artk
১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২৬ মে ২০১৮, ৮:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম

সেতুমন্ত্রীর আশ্বাসে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বাস ধর্মঘট স্থগিত

জেলা সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২২৪৬ ঘণ্টা, রোববার ১৩ মে ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২১৭ ঘণ্টা, সোমবার ১৪ মে ২০১৮


সেতুমন্ত্রীর আশ্বাসে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বাস ধর্মঘট স্থগিত - জাতীয়

আগামী ২৫ দিনের মধ্যে ফেনী ওভারপাস নির্মাণ কাজ শেষ করার আশ্বাসে পাবার পর ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে সোমবারের বাস ধর্মঘট স্থগিত করেছেন পরিবহন মালিকরা।

রোববার সকালে তারা এই ঘোষণা দেয়ার পর দুপুরে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগামী ২৫ দিনের ফেনী ওভারপাস নির্মাণ কাজ শেষ করার ঘোষণা দেন।

রাতে চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকের পর ধর্মঘট স্থগিতের ঘোষণা দেন আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন।

তিনি বলেন, “সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগামী ২৫ দিনের মধ্যে ওভারপাস নির্মাণ কাজ শেষ করার যে আশ্বাস দিয়েছেন তাতে আস্থা রেখে আমরা ধর্মঘট স্থগিত করছি। এছাড়া ওই রেল ওভারপাসের দুটি লেইনের একটি ১৫ মে উদ্বোধনের কথা বলেছেন মন্ত্রী। এ বিষয়টিকেও আমরা গুরুত্ব দিয়েছি। দেখা যাক কী হয়, পরিস্থিতি ঠিক না হলে আবারও কর্মসূচি দেয়া হবে।”

ওই ওভারপাস নির্মাণ কাজের জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে চলাচলকারীদের, এলোমেলো হচ্ছে বাসের সূচি। এই প্রেক্ষাপটে যানজট নিরসনের দাবিতে সোমবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাস না চালানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন পরিবহন মালিকশ্রমিকরা।

পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম যাতায়াত করা গেলেও এখন তা ১৫ থেকে ১৭ ঘণ্টায় গিয়ে ঠেকেছে। এতে নির্দিষ্ট সময়ে নির্ধারিত স্থানে পৌঁছাতে না পারায় গন্তব্যের পথ পরিবর্তন করে উল্টোপথে ফিরে আসারও ঘটনা ঘটছে।

এই অবস্থা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে পরিবহন মালিক নেতা কফিল সকালে বলেছিলেন, ফেনী ও দাউদকান্দিতে চলমান এ যানজটে একদিকে যাত্রী ভোগান্তি বেড়েছে আবার অন্যদিকে পরিবহন মালিকরা আর্থিক ক্ষতির শিকার হচ্ছেন।

পরে যানজটের এই ভোগান্তিতে দুঃখ প্রকাশ করে দুপুরে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী কাদের আগামী ২৪/২৫ দিনের মধ্যে ফেনী ওভারপাস নির্মাণ কাজ শেষ করার আশ্বাস দেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য