artk
৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১২:৫৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম

রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের লোকসান কমেছে

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১০১৬ ঘণ্টা, শনিবার ২১ জুলাই ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১০২৫ ঘণ্টা, শনিবার ২১ জুলাই ২০১৮


রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের লোকসান কমেছে - অর্থনীতি
ছবি প্রতীকী

২০১৭-১৮ অর্থবছরে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মোট লোকসান অর্ধেকেরও বেশি কমেছে। অর্থবছরটিতে রাষ্ট্রায়ত্ত ১৩টি প্রতিষ্ঠানের মোট লোকসান প্রাক্কলন করা হয়েছে তিন হাজার ৮৭৫ কোটি টাকা। আগের অর্থবছরে (২০১৬-১৭) ১১টি রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের মোট লোকসানের পরিমাণ ছিল ছয় হাজার ৭৫৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ বিদায়ী অর্থবছরে লোকসান কমেছে দুই হাজার ৮৮৩ কোটি টাকা।

এদিকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) রাষ্ট্রায়ত্ত ৩৭টি প্রতিষ্ঠানের নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছে নয় হাজার ২৯৫ কোটি টাকা।

অর্থ বিভাগ থেকে সদ্য প্রকাশিত ‘বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০১৮’-তে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মুনাফা ও লোকসানের এ খতিয়ান তুলে ধরা হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, সর্বশেষ ২০১২-১৩ অর্থবছরে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলো সব মিলিয়ে প্রায় দুই হাজার ৬০৫ কোটি টাকা নিট লোকসান দিয়েছিল। এরপর ২০১৩-১৪ অর্থবছর থেকে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলো সব মিলিয়ে নিট মুনাফায় রয়েছে এবং মুনাফার পরিমাণ প্রতিবছর বাড়ছে। গত ২০১৩-১৪ অর্থবছরে নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছিল প্রায় তিন হাজার ৫৩৪ কোটি টাকা। গত পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ নিট মুনাফা হয়েছে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে। আলোচ্য বছরে নিট মুনাফা হয়েছিল ১০ হাজার ৮৮৮ কোটি টাকা।

অর্থনৈতিক সমীক্ষায় বলা হয়েছে, বিদায়ী অর্থবছরে মুনাফা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠানের তালিকার শীর্ষে রয়েছে বিটিআরসি। বিটিআরসির মুনাফার পরিমাণ হচ্ছে ছয় হাজার ১৮১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। আগের অর্থবছরে (২০১৬-১৭) সংস্থাটি মুনাফা করেছিল তিন হাজার ৯৮৭ কোটি টাকা।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি)। তবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠান হলেও গত অর্থবছরের তুলনায় সংস্থাটির মুনাফা অনেক কমেছে। বিদায়ী অর্থবছরে বিপিসির মুনাফার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৯৯৫ কোটি ৪২ লাখ টাকা। আগের অর্থবছরে এর পরিমাণ ছিল ৮ হাজার ৬৫৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে মুনাফা কমেছে চার হাজার ৬৫৭ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।
উল্লেখ্য, ২০১৪-১৫ অর্থবছর থেকে বিপিসি লাভের মুখ দেখতে শুরু করেছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে সংস্থাটি নয় হাজার ৪০ কোটি টাকা মুনাফা অর্জন করে। পরবর্তী অর্থবছর থেকে মুনাফা আবার কমতে শুরু করেছে।

অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিদায়ী অর্থবছরে বিওজিএমসি ৯৬৮ কোটি ৩৫ লাখ টাকা, সিপিএ ৫৭৩ কোটি ৬৮ লাখ টাকা, বিবিএ ৩৩৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা, রাজউক ৩০৪ কোটি ৯ লাখ টাকা, সিএএ ১৮০ কোটি ৩৭ লাখ টাকা ও ঢাকা ওয়াসা ১৬৩ কোটি ১৭ লাখ টাকা মুনাফা অর্জন করেছে।

এদিকে অর্থনৈতিক সমীক্ষা হতে জানা গেছে, লোকসানি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিপিডিবি) লোকসান গেল অর্থবছরে তিন হাজার ১৮৭ কোটি টাকা কমেছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বিপিডিবির লোকসান প্রাক্কলন করা হয়েছে এক হাজার ২৪৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা। আগের অর্থবছরে (২০১৬-১৭) বিপিডিবি ৪ হাজার ৪৩৪ কোটি ৩ লাখ টাকা লোকসান দিয়েছিল।

লোকসানের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি)। শিল্প খাতে এ সংস্থাটির লোকসান প্রাক্কলন করা হয়েছে ৮৩৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা যা এর আগের বছরের তুলনায় ৩৫২ কোটি ৪৬ লাখ টাকা বেশি। আগের (২০১৬-১৭) অর্থবছরে সংস্থাটি ৪৮৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকা লোকসান দিয়েছিল।

লোকসানি তালিকার অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- বিটিএমসি, বিএসএফআইসি, বিজেএমসি, বিআরটিসি, কেডিএ, আরডিএ, বিএফএফডব্লিউটি, বিএফডিসি (ফিল্ম), বিআইডব্লিউটিএ, বিসিআইসি (সার্ভিস ও অন্যান্য খাত) এবং আরইবি।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য