artk
৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ১:১০ অপরাহ্ন

শিরোনাম

অসুস্থ খালেদাকে বেআইনিভাবে আদালতে নেয়া হয়েছে: ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৬১২ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ০৮ নভেম্বর ২০১৮


অসুস্থ খালেদাকে বেআইনিভাবে আদালতে নেয়া হয়েছে: ফখরুল - রাজনীতি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে নাইকো দুর্নীতি মামলার শুনানিতে আদালতে হাজির করার বিষয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “অসুস্থ খালেদা জিয়াকে সরকার জোর করে ও বেআইনিভাবে হাসপাতাল থেকে আদালতে নেয়া হয়েছে।”

বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে নাইকো মামলার অভিযোগ গঠনের আংশিক শুনানি হওয়ার পর বাইরে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের এ কথা বলেন ফখরুল। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন মামলার আসামি ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ আইনজীবীরা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “অসুস্থ খালেদা জিয়াকে সরকার জোর করে ও বেআইনিভাবে হাসপাতাল থেকে আদালতে নেওয়া হয়েছে।মেডিকেল বোর্ড বলেছে, তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। আর মেডিকেল বোর্ড তাকে হাসপাতাল থেকে ডিসচার্জ সার্টিফিকেট (ছাড়পত্র) দিয়েছে বলে আমাদের জানা নেই, অন্য কাউকে দিয়ে ছাড়পত্র তৈরি করেছে সরকার। সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে এ কাজ করেছে। এর তীব্র নিন্দা জানাই।”

ফখরুল অসুস্থ খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও তার মুক্তির জোর দাবি জানান।

এর আগে, বেলা ১১টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি প্রধানকে সেখান থেকে বের করে কালো রঙের একটি গাড়িতে করে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। ১১টা ৩৫ মিনিটের দিকে কারাগারে ঢোকে খালেদাকে বহনকারী গাড়িটি। বেলা পৌনে ১২টার দিকে কারাগারে স্থাপিত আদালতে তোলা হয় খালেদা জিয়াকে।

বৃহস্পতিবার শুনানি মুলতবির আদেশের পর হুইল চেয়ারে চড়িয়েই খালেদাকে ফের কারাগারে ঢোকানো হয়।

নাইকো দুর্নীতি মামলার বিচার এর আগে বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থপিত আদালতে হতো। তবে বৃহস্পতিবার আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি শুরু হওয়ার আগে গত বুধবার (৭ নভেম্বর) কারাগার ভবনে ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাস বসানোর আদেশ জারি হয়।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য