artk
৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯:৩৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

কঠিন পরিক্ষায় বৃহস্পতিবার মাঠে নামছে সাকিবরা

স্পোর্টস রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯০৩ ঘণ্টা, বুধবার ১১ জুলাই ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৯০৩ ঘণ্টা, বুধবার ১১ জুলাই ২০১৮


কঠিন পরিক্ষায় বৃহস্পতিবার মাঠে নামছে সাকিবরা - খেলা

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে জ্যামাইকার স্যাবাইনা পার্কে বৃহস্পতিবার সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টে ব্যর্থতার পর এটি সাকিবদের বড় পরীক্ষাই। সেই পরিক্ষাটা হচ্ছে টাইগারদের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের শহরেই। খেলাটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায়।

প্রথম টেস্টে বাজে পারফরম্যান্সের দায়টা নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছেন সাকিব-তামিমরা। তাই সিরিজ নির্ধারণী টেস্টে ক্রিকেটাররা ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া। এমন কথাই বারবার বলেছেন তারা।

তামিম ইকবাল ও নুরুল হাসান সোহান জানিয়েছেন, অ্যান্টিগার দুঃস্বপ্ন দ্রুতই ভুলতে চান তাঁরা। এবার বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশও জানালেন একই আশাবাদের কথা।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর এই লড়াইটা হবে ওয়ালশের চৌহদ্দিতেই। জ্যামাইকার স্যাবাইনা পার্কে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই টেস্ট বাংলাদেশের সিরিজ বাঁচানোর। সঙ্গে ব্যাটসম্যানদের ভালো করার চ্যালেঞ্জও আছে। প্রথম টেস্টে ব্যাটিং ব্যর্থতায় এক ইনিংস ও ২১৯ রানের ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। ওয়ালশ এই ব্যর্থতাটুকু মেনে নিচ্ছেন।

জ্যামাইকার স্থানীয় এক টিভি চ্যানেলকে তিনি জানিয়েছেন, প্রথম টেস্ট খারাপ হয়েছে। আমরা ভালো করতে পারিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভালো খেলছে। তবে দ্বিতীয় টেস্টে আমরা ভালো খেলার ব্যাপারে আশাবাদী।

এই স্যাবাইনা পার্কেই ২০০১ সালে ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলেছিলেন ওয়ালশ। এটি তাঁর নিজের জন্মভূমিও। ৫১৯ উইকেটের পাহাড়ে উঠে নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এ কিংবদন্তি। স্যাবাইনা পার্ক তাই ওয়ালশের ক্যারিয়ারের জন্য বিশেষ স্মৃতি।

সেই স্মৃতি দলের পেসারদের সঙ্গে ভাগ করে নিয়ে তাদের উদ্দীপ্ত করেছেন কি না এমন প্রশ্নে ওয়ালশ বলেন, “হ্যাঁ, ওদের এই টেস্ট উপভোগ করতে বলেছি। বলেছি এটা পেসারদের জন্য বড় সুযোগ। নিজেদের প্রমাণ করো। আমি এই টেস্টের দিকে তাকিয়ে আছি।”

প্রথম টেস্টে বড় ব্যবধানে হারায় এই ম্যাচে চাপে আছে বাংলাদেশ দল। ওয়ালশের কাছে এই ম্যাচটা বাংলাদেশ দলের জন্য বড় পরীক্ষা। ভুলগুলো শুধরে নিয়ে নিজেদের খেলাটা খেলতে হবে। তিনি বলেন, “অবশ্যই অ্যান্টিগার মতো উইকেট প্রত্যাশা করছি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাদের সুবিধামতোই উইকেট বানাবে। এখানেও সিমিং উইকেটের প্রত্যাশা করছি।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএস/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য