artk
৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৬:১৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম

লোহিত সাগর থেকে সিরিয়ায় হামলা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

বিদেশ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯৪৫ ঘণ্টা, রোববার ১৫ এপ্রিল ২০১৮


লোহিত সাগর থেকে সিরিয়ায় হামলা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র - বিদেশ

সিরিয়া হামলায় লোহিত সাগর থেকে কমপক্ষে একটি যুদ্ধজাহাজ হামলায় অংশ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের দুই সেনা কর্মকর্তা। শনিবার সংবাদমাধ্যম সিএনএন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুজনের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে।

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেছেন, প্রথম দফার বিমান হামলা শেষ হয়েছে। এর মাধ্যমে সিরিয়াকে কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, এই হামলা দেশটির রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করার কারণেই করা হয়েছে। হামলায় বেসামরিক লোকজন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এই হামলায় তিনজন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সিরিয়ার রাষ্ট্র পরিচালিত সংবাদ মাধ্যম।

গত সপ্তাহে সিরিয়ার দুমা এলাকায় রাসায়নিক হামলার পর পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তখন থেকেই এই হামলার পরিকল্পনা করা হয়। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের সরকার সবসময়ই দুমায় রাসায়নিক হামলার কথা অস্বীকার করে আসছে। তবে সিরিয়ার মিত্র রাশিয়া এ হামলার বিরোধিতা করে আসছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সদর দপ্তর পেন্টাগনে এক ব্রিফিংয়ে জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড বলেন, তিন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালানো হচ্ছে। এগুলো হলো ১. দামেস্কের বৈজ্ঞানিক গবেষণাগার, যেখানে রাসায়নিক ও জৈব অস্ত্র উৎপাদন করা হয় বলে জানা যায়; ২. হোমসে একটি রাসায়নিক অস্ত্রভাণ্ডার ও ৩. হোমসেই পাশেই আরেক অস্ত্রভাণ্ডার, যেখান থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন বলছে, সরকারি বাহিনী ১২টার বেশি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করেছে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরোঁ হামলায় তার দেশের জড়িত থাকার কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দুমায় রাসায়নিক হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকজন নারী-পুরুষ, শিশুকে হত্যা করেছে সিরিয়া। এর জবাবেই এ হামলা।

এক বছরের কিছু আগেও সিরিয়ার ওপর বিমান হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। তবে সেবার ৫৯টি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়। এবার সংখ্যাটা এরই মধ্যে দ্বিগুণ হয়েছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য