ১৮, ২০১৯ ৬:২১   |  ৩,কার্তিক ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

শুক্রবার, সেপ্টেম্বার ২০, ২০১৯ ৭:৪০

মাদকাসক্ত চালকদের ধরতে পরীক্ষা করা হবে

media

ফাইল ফটো

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মাদকাসক্ত চালকদের ধরতে ঢাকার সড়কে ডোপ টেস্টের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের যৌথসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে এটি কার্যকর হবে।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মাদকাসক্ত চালকদের ধরতে ঢাকার সড়কে ডোপ টেস্টের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের যৌথসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে এটি কার্যকর হবে।

উদ্যোগটি ভালো সন্দেহ নেই; তবে সড়ক দুর্ঘটনা যেহেতু শুধু রাজধানীতে সীমাবদ্ধ নয়, সারা দেশেই এটি উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে, সেহেতু এ কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে দেশের সব মহাসড়কে চালু করা উচিত বলে মনে করি আমরা।

সড়ক দুর্ঘটনার একটি বড় কারণ চালকের মাদকাসক্তি। ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক খন্দকার এনায়েত উল্যাহর মতে, রাজধানীর ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ বাস চালকই মাদকাসক্ত।

মাদকাসক্ত চালকদের বাস চালানো প্রতিরোধ করা জরুরি বটে। এ লক্ষ্যেই সড়কে চালকদের মূত্র পরীক্ষা বা ডোপ টেস্ট করা হবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে।

পরীক্ষায় মাদকাসক্ত প্রমাণিত হলে ওই চালকের লাইসেন্স বাতিল করা হবে এবং তাকে সরাসরি জেলে পাঠানো হবে। কাজেই চালকদের এ ব্যাপারে সতর্ক করে দিতে মালিকদের এখনই তৎপর হতে হবে।

ডোপ টেস্টের পাশাপাশি দুর্ঘটনার অন্য কারণগুলোও দূর করা প্রয়োজন। রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনার আরেকটি বড় কারণ চুক্তিতে বাস চালানো। মালিকদের এ প্রবণতার কারণে চালকরা সবসময় ‘টার্গেটের’ চাপে থাকেন। এর ফলে সৃষ্টি হয় অনাকাঙ্ক্ষিত প্রতিযোগিতা।

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি দুর্ঘটনা ঘটেছে এই বেপরোয়া প্রতিযোগিতার কারণে। সরকার ইতিপূর্বে চুক্তিতে বাস চালানো বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। কেন বাস্তবায়িত হয়নি তা আমাদের বোধগম্য নয়।

চুক্তিতে বাস চালানোর প্রবণতা কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা দরকার বলে মনে করি আমরা। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে এবং সড়ক পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে গত বছরের জুনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গুরুত্বপূর্ণ ছয় দফা নির্দেশনা দিয়েছিলেন।

নির্দেশনাগুলো হল- দূরপাল্লার গাড়িতে বিকল্প চালক রাখা, একজন চালকের পাঁচ ঘণ্টার বেশি গাড়ি না চালানো, চালক ও তার সহকারীর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, নির্দিষ্ট দূরত্ব পরপর সড়কের পাশে সার্ভিস সেন্টার বা বিশ্রামাগার তৈরি করা, অনিয়মতান্ত্রিকভাবে রাস্তা পারাপার বন্ধ করা বা সিগন্যাল মেনে পথচারী পারাপারে জেব্রা ক্রসিংয়ের ব্যবহার এবং চালক ও যাত্রীদের সিটবেল্ট বাঁধা নিশ্চিত করা। এসব নির্দেশনার বাস্তবায়নেও নিতে হবে কার্যকর পদক্ষেপ।

বাংলাদেশে পাবজি গেম নিষিদ্ধ তাজরিন ফ্যাশনে ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন ‘আমি মায়ের কাছে যাবো’ সিলেট বিএনপির কমিটিতে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ না করার ওয়াদা তারেক রহমানের ঐক্যের ডাক গ্রামে নিয়ে যেতে হবে: ড. কামাল সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত ভুল বোঝাবুঝির কারণে সীমান্তে গোলাগুলি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নওয়াপাড়ায় বাসের ধাক্কায় দুই পথচারীর মৃত্যু আবরার দেশপ্রেমিক জনগণের আন্দোলনের মূর্তপ্রতীক: রিজভী ১ মিটার প্রস্থের বাড়ি শাহ আমানতে ১৩০ সোনার বারসহ যাত্রী আটক সাভারে গাড়ির ধাক্কায় যুবক নিহত জবির বিজ্ঞান বিভাগের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ গণভবনে কেন ডাকা হয়নি ওমর ফারুককে পঞ্চগড়ে রাস্তার ধারে ফুটফুটে শিশু ছাত্র রাজনীতি সূর্যের আলো ঠিকরে পড়ে প্রবালে জয়পুরহাটে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১ টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহত কম বয়সে মেনোপজে বাড়ে হৃদরোগের সম্ভাবনা ময়মনসিংহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ব্যক্তি নিহত স্বনির্ভর হতে লেগেছে ৬৯ বছর, এরপর বিয়ে মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলেকে মারধরের নালিশ দেয়ায় কৃষককে পিটিয়ে হত্যা হাব সভাপতিকে ‘ধমক’ দিলেন ধর্ম সচিব স্পর্শকাতর জায়গা থেকে মোবাইল টাওয়ার সরানোর নির্দেশ ব্রেক্সিট চুক্তিকে ‘ক্ষতিকর’ বললেন টিউলিপ নতুন ব্রেক্সিট চুক্তি চূড়ান্ত: জনসন ছেঁড়া জিন্স পরে ট্রোলের শিকার সারা ইমরান খানের বিরুদ্ধে সাবেক স্ত্রী রেহাম খানের অভিযোগ যে কোনো মূল্যে পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী