artk
৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ১:০০ অপরাহ্ন

শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রে বারে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ১৩

বিদেশ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৭৩৮ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ০৮ নভেম্বর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ০৮১৫ ঘণ্টা, শুক্রবার ০৯ নভেম্বর ২০১৮


যুক্তরাষ্ট্রে বারে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ১৩ - বিদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি বারে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্তত ১৩ জন নিহত হয়েছেন।

বুধবার (৭ নভেম্বর) স্থানীয় সময় দিবাগত রাতে ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে এ ঘটনা ঘটে।

থাউজেন্ড ওকস এলাকার বর্ডার লাইন বার অ্যান্ড গ্রিল নামের ওই বারে এঘটনায় ভেনচুরা কাউন্টি শেরিফের একজন সার্জেন্ট ও গানম্যানও নিহত হয়েছেন।

ওই হামলায় কমপক্ষে আরও ১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ভেনচুরা কাউন্টি শেরিফ জিওফ ডিন।

তিনি আল জাজিরাকে বলেন, বারটির ভেতরের চিত্র মর্মন্তিক ও বিভৎস। এর মেজে রক্তে ভেসে গেছে। হামলার সময় দক্ষিণ ক্যালিফোরনিয়ার ওই বারটিতে কলেজ শিক্ষার্থীদের ভীড় ছিল বলে জানান শেরিফ।

শেরিফ জিওফ ডিন জানান, বৃহস্পতিবার সার্জেন্ট রন হিলাস ওই ঘটনার সময় সেখানে বন্দুকধারীর গুলিতে আহত হন। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে তিনি মারা যান।

ওই ঘটনায় হামলাকারীও মারা গেছেন বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে তিনি কিভাবে মারা যান এবং তার পরিচয় কি- তা জানাতে পারেননি।

ভেনচুরা কাউন্টি অফিসের এক কর্মকর্তা জানান, লস অ্যান্জেলস থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরের ওই বারটিতে হামলার প্রথম খবর আসে রাত ১১টা ২০ মিনিটে। বারটি মূলত, পানীয় ও গ্রিল এর জন্য বিখ্যাত।

ভেঞ্চুরা কাউন্টির শেরিফ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছায়। এ সময়ও গুলি চলছিল। পরে পুলিশের সঙ্গেও বন্দুকধারীর গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ বলছে, হামলার সময় ওই বারটিতে কমপক্ষে ২০০ জন মানুষ ছিল।

থাউজেন্ড ওকস শহরের মেয়র অ্যান্ডি ফক্সের দাবি, তার শহর যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপদ শহরগুলোর মধ্যে অন্যতম।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা বিশ্বের যে কোনো জায়গায় যে কোনো সময় ঘটতে পারে। এমনকি সম্পূর্ণ নিরাপদ স্থানেও এমন ঘটনা ঘটা অস্বাভাবিক নয়।’ 

ওই বার কর্তপক্ষের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, প্রতি বুধবার রাতে ওই বারটিতে ‘কলেজ কাউন্টি নাইট’ নামে একটি পার্টি চলে। হামলার সময় ওই পার্টি চলছিল।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত