artk
৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১:১৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

ফেনীতে একরাম হত্যার দায়ে ৩৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

ফনী সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৫৪৩ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১০১৯ ঘণ্টা, বুধবার ১৪ মার্চ ২০১৮


ফেনীতে একরাম হত্যার দায়ে ৩৯ জনের মৃত্যুদণ্ড - কোর্ট-কাচারি

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি একরামুল হক একরাম হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা আদেল, কমিশনার শিবলুসহ ৩৯ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

একইসঙ্গে এ মামলার প্রধান আসামি স্থানীয় বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন আহমদ চৌধুরী মিনারসহ ১৬ জন খালাস পেয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেল তিনটার দিকে ফেনী জেলা ও দায়রা জজ আমিন উল হক এ আদেশ দেন।

ফেনী জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাফেজ আহম্মদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে প্রায় চার বছর ধরে মামলার সাক্ষ্য ও যুক্তি-তর্ক শেষে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি চার্জশিটভুক্ত ৫৬ আসামির মধ্যে জামিনে থাকা ২৪ আসামির জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। চার্জশিটভুক্ত অপর ১৭ আসামি পলাতক রয়েছে। বর্তমানে জেলে রয়েছে ৩৮ আসামি।

এছাড়া জামিনে থাকা মো. সোহেল ওরফে রুটি সোহেল নামের এক আসামি ইতোমধ্যে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। এ মামলার প্রধান আসামি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী মিনার বিএনপি নেতা হলেও অপর সব আসামি আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২০ মে ফেনী বিলাসী সিনেমা হলের সামনে ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান ও  উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি একরামুল হক একরামকে গুলি করে, কুপিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করে।  হত্যার দিন রাতেই নিহত একরামের ভাই  জসিম উদ্দীন বাদী হয়ে দায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে একই বছরের ২৮ আগস্ট পুলিশ ৫৬ জনকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলা তদন্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ। প্রায় চার বছর ধরে যথারীতি সাক্ষ্যগ্রহণ ও যুক্তিতর্ক শেষে ১৩ মার্চ বিচারক চূড়ান্ত রায়ের দিন ধার্য করেন। এ সময় আদালত পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশের পাশাপাশি জামিনে থাকা ২১ আসামির জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

নিহত একরামের বড় ভাই মামলার বাদী জসিম উদ্দীন সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানিয়ে বলেন, আমি আমার ভাইয়ের নির্মম হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রত্যাশা করছি।  

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএইচ/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য