artk
৩০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ১০:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম

রোহিঙ্গা সঙ্কটে বহুমাত্রিক সমস্যায় বাংলাদেশ: সিপিডি

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২০৩৩ ঘণ্টা, রোববার ১৩ মে ২০১৮


রোহিঙ্গা সঙ্কটে বহুমাত্রিক সমস্যায় বাংলাদেশ: সিপিডি - জাতীয়

রোহিঙ্গা সঙ্কটের কারণে বাংলাদেশ বহুমাত্রিক সমস্যায় পড়েছে বলে মনে করে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি)।

রোববার দুপুরে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত ‘রোহিঙ্গা সঙ্কটের অর্থনৈতিক প্রভাব ও আসন্ন বাজেট’ শীর্ষক নাগরিক সংলাপে এ কথা জানান সিপিডি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তিনি।

নগরীর আগ্রাবাদ সেন্টমার্টিন হোটেলের কাকলি হলে অনুষ্ঠিত এ সংলাপের আয়োজন করে সিপিডি, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এবং টিআইবির চট্টগ্রাম মহানগর শাখা।

ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কটের কারণে বাংলাদেশ বহুমাত্রিক সমস্যায় পড়েছে। সবচেয়ে বেশি নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে অর্থনীতি, সমাজ ও পরিবেশের ওপর। এই তিন খাতে বাংলাদেশ নানা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় সামাজিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। জনসংখ্য বৃদ্ধি, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন সমস্যা, স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে রোহিঙ্গাদের নিয়ে নেতিবাচক ধারণা দেখা দিয়েছে। অন্যদিকে অর্থনীতিতে প্রভাব পড়ায় জীবন যাপনের ব্যয় বৃদ্ধি, কর্মসংস্থানের সঙ্কট তৈরি হয়েছে। গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমার সেনাবাহিনীর রোহিঙ্গাবিরোধী অভিযান শুরুর পর সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশের কক্সবাজার সীমান্তে এ সঙ্কট তৈরি হয়।

সংলাপে ফাহমিদা খাতুন জানান, চলতি বছরের ২৫ মার্চ পর্যন্ত ৩২২ মিলিয়ন ডলার এসেছে বিদেশি দাতা সংস্থার মাধ্যমে। এসময় পর্যন্ত ৮ লাখ রোহিঙ্গার জন্য বাংলাদেশ সরকার ব্যয় নির্ধারণ করেছে ৪৩৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে ৭৪ শতাংশ বিদেশি দাতা সংস্থার সাহায্য এলেও ব্যয় নির্ধারিত বাকি অর্থ আমাদের দেশ থেকে করা হয়। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত প্রায় ৮ লাখ রোহিঙ্গার হিসেব কষে বাংলাদেশ সরকার চলতি বছরের বাকি ৯ মাসের জন্য ৯৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সাহায্য চেয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরো জানান, মিয়ানমারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রতিমাসে যদি ৩০০ জন করে রোহিঙ্গা ফেরত যায় তাহলে ২০২৫ সালের আগে এই সংকটের সমাধান হবে না। ২০২৫ সাল পর্যন্ত আগামী সাত বছর রোহিঙ্গাদের আশ্রয়, থাকা-খাওয়ার জন্য ব্যয় হবে ৪ হাজার ৪৩৩ মিলিয়ন ডলার। অন্যদিকে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গার জন্য ভাসানচরে ক্যাম্প নির্মাণ করতে ২৮০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক কাউন্সিল।

সভায় বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সিপিডির বিশেষ ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। এর আগে বাজেট সম্পর্কে উপস্থিতিদের অবহিত করেন ড. ফাহমিদা খাতুন।

অধ্যাপক আলমগীর মোহাম্মদ সিরাজউদ্দিন, সনাক চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আকতার কবির চৌধুরী ও মেজর জেনারেল অব. মো. এমদাদুল ইসলাম সংলাপে অংশ নেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত