artk
৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

জীবন দিয়ে ১০ নেপালী যাত্রীর প্রাণ বাঁচালেন পৃথুলা!

নিউজ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯০৬ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৩০৪ ঘণ্টা, বুধবার ১৪ মার্চ ২০১৮


জীবন দিয়ে ১০ নেপালী যাত্রীর প্রাণ বাঁচালেন পৃথুলা! - জাতীয়

নিজের জীবনের বিনিময়ে ১০ নেপালি যাত্রীর প্রাণ বাঁচিয়ে গেছেন ইউএস বাংলার সহকারী পাইলট পৃথুলা রশিদ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেকের পেজে দেয়া পোস্ট থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

পৃথুলাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ‘ডটার অব বাংলাদেশ’ আখ্যা দিয়ে অনেকে স্টাটাস দিয়েছেন।

তবে, নেপাল বা বিশ্বসংবাদ মাধ্যমে এ সংক্রান্ত কোনো সংবাদ দেখা যায়নি। এছাড়া পৃথুলা যে ১০ জনের জীবন বাঁচিয়েছেন, এ তথ্যের পক্ষে ওই বিমানে থাকা কোনো যাত্রীর বক্তব্যও ফেসবুকে কেউ দিতে পারেননি।

ফেসবুকের বিভিন্ন আইডি থেকে দেয়া পোস্টে বলা হচ্ছে- নিজের জীবন উৎসর্গ করে ১০ যাত্রীর জীবন বাঁচানোর ঘটনায় ভারত ও নেপালের সোশ্যাল সাইটগুলোতে পৃথুলাকে বলা হচ্ছে, ‘ডটার অফ বাংলাদেশ’। এই তরুণ পাইলট নেপালে বিধ্বস্ত বিমানে নিহত হয়েছেন। তার নাম পৃথুলা রশীদ। তিনিই ছিলেন বিধ্বস্ত বিমানটির কো-পাইলট। নিজের জীবনের বিনিময়ে ১০ জন নেপালির জীবন বাঁচিয়েছেন প্রথুলা। এই ১০ জন এখন বেঁচে আছেন।

সিকিম ম্যাসেঞ্জার নামের একটি ফেসবুক আইডি প্রথম এখন (৬টা ৪৫ মিনিট) থেকে ২০ ঘণ্টা আগে পৃথুলাকে নিয়ে একটি পোস্ট দেয়া হয়। পোস্টের শিরোনামে বলা হয়, নিজের জীবন দিয়ে ১০ নেপালির প্রাণ বাঁচালো ‘ডটার অব বাংলাদেশ’।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমও সিকিম ম্যাসেঞ্জারে দেয়া ওই পোস্টটি তার ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার করেন। সেখানে তিনি লেখেন, “Love you প্রিথুলা রশিদ, বোনটি আমার। তোমাদের মতো কিছু কিছু মানুষের জন্যই বাংলাদেশের নামটা আরেকটু উঁচুতে ওঠে। ভালো থেকো পরোপারে। তোমার পরিবার তোমার জন্য নিশ্চয় কষ্ট পাচ্ছে অনেক, তাঁরা তোমাকে নিয়ে গর্বও করবেন। মহান আল্লাহতালা তোমাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসীব করুন।”

সিকিম ম্যাসেঞ্জারের ওই পোস্টে অন্য একজন লিখেছেন, জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত পৃথুলা রশিদের অন্যের জীবন বাঁচানোর চেষ্টা ব্যর্থ হয়নি। ওই ১০ নেপালি যাত্রীর সবাই দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন। তারা সবাই এখন বেঁচে আছেন।

আরেকজন মন্তব্য করেছেন, দুর্ঘটনায় নিজের কথা না ভেবে আগে সেই যাত্রীদের রক্ষা করার চেষ্টা করেন পৃথুলা। দশ জন নেপালি যাত্রীকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচিয়ে নিরাপদে সরিয়ে দিতে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন। তাদের বাঁচানোর চেষ্টা করতে করতেই মর্মান্তিক মৃত্যু হয় পৃথুলার।

দুর্ঘটনাকিবলিত ৬৭ যাত্রীর মধ্যে ৩৩ জন বাংলাদেশি, ৩২ জন নেপালি, একজন মালদ্বীপের এবং একজন চীনের নাগরিক ছিলেন। ৪ জন ক্রু ছিলেন বলে ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। সেই হতভাগাদেরই একজন পৃথুলা রশিদ।

দুর্ঘটনা কবলিত বোমবার্ডিয়ার ড্যাশ ৮ কিউ৪০০ উড়োজাহাজটিতে ৩৭ জন পুরুষ ও ২৭ জন নারী ছাড়াও উড়োজাহাজটিতে শিশু যাত্রীও ছিল ।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত