artk
৪ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ৭:২২ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

আমরা ন্যায় বিচার পাইনি: আসামি পক্ষের আইনজীবী

| নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৬১৪ ঘণ্টা, বুধবার ১০ অক্টোবর ২০১৮


আমরা ন্যায় বিচার পাইনি: আসামি পক্ষের আইনজীবী - জাতীয়

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ লুৎফুজ্জামান বাবর- আবদুস সালাম পিন্টুর সাজা হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন এ মামলায় আসমি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া।

বুধবার এ মামলার রায়ে ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, ১৯ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকী ১১ জনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।

রায়ের পর সাংবাদিকদের সামনে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, “বিএনপির যেসব নেতাদের আসামি করা হয়েছে তারা কেউ এ হামলায় জড়িত নয়। আবদুস সালাম পিন্টুর বাসা থেকে কোনও সাক্ষী এসে এ মামলার সাক্ষ্য দেয় নাই। তারা সেখানে বসে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা করেছে, তার কোনো সাক্ষী নাই। এ মামলায় আমরা ন্যায় বিচার পাইনি।”

তিনি আরও বলেন, “মুফতি হান্নান রিমান্ডে যে জবানবন্দি দিয়েছেন সে জবানবন্দি তিনি প্রত্যাহার করে বলেছেন, তারেক রহমান বা বিএনপি নেতাদের সঙ্গে তার কোনদিন দেখাই হয়নি। অথচ আজকে অন্যায়ভাবে, বেআইনিভাবে তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন দেওয়া হয়েছে। লুৎফুজ্জামান বাবর এবং আবদুস সালাম পিন্টুসহ বিএপির বহু নেতাকে এ মামলায় ফাঁসি দেয়া হয়েছে।”

বিএনপির এ আইনজীবী বলেন, “তারেক রহমান যখন বাংলাদেশে ফিরে আসবেন তখন আমরা অবশ্যই এ মামলায় আপিল করব।”

তিনি বলেন, “আমরা আশা করেছিলাম এ মামলায় তারেক রহমানসহ বিএনপির নেতারা খালাস পাবেন। আপনারা মনে রাখবেন, এ মামলায় বিএনপির আমলে যে চার্জশিট দিয়ে তদন্ত করেছে সেই তদন্তের ভিত্তিতে মুফতি হান্নান এবং অন্যান্যদের গ্রেপ্তার করেছে। সেই তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে এ মামলার সাক্ষী হয়েছে। তারেক রহমান কোনো ধরনের ষড়যন্ত্র করেছেন, গোপন বৈঠক করেছেন এমন কোনো সাক্ষী নাই। অথচ তাকে আজকে অন্যায়ভাবে যাবজ্জীবন দেয়া হয়েছে। আমরা ন্যায় বিচার পাইনি। লুৎফুজ্জামান বাবর, আবদুস সালাম পিন্টু, হারিস চৌধুরীসহ আমাদের তারেক রহমান কোনো অন্যায় করে নাই। তারেক রহমান দেশের গণতন্ত্র রক্ষার জন্য, স্বাধীনভাবে দেশ পরিচালনা করার জন্য, আইনের শাসনের জন্য আজীবন সংগ্রাম করেছেন এবং আরও করে যাবেন।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত