artk
শনিবার, ডিসেম্বার ১৪, ২০১৯ ৭:১৫   |  ৩০,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

বুধবার, সেপ্টেম্বার ১৮, ২০১৯ ৫:৪৬

দুদক কাঙ্খিত জনআস্থা অর্জনে ব্যর্থ: ইকবাল মাহমুদ

media

চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তার কাজ কর্মের মাধ্যমে কাঙ্খিত মাত্রার জনআস্থা অর্জন করতে পারেনি। তাই নাগরিকদের আস্থা অর্জনের উদ্দেশ্যেই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তার কাজ কর্মের মাধ্যমে কাঙ্খিত মাত্রার জনআস্থা অর্জন করতে পারেনি। তাই নাগরিকদের আস্থা অর্জনের উদ্দেশ্যেই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

বুধবার দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে ইউনাইটেড ন্যাশনস অফিস অন ড্রাগস এন্ড ক্রাইম (ইউএনওডিসি) এর দক্ষিণ এশিয়ার প্রতিনিধি ড. সুরুচি পান্টের নের্তৃত্বে তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে এক বৈঠকে মিলিত হন। এ বৈঠকে ইকবাল মাহমুদ এ কথা বলেন। 

শুরুতেই ইকবাল মাহমুদ প্রতিনিধি দলটিকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ইউএনওডিসির যেসব প্রশিক্ষণ এবং সেমিনার-সিম্পেজিয়ামের আয়োজন করছে তাতে দুদক কর্মকর্তারা সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছে। এতে তারা উপকৃত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের কার্যক্রমে সরকার বা কোনো রাজনৈতিক দল প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে না, যা আমাদের বড় শক্তি। আমাদের বড় সমস্যা হচ্ছে যে, দুদক তার কাজ কর্মের মাধ্যমে কাক্ষিত মাত্রার জনগনের আস্থা অর্জন করতে পারেনি। তাই নাগরিকদের আস্থা অর্জনের উদ্দেশ্যেই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিশেষজ্ঞদের মতে আগামীতে যে ১১টি দেশ বিশ্ব অর্থনীতির নেতৃত্ব দিবে তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি। বিশ্ব অর্থনীতির নেতৃত্ব দিতে হলে দেশের সম্ভাবনাময়  তরুণ প্রজন্মকে মানবসম্পদে পরিণত করার কোনো বিকল্প নেই। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় (এসডিজি) উল্লেখিত গুণগত শিক্ষার মাধ্যমেই জনতাত্ত্বিক লভ্যাংশ পাওয়া যেতে পারে। সক্ষম মানবসম্পদ সৃষ্টি করা না গেলে জনতাত্ত্বিক লভ্যাংশ পাওয়ার সুযোগ সীমিত। ঠিক এ কারণেই কমিশন শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় দুর্নীতি দমন, প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে যে সব দুর্নীতি সংঘটিত হয় তা নিয়ন্ত্রণ করা আমাদের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। অপরাধীরা এমনভাবে প্রযুক্তি ব্যবহার করে যা নিয়ন্ত্রণ করা চ্যালেঞ্জিং উক্তি করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অবৈধ অর্থের লেনদেন হচ্ছে কিনা তা মনিটরিংয়ের জন্য কমিশন তাদের ডাটাবেজে প্রবেশের অনুমতি পেয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ও দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিতভাবে এবং প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে ট্রেড বেইজড মানিলন্ডারিংসহ সব প্রকার অবৈধ লেনদেন নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। অর্থ পাচার বন্ধ করতে হলে এসব প্রতিষ্ঠানের সমন্বিত উদ্যোগের কোনো বিকল্প নেই। যারা জাল-জালিয়াতি করে ব্যাংক ঋণ গ্রহণ করছেন তারাই ওভার-ইনভয়েসিংয়ের মাধ্যমের মানিলন্ডারিং করছেন বলে আমাদের ধারণা। তাই সবার সমন্বিত উদ্যোগের প্রয়োজন।

তিনি বলেন, কমিশন উত্তম চর্চার বিকাশ, তথ্য বিনিময়, দুর্নীতি দমনে কৌশল নির্ধারণসহ বিভিন্ন ইস্যুতে পারস্পরিক সহযোগিতার জন্য ভুটান, রাশিয়া ও ভারতের দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাসমূহের সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে। আরো বেশ কয়েকটি দেশের এ জাতীয় সংস্থার সাথে সমঝোতা স্বাক্ষরে বিষয়গুলো প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তাদের সক্ষমতা কাক্ষিত পর্যায়ে আনার জন্য দেশে বিদেশে নিবিড় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রশিক্ষণের নামে বিদেশ সফর মুখ্য বিষয় হতে পারে না। আপনাদের প্রত্যাশা রিসোর্স পারসনরা বাংলাদেশে এসে কমিশনের কমকর্তাদের প্রশিক্ষণ দিতে পারেন। এক্ষেত্রে কমিশন স্থানীয়ভাবে যানবাহন ও লোকাল হসপিটালিটিসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচাদি বহন করতে পারে।  

