artk
৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১১:৫২ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ফেসবুকের নিউজ ফিডে গুরুত্ব পাবে পরিবার ও বন্ধুরা

আইটেক ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৮২৮ ঘণ্টা, শুক্রবার ১২ জানুয়ারি ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ২০৪১ ঘণ্টা, শুক্রবার ১২ জানুয়ারি ২০১৮


ফেসবুকের নিউজ ফিডে গুরুত্ব পাবে পরিবার ও বন্ধুরা - আই-টেক

বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সংবাদমাধ্যম বা তারকা ব্যক্তিত্বের পোস্টের কারণে অনেক সময় ফেসবুক ব্যবহারকারী তার নিকটজনেরই তৎপরতা দেখতে পান না তার নিউজফিডে। এ কারণে ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে তার মিথষ্ক্রিয়ার কমে যায়। অথচ ফেসবুক প্রতিষ্ঠাই হয়েছিল ঘনিষ্ঠজনদের মধ্যে মিথষ্ক্রিয়া তৈরির জন্য। ফলে লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হতে থাকা ফেসবুককে মূলধারায় ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগী হয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর এএফপি।

বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, এখন থেকে সংবাদ, সেলিব্রেটি ও পেজের চেয়ে বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের পোস্টকে অগ্রাধিকার দিয়ে তা ব্যবহারকারীর ওয়ালে দেখানো হবে। ধারণা করা হচ্ছে, এতে এই মাধ্যমে মানুষ আগের চেয়ে কম সময় ব্যয় করবে।

ফেসবুকের নিউজ ফিড ব্যবস্থাপক জন হেজেমান জানান, পোস্টের অগ্রাধিকারে এই পরিবর্তনের ফলে সামাজিক মিথষ্ক্রিয়া ও সম্পর্ক বাড়বে। তিনি বলেন, এটা বড় ধরনের পরিবর্তন। মানুষ ফেসবুকে কম সময় ব্যয় করবে সত্যি কিন্তু আমরা এতে আনন্দিত। কারণ এর ফলে মানুষ এই সময়টুকু গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যয় করতে পারবেন। শেষ পর্যন্ত তা আমাদের ব্যবসার জন্যই ভালো হবে।

এই বিষয়ের ব্যাখ্যা দিতে হেজেমান উদাহরণ দিয়ে জানান, ধরুন পরিবারের একজন সদস্য একটি ভিডিও পোস্ট করলেন। যা কোনও সেলিব্রেটি বা প্রিয় রেস্তোরাঁর পোস্টের চেয়ে বেশি আকৃষ্ট করতে পারবে।

ফেসবুক কর্মকর্তা বলেন, আমরা মনে করি নিষ্ক্রিয় বিষয়বস্তুর চেয়ে মানুষের মিথষ্ক্রিয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ পর্যন্ত যতগুলো আপডেট আমরা করেছি এটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ বলে আসছেন, মানুষকে একত্রিত করা ও বাস্তব পৃথিবীতে সমাজকে শক্তিশালী তাদের সবচেয়ে অগ্রাধিকার।

সপ্তাহখানেকের মধ্যেই বড় ধরনের এ পরিবর্তন দৃশ্যমান হবে বলে জানিয়েছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জুকারবার্গ। তিনি শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) একটি পোস্টের মাধ্যমে জানান, সপ্তাহখানেকের মধ্যেই ব্যবহারকারীরা তাদের নিউজফিডে বড় পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

জুকারবার্গ তার পোস্টে বলেন, “বিভিন্ন মানুষকে কাছে আনাই ফেসবুকের মূল উদ্দেশ্য। সাধারণ ব্যবহারকারীদের শেয়ার করা পোস্টগুলোই বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে মুখ্য ভূমিকা পালন করে। কিন্তু ব্যবহারকারীরা বহুদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছিলেন, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ব্র্যান্ড ও সংবাদমাধ্যমের পোস্টের ভিড়ে মানুষের ব্যক্তিগত মুহূর্তগুলো উপেক্ষিত হচ্ছে। আর এ অভিযোগটি গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নিয়েছে দুই’শ কোটি ব্যবহারকারীর সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক।”

২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের পর ভুয়া খবর প্রচারের জন্য ফেসবুক, গুগল ও টুইটারের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ফেসবুক এই সমস্যা মোকাবিলায় বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে।

হেজেমান জানান, বাজে বিষয়বস্তু কমাতে আমরা অনেক কাজ করছি। এই আপডেট মানুষের কাছে যা মূল্যবান তা তুলে ধরার চেষ্টা।

গবেষণা প্রতিবেদনের কথা তুলে ধরে এই কর্মকর্তা জানান, সংবাদমাধ্যমের প্রবন্ধ বা অন্যের শেয়ার করা ভিডিও দেখার চেয়ে প্রিয় মানুষের সঙ্গে আদান-প্রদান যে কারও ভালো থাকার জন্য জরুরি। বলেন, সবচেয়ে অর্থবহ বিষয় নির্ধারণের জন্য কোনও নির্দিষ্ট মানদণ্ড নেই। কিন্তু আমরা চেষ্টা করছি যা সবচেয়ে ভালো প্রতিনিধিত্ব তা করে তুলে ধরার।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য