artk
৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শনিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৯:১৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম

তুরস্কের কাছে খাশোগি হত্যার অডিও রেকর্ড চায় যুক্তরাষ্ট্র

বিদেশ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২৫৮ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১৮ অক্টোবর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৩৫৬ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১৮ অক্টোবর ২০১৮


তুরস্কের কাছে খাশোগি হত্যার অডিও রেকর্ড চায় যুক্তরাষ্ট্র - বিদেশ

তুরস্কের সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর থেকেই নিখোঁজ হন সাংবাদিক জামাল খাশোগি। তুরস্ক বলছে, কনস্যুলেট ভবনেই খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত অডিও রেকর্ড তাদের কাছে রয়েছে।

এবার ঘটনার প্রমাণস্বরূপ সেই অডিও রেকর্ড তুরস্কের কাছে চাইল যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউজে সাংবাদিকদের বলেছেন, “আমরা এটা চেয়েছি, যদি এর অস্তিত্ব থাকে।”

গত ২ অক্টোবর সৌদি কনস্যুলেট ভবনে ঢোকার পর সাংবাদিক খাশোগিকে আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। তুরস্কের দাবি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। তবে প্রথম থেকেই এ দাবি অস্বীকার করে আসছে সৌদি। অভিযোগ রয়েছে, এ ঘটনার পরও সৌদির পক্ষে সাফাই গাইছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ট্রাম্প এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এদিকে খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার পর তার লেখা সর্বশেষ কলামটি প্রকাশ করেছে ওয়াশিংটন পোস্ট। ওই কলামের বিষয়বস্তু ছিল ‘মধ্যপ্রাচ্যে স্বাধীন গণমাধ্যমের ভূমিকা’। খাশোগি ওয়াশিংটন পোস্টে নিয়মিত কলাম লিখতেন।

সৌদি আরব ওয়াশিংটনের অনেক পুরনো মিত্র বলে পরিচিত। তবে সাংবাদিক খাশোগির নিখোঁজের ঘটনায় সেই সম্পর্ক ভাঙনের মুখে পড়েছে। এমতাবস্থায় তুরস্কের কাছে অডিও রেকর্ড চাইল যুক্তরাষ্ট্র।

অডিও রেকর্ড চাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, “এ বিষয়ে রেকর্ড আছে বলে আমি নিশ্চিত নই। সম্ভবত থাকতে পারে, সম্ভবত থাকতে পারে।”

অডিও রেকর্ডের বরাত দিয়ে অজ্ঞাত একটি সূত্র বলছে, গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর হত্যা করা হয় খাশোগিকে। এ সময় খাশোগির হাতে অ্যাপল ওয়াচের রেকর্ডিং চালু ছিল। মৃত্যুকালীন অ্যাপল ওয়াচের রেকর্ডকৃত কথোপকথন তাদের হাতে এসেছে।

সূত্রটির বিবরণ অনুযায়ী, খাশোগিকে টেনেহিঁচড়ে কনসাল জেনারেলের অফিস থেকে পাশের রুমের একটি টেবিলের কাছে নেয়া হয় এবং সেখানেই তাকে টুকরো টুকরো করা হয়। অডিও রেকর্ডে খাশোগির চিৎকার শোনা গেছে। তার চিৎকার বন্ধ করতে শরীরে চেতনানাশক ওষুধের ইনজেকশন দেয়া হয় এবং এর কিছুক্ষণ পর তিনি নীরব হয়ে যান।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য