artk
৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম

শ্বাসনালীর ঘা সর্দিকাশি দূর করে কর্পুর

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১০১৯ ঘণ্টা, রোববার ১২ নভেম্বর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৩৫৭ ঘণ্টা, রোববার ১২ নভেম্বর ২০১৭


শ্বাসনালীর ঘা সর্দিকাশি দূর করে কর্পুর - লাইফস্টাইল
ফাইল ফটো

সিনামোনাম ক্যাম্ফোরা গাছের ছালের নির্যাস থেকে তৈরি হয় কর্পুর। যদিও গাছের বয়স হতে হবে কমপক্ষে ৫০ বছর। জাপানের হিরোশিমায় এই গাছের জন্ম। তবে এখন ইন্দোনেশিয়ার সহ এশিয়ার অনেক জায়গাতেই কর্পুর মেলে। ব্যথা–বেদনা, সর্দিকাশি অনেক রোগ নিমেষে সারায়।

১। ত্বকের সংজ্ঞাবহ স্নায়ুগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়। ফলে ব্যথা, বেদনা কমে যায়।

২। ত্বকে অ্যালার্জির সমস্যাও দূর করে কর্পুর। পানিতে কর্পুর তেল ফেলে স্নান করলে অ্যালার্জি কমে যায়।

৩। নখে ফাংগাস সংক্রমণও ঠেকায় কর্পুর। ক্যান্ডিডা প্যারাপসিলোসিস, ট্রাইকোফাইটন মেন্টাগ্রোফাইটস জাতীয় ফাংগাস সংক্রমণ দূরে রাখে।

৪। শিশুদের একজিমা সারাতে সাহায্য করে কর্পুর। জ্বলুনি কমিয়ে আরাম দেয়। একজিমা কমানোর লোশন, ক্রিমে কর্পুর ব্যবহার হয়।

৫। বালিশে এক ফোটা কর্পুর তেল ফেলে রাখলে ভাল ঘুম হয়।

৬। শ্বাসনালীতে ঘা, সর্দিকাশিও নিমেষে দূর করে। গরম পানিতে ভেপার নেওয়ার সময় এক চিমটে কর্পুর ফেলে রাখলে উপকার মিলবে।

৭। নারকেল তেলের সঙ্গে কর্পুর তেল মিশিয়ে স্কালপে লাগালে চুলের বৃদ্ধি হয়। এই তেল স্কালপে রক্তের সঞ্চালন বাড়ায়। ফলে চুল বাড়ে তাড়াতাড়ি। উকুন, ফাংগাস সংক্রমণ থেকেও মুক্তি দেয়।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য