artk
৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৪৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম

গুলশান-ধানমন্ডিতে বিলাসবহুল ভবন নির্মাণ করবে ইস্টার্ণ হাউজিং

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৬২৬ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ০৮ নভেম্বর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ২০০৮ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ০৮ নভেম্বর ২০১৮


গুলশান-ধানমন্ডিতে বিলাসবহুল ভবন নির্মাণ করবে ইস্টার্ণ হাউজিং - অর্থনীতি

অত্যাধুনিক ও বিলাসবহুল ভবন নির্মাণের লক্ষ্যে ধানমন্ডিতে ২০ কাঠা এবং গুলশানে ১০ কাঠা জমি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইস্টার্ণ হাউজিংয়ের চেয়ারম্যান মনজুরুল ইসলাম। এছাড়া ৩২১ একর জমিতে জহুরুল ইসলাম সিটি-২ তৈরির প্রকল্পের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার মহাখালীর রাওয়া কনভেনশন হলে ইস্টার্ণ হাউজিংয়ের ৫৪তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। সভায় অংশ নেয়া শেয়ারহোল্ডাররা কোম্পানির দেয়া ডিভিডেন্ডে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এবং এই ধারা অব্যাহত রাখার ওপরে জোর দেন।

পরে শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতিক্রমে ২০১৭-১৮ সমাপ্ত বছরে জন্য পূর্ব ঘোষিত ২৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড এজেন্ডা অনুমোদন হয়েছে। এজিএমে অন্য আলোচ্যসূচিগুলো (এজেন্ডা) অনুমোদিত হয়।

আলোচ্যসূচিগুলো হলো- সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক বিবরণী অনুমোদন, পরিচালক নিয়োগ, নিরীক্ষক নিয়োগসহ নিরীক্ষক সন্মানি (বেতন) নির্ধারন এজেন্ডা অনুমোদন। এছাড়া ব্যবসার পরিচালনা স্বার্থে চেয়ারম্যানের সম্মতিতে যেকোন সিদ্ধান্তের আগাম অনুমতি এজেন্ডা অনুমোদন।

মনজুরুল ইসলাম বলেন, “ফ্ল্যাটের নিবন্ধন খরচের উচ্চ হার সত্বেও সীমিত আয়ের ক্রেতা তাদের বাড়ি ভাড়া দেয়ার চেয়ে ফ্ল্যাট বুকিংয়ের দিকে আগ্রহ বেশি দেখাচ্ছে। তবে এটা সত্যি যে, নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য বৃদ্ধির কারণে অ্যাপার্টমেন্ট ব্যবসার পরিধি বর্তমানে সঙ্কুচিত হয়ে এসেছে। এই প্রতিকূল অবস্থাতেও ইস্টার্ণ হাউজিং ফ্ল্যাট নির্মাণে গুণগত মানের দিক দিয়ে কোনো আপস করছে না।”

তিনি আরও বলেন, “এ ধারায় আলোচ্য বছরে আমরা আফতারনগর, পল্লবী এবং সাভারে মোট ৭৭.৮৬ বিঘা জমি ক্রয় করেছি। এছাড়া আমরা ৪০৩টি প্লট ও ৩৭টি ফ্ল্যাট বিক্রয় করেছি, যার মূল্য দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩৯৬ কোটি টাকা। আবার অত্যাধুনিক ও বিলাসবহুল ভবন নিমার্ণ করার লক্ষ্যে ধানমন্ডিতে ২০ কাঠা এবং গুলশানে ১০ কাঠা জমি নেয়া হয়েছে।”

মনজুরুল ইসলাম বলেন, “আলোচ্য বছরে জহুরুল ইসলাম সিটি প্রকল্প এলাকায় প্রায় তিন কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। আরো চলমান রয়েছে। ওই প্রকল্পে বৈদ্যুতিক খুঁটি এবং বৈদ্যুতিক তার লাগানোর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ওই বছরে তিন প্রকল্প এলাকায় ৩৭.৯৫ বিঘা জমির উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানে ১০টি অ্যাপার্টমেন্টের নির্মান কাজ এগিয়ে চলছে।”

রাজধানীর এয়ারপোর্ট এলাকার উত্তরখানে স্বল্প খরচে ২৫০টি এপার্টমেন্ট প্রকল্প শুরু করা হবে বলেও জানান ইস্টার্ণ হাউজিংয়ের চেয়ারম্যান।

এসময় এজিএমে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক সুরাইয়া বেগম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ধিরাজ মালাকার, সচিব সেলিম আহমেদ প্রমুখ।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএজেড/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য