artk
৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৩৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় আটক ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

ঢাবি সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২১১২ ঘণ্টা, শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ০৯২০ ঘণ্টা, শনিবার ২১ অক্টোবর ২০১৭


ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় আটক ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার - শিক্ষাঙ্গন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে আটক হলেও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণ দেখিয়ে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি সংগঠনটির সহসম্পাদক মহিউদ্দিন রানাকে বহিষ্কার করেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে মহিউদ্দিন বৃহস্পতিবার রাতে আটক হন।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এক সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার আটকের ঘটনার পরই তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়।

শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। জালিয়াতির অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মহিউদ্দিন রানা এবং ফলিত রসায়নের প্রথম বর্ষের ছাত্র আবদুল্লাহ আল মামুনকে পরীক্ষার আগের রাতেই আটক করা হয়।

তাদের দেয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে আজ পরীক্ষা চলার সময় বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ১৩ জনকে আটকে করা হয়। এ ঘটনার পরেই শুক্রবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে মহিউদ্দিন রানাকে বহিষ্কারের ঘোষণা আসে। তবে ঘোষণায় ‘দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের’ কথা বলা হয়।

সিআইডি এক খুদে বার্তায় জানিয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল যন্ত্র ব্যবহার করে কিছু পরীক্ষার্থী জালিয়াতি করেছে। এ ঘটনায় সিআইডির সংঘবদ্ধ অপরাধ (অর্গানাইজড ক্রাইম) তদন্ত দলের সদস্যরা এই জালিয়াতি চক্রের কয়েকজন মূল হোতা ও পরীক্ষার্থীকে আটক করে।

এদিকে ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষার ইংরেজি অংশের প্রশ্ন আগেই ফাঁস হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল দিবাগত রাত আড়াইটা থেকে তিনটার মধ্যে কয়েকজনের ই-মেইলে আজকের ভর্তি পরীক্ষার ইংরেজি অংশের ২৪টি প্রশ্ন পাঠানো হয়। আজ পরীক্ষা শুরুর অন্তত আধা ঘণ্টা আগে কয়েকজনের মোবাইলে ওই সব প্রশ্নের উত্তরের একটি লিখিত কপি খুদে বার্তা হিসেবে পাঠানো হয়। রাতে পাওয়া প্রশ্নের কপি ও আজকের খুদে বার্তার কপি প্রথম আলোর কাছে আছে।

অনেকেই গণমাধ্যমে অভিযোগ করেন, টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। পরীক্ষা শেষে বৃহস্পতিবারের ওই প্রশ্নগুলোর সঙ্গে প্রশ্নপত্রের অবিকল মিল পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এম আমজাদ আলী বলেন, এ ধরনের কোনো অভিযোগ আসেনি। আর প্রশ্ন ফাঁসের প্রশ্নই ওঠে না। তবে বিভিন্ন ধরনের জালিয়াতির কারণে ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

এ বছর ‘ঘ’ ইউনিটে ১ হাজার ৬১০টি আসনের বিপরীতে ৯৮ হাজার ৫৪ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন। এই ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ১ হাজার ১৪৭টি, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের জন্য ৪১০টি ও মানবিক শাখার জন্য ৫৩টি আসন রয়েছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত