artk
৮ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২৩ জুলাই ২০১৮, ৩:৪৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম

‘ডোন্ট আন্ডার এস্টিমেট দ্য পিপল অব নোয়াখালী’

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯২৬ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১১ জানুয়ারি ২০১৮ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৩৩৫ ঘণ্টা, রোববার ১৪ জানুয়ারি ২০১৮


‘ডোন্ট আন্ডার এস্টিমেট দ্য পিপল অব নোয়াখালী’ - রাজনীতি

নোয়াখালী বিষয়ক গল্প দিয়ে খালেদা জিয়ার মামলার শুনানি শুরু করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার যুক্তিতর্ক শুনানির শুরুতে মওদুদ বলেন, “প্রথম ব্রিটিশ নাগরিক যিনি এভারেস্ট জয় করেছেন, তিনি এভারেস্টের চূড়ায় গিয়ে দেখেন, ওখানে আগে থেকেই বসে আছেন একজন। তখন তিনি তাকে দেখে হতবাক। ওই ব্যক্তিকে তিনি বলেন, ‘তুমি কে?’ তখন ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আপনি কে?’ ব্রিটিশ নাগরিক বলেন, ‘আমি ইংল্যান্ড থেকে এসেছি। আর তিনি বলেন, ‘আমি এসেছি নিউক্যালি (নোয়াখালী) থেকে’।”

এরপর মওদুদ বলেন, “দুই প্রধানমন্ত্রীর এক দিক থেকে মিল আছে। তারা নোয়াখালীর লোক ছাড়া সেনাপ্রধান নিয়োগ দিতে পারেন না। দুইজনই নোয়াখালীর সেনাপ্রধান নিয়োগ দিয়েছেন। খালেদা জিয়া আগে মঈন উ আহমেদকে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হককে। সুতরাং ডোন্ট আন্ডার এস্টিমেট দ্য পিপল অব নোয়াখালী।”

যুক্তিতর্ক শুনানিতে মওদুদ বলেন, “আদালতে যদি রাজনৈতিক প্রভাব না থাকতো তাহলে যে আদালতে এ মামলার অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে, সে আদালত ইচ্ছা করলে এটা খারিজ করে দিতে পারতো। প্রথম থেকে এটি একটি গ্রহণযোগ্য মামলা নয়। অরফানেজ ট্রাস্টের টাকা মেরে খাওয়া তো দূরের কথা ২ কোটি ৩৩ লাখ থেকে বেড়ে সে টাকা এখন ৬ কোটির বেশি হয়েছে।”

এরপরই মামলার কার্যক্রম মুলতবি রাখার নিবেদন করলে বিচারক আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা ৫ মিনিটের দিকে আদালতে পৌঁছান সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। তিনি এখন অস্থায়ী জামিনে আছেন। প্রতি তারিখেই তিনি আদালতে হাজিরা দিচ্ছেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় অপর একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এনডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত