artk
৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ২০ এপ্রিল ২০১৮, ১:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম

কাঠমান্ডু পোস্টের দাবি
১৮ কিলোমিটার দূরেই ল্যান্ডিং গিয়ার বেরিয়ে পড়ে (ভিডিও)

নিউজ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ০৮৩৯ ঘণ্টা, শুক্রবার ১৬ মার্চ ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২১৮ ঘণ্টা, শুক্রবার ১৬ মার্চ ২০১৮


১৮ কিলোমিটার দূরেই ল্যান্ডিং গিয়ার বেরিয়ে পড়ে (ভিডিও) - জাতীয়

ত্রিভুবন বিমানবন্দর থেকে ১৮ কিলোমিটার দূরে থাকতেই ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজটি ভূপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২০০ ফুট উচ্চতায় নেমে এসেছিল। এ সময় উড়োজাহাজটির ল্যান্ডিং গিয়ার বের হয়ে ছিল।

নেপালের দৈনিক কাঠমান্ডু পোস্ট বৃহস্পতিবার স্থানীয় শিখরনিউজ.কমের বরাত দিয়ে প্রকাশ করা একটি প্রতিবেদনে এ দাবি করেছে। এতে একটি ভিডিওচিত্র প্রকাশ করে বলা হয়, এটি বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজের।

শিখরনিউজ.কম মঙ্গলবার প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে।

কাঠমান্ডু পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, ত্রিভুবন বিমানবন্দর থেকে প্রায় ১৮ মাইল দূরে গাগালপেদি এলাকায় উড়োজাহাজটি অনেকে নিচে নেমে আসে। ভূপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২০০ ফুট ওপর দিয়ে যাচ্ছিল উড়োজাহাজটি। এ সময় মনে হচ্ছিল উড়োজাহাজটি যেন পাহাড়ের পাদদেশে বিধ্বস্ত হতে যাচ্ছে। যাত্রীরা এ সময় জানালা দিয়ে গাছপালা-ঝোপঝাড় দেখতে পান।

ভিডিওচিত্রে স্থানীয় বাসিন্দাদের বলতে শোনা যায়, “উড়োজাহাজটি পথ হারিয়ে ফেলেছে। উড়ছে তো উড়ছেই। এটা কোন বিমান সংস্থার উড়োজাহাজ? এটাকে নতুন মনে হচ্ছে।”

ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, উড়োজাহাজটির ল্যান্ডিং গিয়ার বের হয়ে আছে। সাধারণত রানওয়েতে অবতরণের প্রস্তুতি নেয়ার সময় ল্যান্ডিং গিয়ার বের করা হয়।

উল্লেখ্য, ১২ মার্চ সোমবার ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বিএস-২১১ নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় পড়ে। ৬৭ যাত্রী ও চার ক্রুসহ দুপুর ২টা ২০ মিনিটে বিমানটি বিমানবন্দরের পাশের একটি ফুটবল মাঠে বিধ্বস্ত হয়। এতে ৫১ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে। বাকিদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতলে ভর্তি করা হয়।

বিমানটিতে মোট ৬৭ যাত্রীর মধ্যে বাংলাদেশি ৩২ জন, নেপালি ৩৩ জন, একজন মালদ্বীপের ও একজন চীনের নাগরিক ছিলেন। তাদের মধ্যে পুরুষ যাত্রীর সংখ্যা ছিল ৩৭, নারী ২৮ ও দুটি শিশু ছিল।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত