artk
৪ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সোমবার ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:৫০ অপরাহ্ন

শিরোনাম

আসিয়ান সম্মেলনের বিবৃতিতে নেই ‘রোহিঙ্গা সংকট’

বিদেশ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৩৫৮ ঘণ্টা, সোমবার ১৩ নভেম্বর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৫২৭ ঘণ্টা, সোমবার ১৩ নভেম্বর ২০১৭


আসিয়ান সম্মেলনের বিবৃতিতে নেই ‘রোহিঙ্গা সংকট’ - বিদেশ

ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় চলমান আসিয়ান (অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস) সম্মেলন উপলক্ষে তৈরি করা বিবৃতির খসড়ায় স্থান পায়নি রোহিঙ্গা সংকট। জাতিসংঘের ভাষায় মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংগঠিত গণহত্যার হাত থেকে বাঁচতে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম যে দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়েছেন- সে সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি বিবৃতিতে।

সোমবার খসড়া বিবৃতিটি দেখতে পায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ভিয়েতনামের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ফিলিপাইনে ইসলামিক জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কারণে যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তার পাশাপাশি উত্তর রাখাইনে ‘আক্রান্ত গোষ্ঠীদের’ মাঝে মানবিক সহায়তা দেয়ার গুরুত্ব তোলে ধরা হয়েছে বিবৃতির একটি অনুচ্ছেদে।

১০ দেশের সংগঠন আসিয়ানের বর্তমান সভাপতি ফিলিপাইন বিবৃতিটি তৈরি করেছে। কিন্তু এর খসড়ায় উত্তর রাখাইনের পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত কিছু বলা হয়নি। এমনকি নির্যাতিত সংখ্যালঘু মুসলিমদের পরিচয় হিসেবে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটিও ব্যবহার করা হয়নি।

বৌদ্ধ জনগোষ্ঠীর দেশ মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের বিবেচনা করে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া অবৈধ অভিবাসী। তারা সংখ্যালঘু গোষ্ঠীটিকে রোহিঙ্গা হিসেবে স্বীকারও করে না। এ শব্দটি ব্যবহার না করতে বিদেশি নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান রয়েছে মিয়ানমার নেত্রী অং সান সু চির। তিনি চলতি আসিয়ান সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন এবং সোমবার একটি প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন।

আসিয়ানের কয়েকটি দেশ, বিশেষ করে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ মালয়েশিয়া রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে শুরু থেকেই সোচ্চার রয়েছে। কিন্তু সম্মেলনের আলোচনায় বিষয়টি স্থান পায়নি। কারণ, সদস্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অন্যদের হস্তক্ষেপ না করার বিষয়ে নীতি রয়েছে আসিয়ানের।

গত সেপ্টেম্বরে আসিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক সম্মেলনে তৈরি করা বিবৃতি অনুমোদন দিতে অস্বীকার করে মালয়েশিয়া। দেশটি অভিযোগ করে, রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গারা যে নির্যাতিত হচ্ছে তা উল্লেখ না করে বিবৃতিতে প্রকৃত সত্য তুলে ধরা হয়নি।

নিউজবাংলাদেশ.কম/একিউএফ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য