artk
৪ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:৪৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ইবিতে প্রথম দিনের ভর্তি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন

ইবি সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯৫৮ ঘণ্টা, শুক্রবার ০১ ডিসেম্বর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ২০০০ ঘণ্টা, শুক্রবার ০১ ডিসেম্বর ২০১৭


ইবিতে প্রথম দিনের ভর্তি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন - শিক্ষাঙ্গন

শান্তিপূর্ণ ও উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্যদিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের (স্নাতক) শ্রেণির প্রথম দিনের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত তিন শিফটে প্রথম দিনের এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা গেছে। বিগত বছরগুলোর তুলনায় এবছর ভর্তি পরীক্ষায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে কোনো প্রকার জালিয়াতি ও দুর্নীতি ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে প্রথম দিনের ‘এফ’ এবং ‘ই’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা।

জানা যায়, পরীক্ষার প্রথম দিন ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভুক্ত ‘ই’ ও ‘এফ’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৯টা থেকে ১০টা প্রথম শিফটে ‘এফ’ ইউনিট এবং ১১টা থেকে ১২টা ও সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত দুই শিফটে ‘ই’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানা গেছে। ‘এফ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ আসনের বিপরীতে ৩ হাজার ৭৭৪টি আবেদন ফরম জমা পড়ে। এ ইউনিটে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিলো প্রায় ৭০ শতাংশ। এছাড়া ‘ই’ ইউনিটে ২০০ আসনের বিপরীতে ১৩ হাজার ২৬টি ফরম জমা পড়ে। এ ইউনিটের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল প্রায় ৭৫ শতাংশ।

বিগত বছরগুলোতে ভর্তি পরীক্ষায় ঘটে যাওয়া বিভিন্ন অসংগতি এড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরই অংশ হিসেবে অনুষ্ঠিতব্য এবারের ভর্তি পরীক্ষায় সকল প্রকার ডিজিটাল জালিয়াতি ঠেকাতে নেয়া হয়েছে প্রযুক্তিগত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ডিজিটাল জালিয়াতি ও ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস শনাক্ত করণে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে ৪টি অত্যাধুনিক আর্চ ওয়েগেট বসানো হয়েছে। একইসঙ্গে পরীক্ষার হলে প্রবেশ পথে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে সকল পরীক্ষার্থীকে সার্চ করা হয়েছে। সমগ্র ক্যম্পাস সিসিটিভির নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। বাড়তি নিরাপত্তা ও প্রশ্ন জালিয়াতি ঠেকাতে পরীক্ষা শুরুর ১০ মিনিট আগে থেকেই পরীক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে পরীক্ষার সকল কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত কাউকে বাইরে বের হতে দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী। এছাড়া পরীক্ষা চলাকালে ক্যাম্পাসের ভেতরের ও বাইরের সব ফটোকপির দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়।

ক্যাম্পাসের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে সব ধরনের রাজনৈতিক মিটিং-মিছিল নিষিদ্ধ ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। র‌্যাগিং ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সর্বোচ্চ তৎপর ছিল প্রশাসন। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে পুলিশি নজরদারি ছিল চোখে পড়ার মতো। জালিয়াতি ও যেকোন ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে সাদা পোশাক তৎপর ছিল শতাধিক গোয়েন্দা পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী বলেন, “প্রথম দিনের পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে হয়েছে। আশা করছি, বাকি পরীক্ষাগুলোও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএমবি/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য