artk
৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭:০৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম

এবারের নির্বাচন নিয়ে কোনো সংলাপ হবে না: কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৫৩২ ঘণ্টা, রোববার ১৯ আগস্ট ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২২৪ ঘণ্টা, সোমবার ২০ আগস্ট ২০১৮


এবারের নির্বাচন নিয়ে কোনো সংলাপ হবে না: কাদের - রাজনীতি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “ অগামী নির্বাচন (একাদশ) নিয়ে কোনো সংলাপ হবে না। আগামী নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী। নির্বাচনকালীন সরকারের হাতে কোনো ক্ষমতা থাকবে না।”

রোববার সকালে রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, “নির্বাচনকালীন সরকার রুটিন মাফিক দায়িত্ব পালন করবে, সরকারের মন্ত্রিপরিষদ, পুলিশ প্রশাসন সব কিছুই থাকবে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অধীনে।”

তিনি বলেন, “বিএনপি সংবিধান মানে না, আইন মানে না, আদালত মানে না, বিচার মানে না, কিছুই মানে না। বিএনপি জানে আগামী নির্বাচনে তারা হেরে যাবে। তাই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর অজুহাত খুঁজছে। তবে ২০১৪ সালের মতো যদি তারা বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়, তাহলে জনগণ তা প্রতিহত করবে।”

নোয়াখালীতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ অবরুদ্ধ হয়ে আছেন এমন অভিযোগের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “আপনারা (সাংবাদিক) আপনাদের প্রতিনিধি পাঠিয়ে দেখে আসুন। মওদুদ আহমদের বাড়ির সামনে আওয়ামী লীগ কিংবা পুলিশের কোনো সদস্য নেই। তাকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়নি।”

তিনি আরও বলেন, “গত ২২ বছর ধরে ঈদের আগে তিনি কখনো বাড়িতে (নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ) যান না। এলাকার উন্নয়নে কোনো কাজ করেননি। এখন মওদুদ সাহেব অবরোধের নাটক করছেন। একে গুরুত্ব দেয়ার কোনো কারণ নেই।”

ঈদযাত্রার প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, “অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন সড়কের অবস্থা ভালো। পশুবাহী গাড়ির কারণে রাস্তায় যান চলাচলে কিছুটা ধীরগতি রয়েছে। ফেরি পারাপারেও পশুবাহী গাড়িকে প্রায়োরিটি দেয়া হচ্ছে। এসব কারণে একটু সময় লাগছে।”

তিনি বলেন, “তবে আমি নৌমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি যাতে পশুবাহী গাড়ির চেয়ে যাত্রীবাহী গাড়িগুলোকে প্রাধান্য দেয়া হয়।”

নিউজবাংরাদেশ.কম/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য