artk
৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ২০ এপ্রিল ২০১৮, ১:০০ অপরাহ্ন

শিরোনাম

বৈশাখে রান্নার নানান আয়োজন

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১০৫৬ ঘণ্টা, শুক্রবার ১৩ এপ্রিল ২০১৮


বৈশাখে রান্নার নানান আয়োজন - লাইফস্টাইল

বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। এ দিন পোশাক-আশাক, আচার-আচরণ সবকিছুতেই যখন বাঙালিয়ানার ছোঁয়া, তখন খাবার টেবিল আর বাদ যাবে কেন? তবে শুধু পান্তা-ইলিশ হলেই তো হবে না। চাই আরও কিছু মজাদার খাবার, যাতে থাকবে খাঁটি বাঙালিয়ানার ছোঁয়া। এবার থাকছে তেমনই কিছু মজাদার রেসিপি।

বেগুনের খাট্টা ডাল

উপকরণ :
বেগুন ২টা (লম্বা বেগুন), মসুর ডাল ১ কাপ, মুগের ডাল ১/২ কাপ, তেঁতুলের মাড় সিকি কাপ, আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ, চিনি ১ টেবিল চামচ, হলুদ ১ চা চামচ, লাল মরিচের গুঁড়া ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ (পরিবেশনের সময়)

প্রণালি :
আলাদা আলাদা করে ডালগুলো সেদ্ধ করি। বেগুনগুলো ৩” সাইজে লম্বা লম্বা করে কাটি। তেল গরম করে তাতে বেগুন দিয়ে ভাজি। সেদ্ধ করা ডাল দিয়ে কষিয়ে সব গুঁড়া আর বাটা মসলা দিয়ে আরও একবার কষিয়ে পানি দিয়ে দেব। ডাল ঘন বা পাতলা হবে, তা নির্ভর করে যার যার রুচির ওপর। ঘন হয়ে এলে তেঁতুলের মাড় ও চিনি দিয়ে নামাই।

করলা ভাজি
উপকরণ :
দেশি ছোট করলা ১৪টা, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, হলুদ ১ চিমটি, লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল পরিমাণমতো।

প্রণালি :
তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ কুচি দেব। লালচে হলে তাতে ছোট সাইজের আস্ত দেশি করলা দিয়ে ভাজি। হলুদ, লবণ দিয়ে দেব। ৫ থেকে ৮ মিনিটের মতো ভেজে হালকা নরম হলে নামিয়ে পরিবেশন করি।

পোড়া ঢেঁড়স ভাজি
উপকরণ :
ঢেঁড়স ২৫০ গ্রাম, হলুদ ১ চিমটি, সবুজ মরিচ বাটা ১ চা চামচ, আদা ও রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল ৩ টেবিল চামচ।

প্রণালি :
ঢেঁড়স কেটে তাতে সরিষার তেল লাগিয়ে চুলার আগুনে ১ মিনিটের মতো পুড়িয়ে নিতে হবে। তেল গরম করে তাতে পোড়া ঢেঁড়স দিয়ে ভাজি। তাতে একে একে সব উপাদান দিয়ে পাঁচ মিনিটের মতো উচ্চ আঁচে ভেজে নামিয়ে পরিবেশন করি।

ঘোল
উপকরণ :
টক দই ২ কাপ, পানি ২ কাপ, লেবুর রস সিকি কাপ, চিনি সিকি কাপ, লবণ- স্বাদমতো।

প্রণালি :
সব উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। গ্লাসে ঢেলে লেবু দিয়ে পরিবেশন করি।

কাউনের চালের পায়েস

উপকরণ :
কাউনের চাল ১/২ কাপ, ঘন তরল দুধ ১ লিটার, চিনি সিকি কাপ, এলাচি ১টি।

প্রণালি :
দুধ গরম করে এলাচি দিয়ে দেব। প্রথমে কাউনের চাল ভালো করে টেলে নিতে হবে। এরপর ভালো করে ধুয়ে দুধের মাঝে দিয়ে দেব। সেদ্ধ হতে ১০ মিনিটের মতো লাগবে। ১০ মিনিট পরে তাতে চিনি দিয়ে ঘন হলে নামিয়ে পরিবেশন করি।

চিতল মাছের কোফতা

ধাপ ১
উপকরণ :
চিতল মাছের গাধার অংশ ১ কাপ, হলুদ ১/২ চা চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, ধনে গুঁড়া ১/২ চা চামচ, আদা রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি :
চিতল মাছের গাধার অংশটাকে পুতা দিয়ে বাড়ি দিয়ে ছেঁচে কাটাগুলো বের করে নিতে হবে। তারপর সব মসলা ও লেবুর রস ভালো করে মাখিয়ে মাছের কিমার সঙ্গে ২০ মিনিট রাখি। গোল শেপ করে তেলে সেলো ফ্রাই করি।

