artk
৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮, ১:২৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

তারেক রহমানের ফাঁসি হওয়া উচিত ছিল: আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৬৩৬ ঘণ্টা, বুধবার ১০ অক্টোবর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৬৫০ ঘণ্টা, বুধবার ১০ অক্টোবর ২০১৮


তারেক রহমানের ফাঁসি হওয়া উচিত ছিল: আইনমন্ত্রী - রাজনীতি

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, “ভয়াবহ এ হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন ওই সময়ের প্রধানমন্ত্রীর ছেলে তারেক রহমান। আমরা তার সর্বোচ্চ সাজা ফাঁসি চেয়েছিলাম। মামলার নথিপত্র পর্যালোচনায় তার ফাঁসি হওয়াই উচিত ছিল।”

বুধবার রায় ঘোষণার পর আইনমন্ত্রী নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

এর আগে দুপুরে রাজধানীর নাজিমুদ্দিন রোডে পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের মূল ফটকের সামনের লাল দালানে স্থাপিত ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালত এ মামলার রায় দেন। রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন। এ ছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। ৪৯ আসামির মধ্যে বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, “মোটের ওপর আমরা এ রায়ে খুশি। যেখানে দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি চালু হয়েছে, সেখানে এ রায় আমাদের খুশি করেছে। তারেক রহমানের নির্দেশেই এ মামলার তদন্ত ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করা হয়েছে। জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছে। মামলার আলামত নষ্ট করা হয়েছে।”

আইনমন্ত্রী বলেন, “তারেক রহমান মূলত আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছেন। তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এ গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছিল। এতে কোনো সন্দেহ নেই।”

এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন কি না জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, “আমরা রায়ের কপি পর্যালোচনা করে তারপর সিদ্ধান্ত নেব, তারেক রহমানের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আপিল করা হবে কি না। এ জন্য আমাদের কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।”

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় ফাঁসির আসামির মধ্যে আরও রয়েছেন- সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু, ডিজিএফআইর সাবেক মহাপরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী এবং জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) তখনকার মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবদুর রহিম, মাইন উদ্দিন শেখ ওরফে মুফতি মাইন ওরফে খাজা ওরফে আবু জানদাল ওরফে মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন- বিএনপিদলীয় সাবেক সাংসদ শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন কায়কোবাদ, খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী প্রমুখ। খালেদা জিয়ার ভাগ্নে লেফটেন্যান্ট কমান্ডার (অব.) সাইফুল ইসলাম ডিউকসহ বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত