artk
৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫:০৫ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

এনডিবি চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকির পর নিখোঁজ

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৪২২ ঘণ্টা, শুক্রবার ১৬ মার্চ ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৮১২ ঘণ্টা, শুক্রবার ১৬ মার্চ ২০১৮


এনডিবি চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকির পর নিখোঁজ - রাজনীতি
দলীয় কর্মসূচিতে মোমিন মেহেদী (মাঝে)

নতুনধারা বাংলাদেশ-এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকির প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহবাগ থানায় জিডি করার পর আর হদিস মিলছে না তার।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে। রাতে তিনি বাসায় ফেরেননি। ফলে উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় রয়েছে তার পরিবার।

জানা গেছে, তরুণ রাজনীতিক, কলামিস্ট ও নতুনধারা বাংলাদেশ-এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকি দিয়েছে সাংবাদিক পরিচয় প্রদানকারী অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন নারী। ওই নারীদের সঙ্গে রয়েছে দাগী বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী। তারা সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে টাকা আদায় করে। এসব অপরাধী নিজেদের সাংবাদিক, পুলিশ, ডিবি, সিআইডি ও এসবি পরিচয়ে বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর তোপখানায় মেহেরবা প্লাজায়র নিচতলায় মোমিন মেহেদীর নিজস্ব কার্যালয়ে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন নারী এসে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কথা বলতে চায়। এসময় তিনি পরিচয়পত্র দেখতে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় প্রদানকারীরা পরিচয়পত্র না দেখিয়ে বরং তার ওপর হামলা চালায়। ভবনের নিরাপত্তা কর্মী ও অন্যান্য অফিসের কর্মকর্তারা মোমিন মেহেদীকে উদ্ধার করেন এবং হামলাকারীদের আটকের চেষ্টা চালান। হামলাকারীরা আটক হওয়ার ভয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করার সময় মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকি দিয়ে যায়।

এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় জিডি করেছেন মোমিন মেহেদী। জিডি নম্বর ৯৩৬ তারিখ ১৫ মার্চ ২০১৮ ইং। বর্তমানে অজ্ঞাত পরিচয়ে সন্ত্রাসীরা মোমিন মেহেদীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এদিকে তরুণ এই রাজনীতিবিদের সন্ধানের দাবিতে শুক্রবার বিকেল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে নতুনধারা।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত