artk
৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮, ১:২৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

শাহজালালে ২ কোটি টাকার সিগারেট ও ওষুধ জব্দ

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২০৭ ঘণ্টা, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৪১৩ ঘণ্টা, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮


শাহজালালে ২ কোটি টাকার সিগারেট ও ওষুধ জব্দ - জাতীয়
ছবি: রিপোর্টার

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আমদানি নিষিদ্ধ দুই লাখ শলাকা বিদেশি সিগারেট এবং আমদানি নিয়ন্ত্রিত ওষুধ জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা।

শুক্রবার দিবাগত রাত ৪টায় অভিযান চালিয়ে এসব পন্য জব্দ করা হয়।

শনিবার শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. সহিদুল ইসলাম নিউজবাংলাদেশকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সহিদুল ইসলাম জানান, জব্দকরা ১ হাজার কার্টনে বেনসন ৪৫৫ কার্টন, ইজি ৪৬০ কার্টন এবং ডানহিল ৮৫ কার্টন।
এছাড়া ওষুধগুলো কেনালগ ক্রিম ৪৬০ পিস, অ্যালারগান ড্রপ ১০০ পিস, কেনাকোম্ব ক্রিম ১৮০ পিস, অক্টানাট ইনজেকশন ৬০ পিস, রয়ান্টিনেক্স ট্যাবলেট- ৫ হাজার পিস, রিটাল ৬ হাজার পিস, আইক্লোগিস্ট- ৭৫০ পিস, জেনাক্স- ৫ হাজার ৮০০ পিস, অ্যাকোয়া এডি ৬৬ পিস, ভেনটোলাইন ৫০ পিস, প্লাভিক্স- ২ হাজার ৬৮৮ পিস, সিয়ারেল ১ হাজার পিস, স্টিলনক্স- ১ হাজার পিস, কেনাকোর্ট ৩৮৫ পিস, ক্যাভিনশন- ২ হাজার পিস। এছাড়া রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ৮ কেজি।

শারজাহ থেকে ছেড়ে আসা জি৯ ৫১৩ ফ্লাইটটি শুক্রবার দিবাগত রাত ৪টার সময় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা জানতে পারে যে উক্ত ফ্লাইটে সিগারেট ও ওষুধ আসবে। এ লক্ষে শুল্ক গোয়েন্দা দল ব্যাগেজ বেল্টসহ গ্রিন চ্যানেলে বিশেষ নজরদারি বজায় রাখে।

শারজাহ ফ্লাইটের জন্য নির্ধারিত ৬ নম্বর ব্যাগেজ বেল্ট থেকে ব্যাগ সংগ্রহ করে ধবধবে সাদা পাঞ্জাবি পায়জামা পরিহিত ৬ জন যাত্রী গ্রিন চ্যানেল দিয়ে বের না হয়ে হাজিদের বের হওয়ার জন্য নির্ধারিত গেটের দিকে দ্রুত রওনা দিলে শুল্ক গোয়েন্দা দল তাদের চ্যালেঞ্জ করে। এর পর তাদের কাছে থাকা লাগেজগুলো স্ক্যান করে বিপুল পরিমাণ সিগারেট ও ওষুধের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। পরবর্তীতে কাস্টমস হলে ভোর ৫টার সময় বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে লাগেজগুলো খুলে মোট ১০০০ কার্টনে ২ লাখ শলাকা আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশি সিগারেট মোট ২৫,৫৩৯ পিস ওষুধ, রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ও থ্রিপিস জব্দ করা হয়।

সিগারেটের প্যাকেটের গায়ে বাংলায় ধূমপানবিরোধী সতর্কীকরণ লেখা ব্যতীত বিদেশি সিগারেট আমদানি করা যায় না। সিগারেটের উপর উচ্চ শুল্ক (প্রায় ৪৫০%) পরিহারের জন্যই এসব সিগারেট আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পণ্যের শুল্ককরসহ জব্দ পণ্যের মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা। জব্দকৃত পণ্যের বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএজেড/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত