artk
৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

চীনা কনসোর্টিয়ামের চুক্তি
‘শেয়ারবাজারে চীনের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বাড়বে’

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২০৩ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৫ মে ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২০৪ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৫ মে ২০১৮


‘শেয়ারবাজারে চীনের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বাড়বে’ - অর্থনীতি

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সঙ্গে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনের দুই শেয়ারবাজার শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কনসোর্টিয়ামের চুক্তি হওয়ায় কারণে আমাদের শেয়ারবাজারে চীনের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী বাড়বে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে ডিএসইর সঙ্গে শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ডিএসইর পক্ষ থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কে এ এম মাজেদুর রহমান চীনা কনসোর্টিয়ামের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এসময় শেনঝেন স্টক এক্সচেঞ্জের প্রেসিডেন্ট ও সিইও ওয়াং জেনজুন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের সুপারভাইজারি বোর্ডের চেয়ারম্যান পেন শুয়েশিয়ানও স্বাক্ষর করেন।

চীনা কনসোর্টিয়ামের চুক্তি দেশের শেয়ারবাজারের জন্য অবিস্মরণীয় দিন- এমন মন্তব্য করে অর্থমন্ত্রী বলেন, “এই চুক্তির ফলে দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের ভূমিকা রাখবে শেয়ারবাজার।”

দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো এখন দীর্ঘমেয়াদে ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এই কারণে এখন উদ্যোক্তারা শেয়ারবাজার থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ সংগ্রহ করবে। এজন্য শেয়ারবাজারকে আরো ভালো করতে হবে। এরই মধ্যে শেয়ারবাজারকে ভালো দিকে নিয়ে যেতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) রুলস অ্যান্ড রেগুলেশন সংশোধন করা হয়েছে।”

অনুষ্ঠানে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খায়রুল হোসেন বলেন, “চীনা দুই স্টক এক্সচেঞ্জের ডিএসইর সঙ্গে চুক্তি হওয়ায় দেশের শেয়ারবাজারে একটি ইতিবাচক ইমেজ তৈরি হবে। এ চুক্তিতে শেয়ারবাজারে সুশাসন, করপোরেট কালচার, স্বচ্ছতাসহ জবাবদিহিতা বাড়বে।”

বহুজাতিক ও ভালো কোম্পানি আনতে কাজ করবে চীনা কনসোর্টিয়াম- এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এই চুক্তির কারণে শেয়ারবাজারে দীর্ঘমেয়াদি বিদেশি বিনিয়োগ বাড়বে, যা আমাদের শেয়ারবাজারকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

ডিএসইর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবুল হাশেম বলেন, “২০১৫ সালে থেকেই আমরা কৌশলগত বিনিয়োগকারী খোঁজা শুরু করি। এক্ষেত্রে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদে সম্পর্কের মাধ্যমে শেয়ারবাজারের টেকসই উন্নয়নকে গুরুত্ব দেয়া হয়, যা নিয়ে বর্তমান সময় পর্যন্ত ৩৯টি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। এর মধ্যে যাছাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কনসোর্টিয়ামকে নির্বাচন করা হয়।”

সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ বিশ্বের চতুর্থ ও শেনঝেন স্টক এক্সচেঞ্জ অষ্টম বৃহৎ স্টক এক্সচেঞ্জ- উল্লেখ করে আবুল হাশেম বলেন, “এরা কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে ডিএসইর প্রযুক্তিগত উন্নয়ন করবে। একই সঙ্গে নতুন পণ্য আনা ও শেয়ারবাজারের টেকসই উন্নয়নে সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদসহ শেয়ারহোল্ডাররা, শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কনসোর্টিয়ামের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএজেড/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য