artk
৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম

আসিফা ধর্ষণ ও হত্যা নিয়ে মুখ খুললেন আফ্রিদি-হেমা মালিনী

নিউজ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২০২২ ঘণ্টা, রোববার ১৫ এপ্রিল ২০১৮


আসিফা ধর্ষণ ও হত্যা নিয়ে মুখ খুললেন আফ্রিদি-হেমা মালিনী - বিদেশ

কাশ্মীরে শিশু কন্যা আসিফাকে ধর্ষণ ও হত্যার বিষয়ে মুখ খুলেছেন পাকিস্তানের ক্রিকেট তারকা শহিদ আফ্রিদী ও বলিউডের সুপারস্টার হেমা মালিনী।

সম্প্রতি আফিসা হত্যা নিয়ে ভারত জুড়ে উত্তেজনার মধ্যে এ দুই তারকা তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ডে টুইট করেছেন।

শহিদ আফ্রিদী তার টুইটারে লিখেছেন, ‘৬ বছরের জয়নাব হোক বা কাশ্মীরের ৮ বছরের আসিফা হোক এই বর্বর, অমানবিক কার্যকলাপ অবিলম্বে বন্ধ হওয়া উচিত এবং দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত।

জম্মু-কাশ্মীরের কাঠুয়ায় ৮ বছরের নাবালিকা আসিফাকে নৃশংসভাবে গণধর্ষণ ও খুনের প্রতিবাদে টুইটারে অনেক সেলিব্রিটিই তাদের ঘৃণা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।১৩ এপ্রিল শহিদ আফ্রিদী টুইট করেছেন।

আফ্রিদী লিখেছেন, ‘ভবিষ্যতে কেউ যাতে এ রকম ঘৃণ্য কাজ করার সাহস না পায়, তাই অপরাধীদের কঠিন শাস্তি পাওয়া খুব জরুরি।’

পাকিস্তানের জনপ্রিয় ক্রিকেটারের এই টুইটারে বিপুল প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে। তার সঙ্গে সহমত প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

এক ভক্ত লিখেছেন, এর পরেও যদি আইন শক্ত হাতে এই অপরাধ দমন করতে না পারে তবে নির্ভয়া,কাঠুয়ার মতো আরও ঘটনা ঘটবে।

অপর এক ভক্ত লিখেছেন, নিজেদের মানুষ বলতে ঘৃণা হচ্ছে। এরকম দানবিক আচরণ কেউ কীভাবে করে ভাবা যায় না।

অন্যদিকে বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী ও বিজেপি এমপি হেমা মালিনী মুখ খুললেন কাঠুয়া ইস্যুতে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধীর মতো তিনিও দাবি করলেন ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের ধর্ষণ করার শাস্তি হিসেবে যেন মৃত্যুদণ্ডকেই কার্যকর করা হয়।

নিজের টুইটার হ্যান্ডলে এই দাবি জানিয়ে টুইট করেন হেমা। তিনি লেখেন ‘দৈনিক সংবাদপত্রের প্রতিবেদন থেকে দেশের প্রতিটি কোণ থেকেই ধর্ষণের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে। কাঠুয়া, উন্নাও-এর ঘটনা দু’টি সেই দীর্ঘ তালিকার মাত্র দু’টি নাম। এই হৃদয়হীন ধর্ষকদের কি আদৌ মানুষ বলা যায়? এরা পশু,এদের অবশ্যই ফাঁসিতে ঝোলানো উচিত।’

নিউজবাংলাদেশ.কম/এস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত