artk
১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১১:৫০ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

নওগাঁর ৬ কলেজ সরকারিকরণ করায় অভিনন্দন

নওগাঁ সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১০৪৪ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৪ আগস্ট ২০১৮


নওগাঁর ৬ কলেজ সরকারিকরণ করায় অভিনন্দন - শিক্ষাঙ্গন

সারাদেশে সদ্য সরকারি করা হয়েছে ২শ ৭১টি কলেজ। আর নওগাঁ জেলার ৬টি কলেজকে সরকারিকরণ করায় আনন্দের জোয়ারে ভাসছে সেই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো।

নওগাঁর প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করায় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

সূত্রে জানা, গত ২০০৮ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর যে নির্বাচনী ইস্তেহার দিয়েছিলেন সারা দেশে কলেজগুলোকে সরকারিকরণ করা তারই একটি অন্যতম অঙ্গীকার ছিল। তারই অংশ হিসাবে নওগাঁর ঠাঁ ঠাঁ বরেন্দ্র অধ্যুষিত ধামুইরহাট উপজেলার ধামুইরহাট এমএম ডিগ্রি কলেজ, পোরশা উপজেলার পোরশা ডিগ্রি কলেজ, নিয়ামতপুর উপজেলার নিয়ামতপুর কলেজ এবং এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ নামে খ্যাত আত্রাই উপজেলার মোল্লা আজাদ মেমোরিয়াল কলেজ ও রাণীনগর উপজেলার শের-এ-বাংলা (ডিগ্রি) মহাবিদ্যালয় এবং মান্দা উপজেলার মান্দা মমিন শাহানা ডিগ্রি কলেজকে সরকারি ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলার এসব প্রত্যন্ত অঞ্চলের কলেজগুলোকে সরকারিকরণ করার কারণে এলাকার গরিব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষের সন্তানরা বাড়ি থেকে পান্তা ভাত খেয়ে এসে কলেজে কম খরচে উচ্চতর ডিগ্রি গ্রহণ করতে পারবে বলে আশা করছেন স্থানীয়রা।

জেলার নিয়ামতপুর কলেজের শিক্ষার্থী জনি হোসেন, কাদের হোসেন, রূপালি আক্তারসহ অনেকেই বলেন, আমাদের অনেক দিনের স্বপ্ন এতদিন পর বাস্তবায়ন করা হলো। এখন আমাদের উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে নওগাঁ কিংবা রাজশাহী যেতে হবে না। এখন আমরা বাড়ির পাশে আমাদের সরকারি কলেজে পড়াশোনা করতে পারবো ভাবতে ভালোই লাগছে।

একাধিক শিক্ষকরা বলেন, প্রত্যন্ত এলাকার অবহেলিত জনপদের সন্তানদের তাদের বাড়ির পাশের সরকারি কলেজে পড়ালেখা করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আর স্থানীয় সংসদ সদস্যদের অবদান অনেক। তারা যদি চেষ্টা না করতো তাহলে আজ আমাদের এই কলেজ সরকারি না হয়ে অন্য কোন এক কলেজ সরকারি হতো। তাই বর্তমানে আমরা আনন্দের জোয়ারে ভাসছি।

সদ্য সরকারি হওয়া জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার নিয়ামতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘‘আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্নপূরণ হয়েছে কলেজ সরকারিকরণ করার মাধ্যমে। তাই আমরা আনন্দিত। স্থানীয় সংসদ সদস্য বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদারসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে জানাই অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। কারণ প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই কলেজটি সরকারি করার কারণে এলাকার গরিব-অসহায় মানুষের সন্তানরা বাড়ির পান্তা ভাত খেয়ে এসে একটি সরকারি কলেজে পড়ালেখা করতে পারবে। তারা সরকারি একটি কলেজের সকল সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবে।”

নওগাঁর মান্দা উপজেলার মান্দা মমিন শাহানা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. বেদারুল ইসলাম বলেন, “উপজেলার সর্বোচ্চ একমাত্র আদর্শ বিদ্যাপিঠ নামে পরিচিত এই কলেজটি। এই বিদ্যাপিঠ দীর্ঘ ৪৩ বছর হাঁটিহাঁটি পা পা করে আজ সরকারি হয়েছে। কলেজ সরকারিকরণ করায় আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। তাই আমরা এখন আনন্দের জোয়ারে ভাসছি। আর এর পেছনে যে মানুষটির অবদান সবচেয়ে বেশি তিনি হলেন বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আর তারপর আমাদের এলাকার সংসদ সদস্য বর্তমানে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন।”

জেলার আত্রাই উপজেলার মোল্লা আজাদ মেমোরিয়াল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মাহবুবুর রহমান দুলু বলেন, আত্রাই একটি প্রসিদ্ধ উপজেলা। এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ নামে খ্যাত এই উপজেলা। বর্তমানে স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের নেতৃত্বে এই জনপদে শান্তির সুবাতাস বইছে। তারই একটি জ্বলন্ত প্রমাণ হলো এই কলেজটি সরকারিকরণ করা। স্থানীয় সংসদ সদস্যের একান্ত প্রচেষ্টায় এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শনায় অবশেষে এই কলেজটি সরকারি করা হলো। এই প্রত্যন্ত এলাকার আদর্শ বিদ্যাপিঠ মোল্লা আজাদ মেমোরিয়াল কলেজ। কলেজটি সরকারি করায় আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত। আর এর জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলমসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এই কলেজ ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জানাই অনেক অনেক অভিনন্দন, শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য