artk
৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

অস্ট্রেলিয়ায় শহীদ জিয়ার শাহাদাত বার্ষিকীতে বেগম জিয়ার মুক্তির দাবি

নাইম আবদুল্লাহ, অস্ট্রেলিয়া সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২০১ ঘণ্টা, সোমবার ০৪ জুন ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২২৬ ঘণ্টা, সোমবার ০৪ জুন ২০১৮


অস্ট্রেলিয়ায় শহীদ জিয়ার শাহাদাত বার্ষিকীতে বেগম জিয়ার মুক্তির দাবি - প্রবাস

বাংলাদেশের বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে গত ৩ জুন রোববার সিডনির রকডেলে পালকি ফাংশন সেন্টারে বিএনপি অস্ট্রেলিয়ার উদ্যোগে এক ইফতার, দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পবিত্র কোরআন তেলোওয়াতে মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরুর পরপরই বাংলাদেশ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা  এবং বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের স্বপ্নপুরুষ জিয়াউর রহমানও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জন্য এক বিশেষ দোয়া করা হয়।

বিএনপি অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি এবং স্বেচ্ছাসেবকদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. মোসলেহউদ্দিন হাওলাদার আরিফের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. নাসিম উদ্দিন আহমেদের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন বিএনপি অস্ট্রেলিয়ার সাবেক আহ্বায়ক এবং প্রধান উপদেষ্টা মো. দেলোয়ার হোসেন।

আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন- প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এনামুল হক ভুইয়া, বিএনপি অস্ট্রেলিয়ার খণ্ডকালীন সাবেক সভাপতি ডক্টর হুমায়ের চৌধুরী রানা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী স্বপন, শিক্ষাবিদ শিবলী আব্দুল্লাহ, সহসভাপতি মো. রুহুল আমিন, সহসভাপতি ও উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মো. মোবারক হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ হায়দার আলী, ব্যারিস্টার আবু বারী সিদ্দিক রিপন, আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তারিক উল ইসলাম তারেক, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক সভাপতি সৈয়দ মোস্তাক আহম্মেদ, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ওস্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এএনএম মাসুম, যুবদলের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত সবুজ, সাধারণ সম্পাদক মো. খাইরুল কবির পিন্টু, নিউ সাউথওয়েলস বিএনপির সভাপতি ইন্জিনিয়ার মো. কামরুল ইসলাম, বিএনপির দপ্তর সম্পাদক আব্দুস শামাদ শিবলু, সমাজকল্যাণ সম্পাদক এসএম খালেদ, সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, স্বেচ্ছাসেবকদলের সাধারণ সম্পাদক মৌহাইমেন খান মিশু, বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক জেবল হক জাবেদ, ঢাকা মহানগর উওর যুবদলের সহসাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন রাজু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জুম্মান হোসেন, শফিক শিকদার, সাইমুম বিন শামস, মোহাম্মদ জুবাইল হক, সোয়েব জাহাঙ্গীর, দীন মোহাম্মদ, হারিসুল মাহমুদ, মো. শফিকুল ইসলাম, মো. নজরুল ইসলাম, আব্দুল মজিদ, আনিসুর রহমান, মো. মতিউর রহমান, পংকজ বিশ্বাস, মো. শাহাবুর রহমান, মো. রিপন মিয়া, মো. ফারুক হোসেন, মো. আব্দুল করিম, আলী বশীর নূর, মো. হাবিব মিয়া।

মো. দেলোয়ার হোসন বলেন, “জিয়াউর রহমানকে হত্যার মাধ্যমে জাতীয়তাবাদী আদর্শকে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। আর এখন খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে নির্বাসন দেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে এ ষড়যন্ত্র অত্যন্ত পরিকল্পিত। সবাইকে এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। দেশে এখন শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ থেকে মুক্তি পেতে হলে বর্তমান অবৈধ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানোর বিকল্প নেই। দেশে এখন গণতন্ত্র নেই।”

ডক্টর হুমায়ের চৌধুরী রানা বলেন, “শেখ মুজিব দেশের স্বাধীনতা চাননি তিনি সেনাবহিনীকে বিশ্বাস করতেন না। তাই রক্ষীবাহিনী তৈরি  করে একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছিলেন। শেখ হাসিনা তারই কন্যা। বাকশালের রক্ত তার শরীরেও রয়েছে। তাই ভিন্ন মত পোষণকারী রাজনৈতিক দলগুলোকে বাদ দিয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসে একদলীয় শাসনের দিকে এগুচ্ছে।”

লিয়াকত আলী স্বপন বলেন, “ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য আওয়ামী লীগ যত রকমের অপরাধ রয়েছে তা করছে। গুম, ক্রসফায়ার ও পঙ্গু করছে হাজার হাজার মানুষকে।”     

মো. রুহুল আমীন বলেন, “দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এইমুহূর্তে সকল নেতা ৯০এর মতো একযোগে মাঠে নামতে হবে। বুকের তাজা রক্ত বিলিয়ে দিয়ে জিয়াউর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়ন করতে ৯০এর মতো দেশপ্রেমিক সকল মানুষ ও জাতীয়তাবাদী শীর্ষ নেতাদের একই প্লাটফর্মে এসে জিয়াউর রহমানের মহান বাণী, ‘ব্যক্তির চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়’ বুকে ধারণ করে আন্দোলনের মাধ্যমে দেশমাতাকে জেলের তালা ভেঙ্গে মুক্ত করতে হবে।

দ্বিতীয়বারের মত দেশ স্বাধীন করার প্রতিজ্ঞা করার আহ্বান জানান তিনি।   

সভাপতির বক্তব্যে মো. মোসলেহ উদ্দিন হাওলাদার আরিফ বলেন, “বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গণতন্ত্রের অতন্দ্রপ্রহরী এই দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়া মহান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। আর আওয়ামী লীগ এই গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে, বেগম খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার পাননি। আবার তাকে জামিনও দেয়া হচ্ছে না। আইনের ন্যূনতম অধিকার থেকে তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।”  

আলোচনা সভায় দলমত নির্বিশেষে সিডনির সর্বস্তরের বসবাসরত কমিউনিটির বিভিন্ন সাংবাদিক রাজনিতিবিদসহ অসংখ্য প্রবাসী বিভিন্ন  কমিউনিটির বিশিষ্ট নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বিএনপির অস্ট্রেলিয়ার সহপ্রচার সম্পাদক এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জুম্মন হোসেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএস 

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য