দুর্নীতি দমন কমিশনের অভ্যন্তরীণ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতকল্পে শূন্য সহিষ্ণুতার নীতি অবলম্বন করছে এমন মন্তব্যে করে তিনি বলেন, এরই মধ্যে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। কমিশনের অভ্যন্তরে দুর্নীতি করে কেউ পার পাবে না।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, নৈতিকতাবিহীন উন্নয়ন কখনও কখনও অর্থহীন হয়ে যেতে পারে। তাই কমিশন ভবিষ্যৎ  প্রজন্মকে সততা ও নৈতিকমূল্যবোধ সম্পন্ন নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে দেশের প্রায় ২৮ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সততা সংঘ গঠন করেছে। এসব সততা সংঘের সদস্যদের মাধ্যমে কমিশনের অর্থায়নে দুর্নীতিবিরোধী এবং তাদেরকে পরিশুদ্ধ জীবন যাপনে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

তিনি বলেন, সততা ও নৈতিকতা নিবিড় চর্চার বিষয়। তাই নৈতিক চর্চার প্রাত্যহিক অনুশীলনের উদ্দেশ্যে সততা সংঘ রয়েছে এমন প্রায় ৪ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সততা স্টোর স্থাপন করা হয়েছে। এসব স্টোরে বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ, চিপস্, চকলেটসহ বিভিন্ন দ্রব্য সামগ্রী রয়েছে। শিক্ষার্থীরা এসব পণ্য কিনে নির্ধারিত মূল্য পরিশোধ করছে। এসব সততা স্টোরে অনৈতিকতার কোন অভিযোগ আজ পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। যা কমিশনকে আশান্বিত করছে।

এসময় ড. সুরুচি পান্ট বলেন, ইউএনওডিসির অর্থায়নে পরিচালিত প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও টারসিয়ারি পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নৈতিকতা বিকাশে “এডুকেশন ফর জাস্টিস” কর্মসূচির সাথে দুদকের এসব কর্মসূচির মিল রয়েছে। এ কর্মসূচি গেমসসহ বিভিন্ন বিনোদেনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নৈতিকতার বিকাশে কাজ করছে। বাংলাদেশে পাইলটিং হিসেবে এর কার্যক্রম পরিচালনা করা যেতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন। 

তিনি বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের এসব কার্যক্রম অনুশীলনযোগ্য। টেকনিক্যাল সহযোগিতার মাধ্যমে কমিশনের প্রযুক্তিগত সক্ষমতা বিকাশে ইউএনওডিসি কাজ করতে পারে।  

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউএনওডিসির বাংলাদেশে নিযুক্ত প্রোগ্রাম অফিসার (টেররিজম প্রিভেনশন) মেরিনা ইয়াকুনিনা, দুদকের প্রশিক্ষণ ও তথ্য প্রযুক্তি অনুবিভাগের মহাপরিচালক এ কে এম সোহেল প্রমুখ।

 

ভারত আমাদের জায়গা না দিলে কোথায় যাব: প্রশ্ন রূপা গাঙ্গুলীর মোশতাক, জিয়ার মতো মীরজাফররা আর যেন ক্ষমতায় না আসে: হাসিনা প্রকাশ্যে এলো মিথিলা-সৃজিতের মধুচন্দ্রিমার ছবি মাহমুদউল্লাহ ফেরার ম্যাচে চট্টগ্রামের জয় খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা কবির মুরাদ আর নেই শর্তসাপেক্ষে তামাবিল দিয়ে ভারতে যাওয়া শুরু ‘ঢাকার বাস দেখলে লজ্জা লাগে’ রুম্পাকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায়নি: চিকিৎসক দৈনিক সংগ্রাম সম্পাদক ৩ দিনের রিমান্ডে বিসিবির খাবার খেয়ে ২৫ সাংবাদিক অসুস্থ নাঈমের ঝড়ে রংপুরের সংগ্রহ ১৫৭ সংগ্রাম সম্পাদকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ভারতের এনআরসি বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের জন্য হুমকি: ফখরুল সংগ্রাম পত্রিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত : ওবায়দুল কাদের তরুণ ক্রীড়া সাংবাদিক অর্ণবের অকাল মৃত্য মাহমুদউল্লার ফেরার ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে চট্টগ্রাম ‘ভারত বাঁচাও’ সমাবেশের ডাক কংগ্রেসের নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে মুর্শিদাবাদ ও উত্তর ২৪ পরগনায় ট্রেন-সড়ক অবরোধ মুসলিমবিদ্বেষী আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে বিক্ষোভ বিনিয়োগে ঝুঁকির মাত্রা কমেছে মূলধন কমেছে ৮৬৭৭ কোটি টাকা, সূচকেও পতন শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে জনতার ঢল টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ ইয়াবা কারবারি নিহত সা’দত আল-মাহমুদের দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ভিটামিন ডি-এর চাহিদা পূরণ করবেন কিভাবে? খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের অনশন তিনদিনের জন্য স্থগিত মঙ্গলে অদ্ভূত অক্সিজেন বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ভারতের নাগরিকত্ব আইনের সংশোধন চায় জাতিসংঘ