artk
২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বুধবার ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ৮:৫৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ওজনে কম, মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি: স্বপ্নকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯১৮ ঘণ্টা, রোববার ২০ মে ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১১০৫ ঘণ্টা, সোমবার ২১ মে ২০১৮


ওজনে কম, মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি: স্বপ্নকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা - জাতীয়

মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি, ওজনে কম দেয়া, নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে পণ্য বিক্রিসহ অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য মজুদের অভিযোগে সুপারশপ স্বপ্নকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রোবববার সকাল থেকে স্বপ্নের বনানী আউটলেটে এই অভিযান চালানো হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

এর আগে মূল্য তালিকা টানানো না দেখে এবং মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য পাওয়ায় স্বপ্নের বনানী শাখাকেই দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এছাড়া বিভিন্ন সময়ে স্বপ্নের অন্যান্য আউটলেটকেও নিয়ম ভাঙার কারণে জরিমাণ গুণতে হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, “অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে সেখানে খাবার মজুদ করে রাখা হয়েছিল। ফ্রিজে ছিল অন্তত ৩০০ ক্যান মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয়। পেঁয়াজসহ বিভিন্ন পণ্যে ওজনে কম দেওয়া হচ্ছিল বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। অথচ আমরা কিন্তু বিশ্বাস করি, এটা একটা ব্র্যান্ডেড প্রতিষ্ঠান। আমরা কিন্তু সেই ব্র্যান্ডটাকে বিশ্বাস করে অনেক বেশি মূল্য দিয়ে এখানে কিনতে আসি।”

সারোয়ার আলম জানান, এসব কারণে সার্বিক বিবেচনায় স্বপ্নকে দশ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি জানান, আমদানি করা কোমল পানীয় বিক্রি করা হাচ্ছিল গায়ে লেখা দামের চেয়ে অনেক বেশি দরে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে কিছু কোকের বোতল পাওয়া যায়, যেখানে মেয়াদের সিল তুলে নতুন তারিখ বসানো ছিল। মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লেখা ছিল না চায়ের প্যাকেটের গায়ে।

ফ্রিজ ও স্টোর রুমে ছিল বিপুল পরিমাণ মেয়াদোত্তীর্ণ ও পচা খাবার। এর মধ্যে কিছু প্যাকেট পাওয়া গেছে যার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে বছর খানেক আগে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম বলেন, “মেয়াদ ছাড়া পাওয়া পণ্য জব্দ না করে নষ্ট করা হয়েছে। তাদেরকে ১৫ দিন সময় দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সব অব্যবস্থাপনা ঠিক না করলে ফের জরিমানা করা হবে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত