artk
৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

কলম্বিয়ার সঙ্গে মেসিহীন আর্জেন্টিনার ড্র

স্পোর্টস ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১০৫৪ ঘণ্টা, বুধবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১১৫৯ ঘণ্টা, বুধবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮


কলম্বিয়ার সঙ্গে মেসিহীন আর্জেন্টিনার ড্র - খেলা

মেসি নির্ভরতা কমাতে তাকে ছাড়াই প্রীতি ম্যাচে মাঠে নেমেছিল আর্জেন্টিনা। তারকা লিওনেল মেসিকে ছাড়াই অপেক্ষাকৃত দুর্বল প্রতিপক্ষ গুয়াতেমালার বিপক্ষে দারুণ জয় দিয়ে বিশ্বকাপ পরবর্তী মিশন শুরু করেছিল দলটি। তবে পরের ম্যাচেই আবারো হতাশার গল্প। কিছুটা শক্তিশালী প্রতিপক্ষ কলম্বিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছে আলবিসেলেস্তারা।

মেসি দলে না থাকা সত্ত্বেও এ ম্যাচে মূল একাদশে পাওলো দিবালাকে নামাননি আর্জেন্টিনার অন্তর্বর্তীকালীন কোচ লিওনেল স্কালোনি। যদিও দ্বিতীয়ার্ধে খেলেছেন। তবে শুরু থেকে খেলেছেন ইন্টার মিলান তারকা মাউরো ইকার্দি। কিন্তু কেউই সুবিধা করে উঠতে পারেননি।

নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে বুধবার ভোরে শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। মুহুর্মুহু আক্রমণ করেও গোল আদায় করে নিতে পারেনি তারা। ভালো কিছু আক্রমণ করে কলম্বিয়াও। কিন্তু গোল আদায় করতে না পারায় গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় প্রথমার্ধ। দ্বিতীয়ার্ধে তো পুরোটাই হতাশার গল্প। এ অর্ধে ভালো কোন আক্রমণ করতে পারেনি কোন দলই। ফলে শেষ পর্যন্ত ০-০ গোলই হয় ম্যাচের ফলাফল।

ম্যাচের ৬ মিনিটে গোল পেতেও পারতো আর্জেন্টিনা। এক্সেকুইল পালাসিওসের দূরপাল্লার দুর্দান্ত শট ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন কলম্বিয়ান গোলরক্ষক দাভিদ ওসপিনা। পরের মিনিটে আবারও ত্রাতা সেই গোলরক্ষক। এবার গঞ্জালো মার্টিনেজের কোণাকোণি শট রুখে দেন তিনি।

১৫ মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়ে গিয়েছিলেন ইকার্দি। কিন্তু বল জালে জড়াতে পারেননি। এবারও তা রুখে দেন ওই ওসপিনা। দুই মিনিট পর আবারো মার্টিনেজের দূরপাল্লার শট রুখে দেন তিনি। ২৭ মিনিটে গোল পেতে পারতো কলম্বিয়াও। রাদামেল ফেলকাওয়ের শট ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক আরমানি। এরপর ম্যাচের আর জমাট কোনো আক্রমণই হয়নি। তবে ৭২ মিনিটে সতীর্থের ক্রসে মাথা ছোঁয়াতে পারলে গোল পেতেও পারতো আর্জেন্টিনা।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য