artk
৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বুধবার ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭:৩৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম

না বুঝে বিনিয়োগ করে ধরা খায় দোষ হয় সরকারের: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২৪০ ঘণ্টা, বুধবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৪৪৭ ঘণ্টা, বুধবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮


না বুঝে বিনিয়োগ করে ধরা খায় দোষ হয় সরকারের: প্রধানমন্ত্রী - জাতীয়
ফাইল ফটো

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা ‘না বুঝে বিনিয়োগ করে ধরা খায় আর দোষ হয় সরকারের’ এই মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “আপনারা যে প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করবেন সে প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ভালো করে জেনেশুনে বিনিয়োগ করবেন। খুব বেশি লোভে পড়বেন না। কারণ প্রতিটি ব্যবসায় লাভের একটা সীমা আছে।”

বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) রজত জয়ন্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

“বর্তমানে পুঁজিবাজার স্থিতিশীল” উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “প্রতিনিয়ত এ বাজারের উন্নয়ন হচ্ছে, দেশের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে পুঁজিবাজার।”

তিনি আরো বলেন, “আমরাও এ বাজারকে সহায়তা দিচ্ছি। কমিশনের আর্থিক স্বাধীনতা নিশ্চিত করছি। শেয়ার বাজারের লেনদেন ও কারচুপির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।”

শেখ হাসিনা বলেন, “আমাদের এখন আর বিদেশিদের ওপর নির্ভর করতে হয় না। এখন আমরা নব্বই ভাগ নিজস্ব অর্থায়নে বাজেট করি। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে। ৪১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ।”

তিনি বলেন, “স্থিতিশীল পুঁজিবাজারের লক্ষে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর সুশাসন নিশ্চিত করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশনের মাধ্যমে স্টক এক্সচেঞ্জের কর্মকাণ্ডের স্থিতিশীলতা আনয়নের পাশাপাশি সুশাসন নিশ্চিত করা হয়েছে।”

আমাদের প্রচেষ্টার ফলশ্রুতিতে বিএসইসি পেয়েছে ‘এ’ ক্যাটাগরির সম্মান ও বৈদেশিক বিনিয়োগ মন্তব্যে করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বর্তমানে ভারত ও চীনসহ বিভিন্ন দেশ আমাদের পুঁজিবাজারের প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি পেয়েছে। সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়া এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের মধ্যে সমঝোতা স্বারক সাক্ষর হয়েছে। চীনের কর্সোটিয়াম ইতিমধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। এ অন্তর্ভূক্তিতে পুঁজিবাজারের গভীরতা বাড়ার পাশাপাশি বিনিয়োগকারীসহ স্টেকহোল্ডার ও সংশ্লিষ্ট সবাই উপকৃত হবেন।”

পুঁজিবাজারের উন্নয়নে সরকার অনেকগুলো পদক্ষেপ নিয়েছে এমন উক্তি করে তিনি বলেন, “এর মধ্যে শেয়ারবাজারের লেনদেন কারচুপিসহ অনিয়ম শনাক্তকরণে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এছাড়াও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রণোদনা প্যাকেজের বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে, পুঁজিবাজার সংক্রান্ত মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তিতে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল কার্যক্রম চালু করা হয়েছে, আর্থিক প্রতিবেনের স্বচ্ছতা এবং বিশ্বাস যোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য ফাইন্যান্সিয়াল রির্পোটিং কাউন্সিল গঠন করা হয়েছে, বিএসইসি অর্থনিটি ইনভেস্টমেন্ট রুলস ২০১৫ এর মাধ্যমে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অব প্রাইভেট ইক্যুইটিতে বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ/এমএজেড/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত