artk
রোববার, জানুয়ারি ২০, ২০১৯ ১০:৩৮   |  ৭,মাঘ ১৪২৫

মাঈনুল ইসলাম নাসিম, পোল্যান্ড থেকে

সংবাদ ডেস্ক

শনিবার, জানুয়ারি ১৯, ২০১৯ ৯:২৩

পোল্যান্ডে অনারারি কনসাল হিসেবে ওমর ফারুকের পুনঃনিয়োগ

 39
media

দক্ষিণ পোল্যান্ডের সুপরিচিত কাতোভিচ অঞ্চলে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল হিসেবে পুনঃনিয়োগ পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশদ্ভুত পোলিশ নাগরিক ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুক। ২০১০ সালে প্রথম নিয়োগ প্রাপ্তির পর থেকে টানা আট বছর অভাবনীয় দক্ষতায় সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালনের স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশ সরকার পোল্যান্ডে নতুন করে নিয়োগ দিয়েছে এই মেধাবী পোলিশ-বাংলাদেশিকে।

বাংলাদেশ ও পোল্যান্ড উভয় দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ইস্যুকৃত বিশেষ অনুমোদনপত্র অতি সম্প্রতি ওমর ফারুকের হাতে তুলে দেন রাজধানী ওয়ারশতে দায়িত্বরত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহফুজুর রহমান। এ সময় রাষ্ট্রদূতের সাথে ছিলেন দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সারি অনির্বান নিয়োগী। অনারারি কনসাল হিসেবে নতুন করে দায়িত্ব পাবার প্রেক্ষিতে আগামী দিনে পোল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশকে আরো অর্থবহ পরিসরে মেলে ধরবেন ওমর ফারুক, এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করা হয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে।

বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পরপরই ১৯৭২ সালে ওয়ারশতে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রতিষ্ঠিত হবার পর টানা ৩০ বছর কার্যক্রম পরিচালিত হয়। কিন্তু ২০০২ সালে হঠাৎ করেই বন্ধ করে দেয়া হয় বাংলাদেশ দূতাবাস। ২০১৫ সালে ওয়ারশতে নতুন করে দূতাবাস প্রতিষ্ঠিত হবার আগে এক যুগেরও বেশি সময় সমগ্র পোল্যান্ডে বাংলাদেশের পতাকা বীরদর্পে একাই উড়িয়েছেন ওমর ফারুক। এর আগে আশির দশকে মস্কোতে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা শেষ করে পূর্ব ইউরোপের দেশ পোল্যান্ডে পাড়ি জমান তিনি।

২০০২ থেকে ২০১৪ পোল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাস না থাকলেও রাজধানী ওয়ারশ থেকে প্রায় আড়াইশ কিলোমিটার দূরবর্তী কাতোভিচ নগরীর স্বনামধন্য ও সফল ব্যবসায়ি ওমর ফারুক স্বীয় আন্তরিকতা ও একাগ্রতায় কাতোভিচ এবং রাজধানী ওয়ারশসহ পুরো দেশ জুড়ে মেলে ধরেন বাংলাদেশকে। ‘ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ’ থিমে বছরের পর বছর পোল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের কৃষ্টি-সংস্কৃতিকে অনুপমভাবে তুলে ধরেন স্থানীয় পোলিশ জনগণের স্বার্থক অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে। বাংলাদেশি তৈরি পোশাক শিল্পের বাজার দেশটিতে পাইয়ে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে সফল হন এই বিজনেস ম্যাগনেট।

কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ পোলিশ নাগরিক ওমর ফারুককে মূল্যায়ন করতে কার্পণ্য করেনি বাংলাদেশ সরকার। ২০১০ সালে তাকে নিয়োগ দেয়া হয় দেশটিতে অনারারি কনসাল হিসেবে। পোল্যান্ড-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক উত্তরণে নেদারল্যান্ডসের বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতা নিয়ে ‘খাঁটি দেশপ্রেমিক’ এই মানুষটি অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন বিগত বছরগুলোতে। ২০১৫ সালে ওয়ারশতে বাংলাদেশ দূতাবাস পুনঃপ্রতিষ্ঠার পর থেকে আজ অবধি দূতাবাসের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রক্ষা করেছেন বাংলাদেশের স্বার্থ।

গত বছরের শেষদিকে পোল্যান্ডের কাতোভিচে অনুষ্ঠিত বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে (কপ-২৪) অংশ নেয় বাংলাদেশের হাই-প্রোফাইল ডেলিগেশন। এতদঞ্চলের অনারারি কনসাল ওমর ফারুকের দূরদর্শিতা ও সক্রিয়তা বিশেষ সহায়ক ছিল বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে আসা বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের জন্য। 

অনারারি কনসাল হিসেবে ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুকের পুনঃনিয়োগ পোল্যান্ড-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে নবদিগন্তের সূচনা করবে বলে আশাবাদ পোল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশিদের।