artk
৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২১ জুলাই ২০১৮, ৪:১২ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

তিরাশিতে আল মাহমুদ

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ০৯৪৪ ঘণ্টা, বুধবার ১১ জুলাই ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২৫৬ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১২ জুলাই ২০১৮


তিরাশিতে আল মাহমুদ - শিল্প-সাহিত্য

তিরাশিতে পা রাখলেন আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি আল মাহমুদ। ১১ জুলাই বুধবার তার ৮২তম জন্মবার্ষিকী। তিনি একধারে একজন কবি, ঔপন্যাসিক এবং ছোটগল্প লেখক।

আল মাহমুদ ১৯৩৬ সালের ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোড়াইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর প্রকৃত নাম মীর আব্দুস শুকুর আল মাহমুদ। তিনি বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান কবি।

 

সংবাদপত্রে লেখালেখির সূত্র ধরে কবি ঢাকা আসেন ১৯৫৪ সালে। সমকালীন বাংলা সাপ্তাহিক পত্র/পত্রিকার মধ্যে কবি আব্দুর রশীদ ওয়াসেকপুরী সম্পাদিত ও নাজমুল হক প্রকাশিত সাপ্তাহিক কাফেলায় লেখালেখি শুরু করেন তিনি। পাশাপাশি দৈনিক মিল্লাত পত্রিকায় প্রুফ রিডার হিসেবে সাংবাদিকতা জগতে পদচারণা শুরু করেন। ১৯৫৫ সাল কবি আব্দুর রশীদ ওয়াসেকপুরী কাফেলার চাকরি ছেড়ে দিলে তিনি সেখানে সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন।

কাব্যগ্রন্থ লোক লোকান্তর(১৯৬৩) সর্বপ্রথম তাকে স্বনামধন্য কবিদের সারিতে জায়গা করে দেয়। এরপর কালের কলস(১৯৬৬), সোনালি কাবিন(১৯৬৬), মায়াবী পর্দা দুলে উঠো(১৯৬৯) কাব্যগ্রন্থগুলো তাকে প্রথম সারির কবি হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করে।

১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের পর তিনি গল্প লেখার দিকে মনোযোগী হন। ১৯৭৫ সালে তার প্রথম ছোট গল্পগ্রন্থ পানকৌড়ির রক্ত প্রকাশিত হয়। ১৯৯৩ সালে বের হয় তার প্রথম উপন্যাস কবি ও কোলাহল।

আল মাহমুদ ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পরে দৈনিক গণকণ্ঠ পত্রিকায় সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন। তিনি স্বাধীনতা পরবর্তী আওয়ামী লীগ সরকারের সময় একবার জেল খাটেন। পরে তিনি শিল্পকলা একাডেমীতে যোগদান করেন এবং পরিচালক হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন।

আল মাহমুদ সাহিত্যকর্মের জন্য পেয়েছেন বাংলা একাডেমি পুরস্কার, একুশে পদক, জয়বাংলা পুরস্কার, হুমায়ুন কবির স্মৃতি পুরস্কার, জীবনানন্দ স্মৃতি পুরস্কার, ফিলিপস সাহিত্য পুরস্কার, নাসিরউদ্দিন স্বর্ণপদক, সুফী মোতাহের হোসেন স্বর্ণপদক ইত্যাদি।

আল মাহমুদ লিখেছেন ক্রমাগত। লিখেছেন নানান বিষয়। সব কিছু ছাপিয়ে তিনি একজন কবি। তার কবিতায় বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের ঘ্রাণ। প্রকৃতি ও প্রেমের গুঞ্জন। নদী ও নারীর রহস্যময় বহমানতা বিঁধে আছে। কবিতার জায়গায় আল মাহমুদ এখন কিংবদন্তি। সব মিলিয়ে আল মাহমুদ বাংলা ভাষার একজন অপরিহার্য কবি।

জন্মদিন ঘিরে আসর বসবে বুধবার তার বাসায়। কবিতা জগতের মানুষ, সাহিত্যপ্রেমী, সংবাদজগতের কর্মীরা, কবির শুভানুধ্যায়ী, রাজনীতিবিদ, বুদ্ধিজীবীসহ বিভিন্ন সাহিত্য, সংস্কৃতি ও সামাজিক সংগঠনের কর্মীরা আসবেন কবির বাসায়। কারো হাতে থাকবে ফুলের তোড়া। কারো হাতে মিষ্টির প্যাকেট আবার কারো হাতে থাকবে কবির জন্য উপহার। সব মিলিয়ে ১১ জুলাই বাংলা কবিতার এক আনন্দের দিন। আল মাহমুদ, শুভ জন্মদিন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য