ধাপ ২
উপকরণ :
পেঁয়াজ বাটা ১ কাপ, আদা ও রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদ ১ চা চামচ, ধনে গুঁড়া ১ চা চামচ, সবুজ মরিচ ফালি ৪টি, সরিষার তেল সিকি কাপ, ধনেপাতা কুচি ৩ টেবিল চামচ, লবণ- স্বাদমতো।

প্রণালি :
তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ বাটা দিয়ে ভাজি। লালচে হলে তাতে আদা-রসুন বাটা ও সব গুঁড়া মসলা দিয়ে কষিয়ে নেব। মোট দুবার কষিয়ে ভেজে রাখা কোফতা দিয়ে অল্প আঁচে ১০ মিনিট রান্না করি। হয়ে এলে ধনেপাতা কুচি ও সবুজ মরিচ ফালি দিয়ে ২ মিনিট রেখে নামিয়ে পরিবেশন করি।

ইলিশ মাছের কাবাব/বড়া

ধাপ ১ :
উপকরণ :
ইলিশ মাছ ৪ পিস, হলুদ ১ চিমটি, আদা ও রসুন বাটা ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, পানি ১ কাপ।

প্রণালি :
সব উপাদান একসঙ্গে একটা হাঁড়িতে নিয়ে জ্বাল দিতে হবে। পানি শুকিয়ে গেলে মাছগুলো উঠিয়ে নরমাল তাপমাত্রায় আসার পর মাছের কাঁটা বেছে নিতে হবে।

ধাপ ২ :
উপকরণ :
সেদ্ধ ইলিশ ধাপ ১ এর অনুরূপ, সেদ্ধ আলু (গ্রেট করা) ১টা, সবুজ মরিচ কুচি ১টা, কাবাব মসলা ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, সরিষার তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি :
তেল বাদে সব উপাদান একসঙ্গে ভালো করে মাখিয়ে কাবাবের মতো শেপ করে সরিষার তেলে সেলো ফ্রাই করি। ফ্রাই শেষে পরিবেশন করি।

চিংড়ির ভর্তা
উপকরণ :
সেদ্ধ চিংড়ি ১২টা, পেঁয়াজ কুচি ১/২ কাপ, টমেটো কুচি ১/৪ কাপ, সবুজ মরিচ ২টা, আচারের তেল ৩ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :
সেদ্ধ করা চিংড়ির সঙ্গে সব উপাদান মিশিয়ে হাত দিয়ে আধা ভাঙা করে মাখিয়ে পরিবেশন করি।

চিংড়ির শুঁটকি ভর্তা
উপকরণ :
চিংড়ির শুঁটকি ১/২ কাপ, রসুন কুচি সিকি কাপ, পেঁয়াজ সিকি কাপ, লাল মরিচের গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, ঝাল আচারের তেল ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ- ৫টা, তেল সিকি কাপ, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :
চিংড়ির শুঁটকি টেলে নিয়ে পানি দিয়ে সেদ্ধ করি। সেদ্ধ শেষে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। আরেকটা প্যানে তেল দিয়ে রসুন ফোঁড়ন দেব। তারপর তাতে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দুই মিনিটের মতো ভাজি। এতে শুঁটকি দিয়ে দেব। সব গুঁড়ো মসলা কষিয়ে সিকি কাপ পানি দিয়ে একদম অল্প আঁচে রান্না করি। সবকিছু একদম শুকিয়ে গেলে তাতে আচারের তেল দিয়ে মাখা মাখা করে নামিয়ে নরমাল তাপমাত্রায় এলে শিল-পাটায় মিহি করে বেটে পরিবেশন করি।

পোড়া আলুর ভর্তা

উপকরণ :
আলু ৬টা, পেঁয়াজ ১/৪ কাপ, টালা শুকনা মরিচ ৫টা, সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ৩ টেবিল চামচ, লবণ- স্বাদমতো।

প্রণালি :
আলুর গায়ে হালকা তেল মাখিয়ে আগুনে পোড়া দেব ৩-৪ মিনিটের মতো। আলুগুলো নরমালভাবে সেদ্ধ করি। সেদ্ধ শেষে আলুর চামড়া ছিলে আলুর সঙ্গে বাকি সব উপাদান মিশিয়ে ভর্তা বানিয়ে পরিবেশন করি।

পাঁচমিশালি ডালের ভর্তা
উপকরণ :
মসুর ডাল ১/৪ কাপ, মুগের ডাল ১/৪ কাপ, বুটের ডাল ১/৪ কাপ, কালাইয়ের ডাল ১/৪ কাপ, খেসারির ডাল ১/৪ কাপ, হলুদ ১/২ চা চামচ, সবুজ মরিচ কুচি ৩টা, ধনেপাতা কুচি সিকি কাপ, সরিষার তেল ১/৪ কাপ, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :
সবগুলো ডাল আলাদা করে লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে। ডালগুলোকে ভালো করে ব্লেন্ড করে নেব। এখন তেল গরম করে তাতে সব ডাল দিয়ে ভাজি এবং বাকি উপাদান দিয়ে তিন মিনিটের মতো রেখে নামিয়ে নেব। সাজিয়ে পরিবেশন করি।সূত্র: অন্তর্জাল

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য